মোস্তাফিজের দ্বিতীয় ধাপের রিহ্যাব শুরু ঈদের পর

মোস্তাফিজের দ্বিতীয় ধাপের রিহ্যাব শুরু ঈদের পর

মোস্তাফিজের দেশে ফেরার তিন সপ্তাহ পূর্ণ হলো আজ বুধবার। এখন পূর্ণ বিশ্রাম, হালকা ব্যায়াম আর রিহ্যাবে কাটছে কাটার মাস্টারের দিনকাল। চিকিৎসকের বেঁধে দেয়া সময় সীমা হলো চার থেকে ছয় মাস। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক ও তার কাঁধের অস্ত্রপ্রচারের সময় থাকা দেবাশীষ চৌধুরীর ধারনা ও বিশ্বাস, সব কিছু ঠিক থাকলে হয়ত পাঁচ মাসের মধ্যে সুস্থ্য হয়ে উঠতে পারেন মোস্তাফিজ। সে হিসেবে এখনো সামনে অনেক দীর্ঘ পথ। মাঠে ফিরতে অপেক্ষায় থাকতে হবে অনেকটা সময়।

কিন্তু ভক্ত-সমর্থকদের যেন আর তড় সইছে না। মোস্তাফিজ কেমন আছেন, কোথায় আছেন? কি করছেন, কেমন চলছে তার প্রতিদিন-প্রতিক্ষণ জানতে উন্মুক সবাই। তাদের জন্য বলা, অপারেশনের এক সপ্তাহ পর ১১ আগষ্ট সকালে দেশে ফিরে দুদিন রাজধানীতে অবস্থানের পর সাতক্ষীরায় নিজ গ্রামের বাড়ীতে ফিরে যাওয়া কাটার মাষ্টারের আজ বুধবার আবার ঢাকায় আসার কথা।

বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বুধবার সকালে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ঈদের আগে মোস্তাফিজ রাজধানীতে সপ্তাহখানেক থাকবেন। ৮-৯ সেপ্টেম্বর তিনি আবার বাড়ি ফিরে যাবেন। ঈদের ছুটি শেষে আবার ১৮-১৯ সেপ্টেম্বর তার ফেরার সময় বেঁধে দেয়া আছে। সব কিছু ঠিক মত চললে তখন তার রিহ্যাবের দ্বিতীয় ধাপ শুরুর কথা ভাবছি। তার আগে পর্যন্ত চলবে রিহ্যাবের প্রথম পর্ব।

আগেই জানা কাটার মাস্টারের অপারেশনটি তেমন জটিল বা বড় ছিল না। এক ঘন্টারও কম সময়ে সফল অস্ত্রপ্রচার হয়ে গেছে। তার ফেরা ও পুনর্বাসন প্রক্রিয়াও যে খুব জটিল নয়। তবে দীর্ঘ। কাঁধের এমন অপারেশনের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরতে অন্তত চার থেকে ছয় মাসের মত লাগে। এখন তার দেখাশোনার সমুদয় দায়িত্ব যার কাঁধে, সেই বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরীর দিনক্ষণের হিসেবে না গিয়ে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে দেখতে চাচ্ছেন। তার অনুভব, পুরো বিষয়টি একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার ওপর নির্ভর করে। তাই হুট করে দিনক্ষণ বলে ফেলা কঠিন। তবে রিহ্যাব প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে এবং সব ঠিক মত চললে হয়ত পাঁচ মাস পর মোস্তাফিজের মাঠে ফেরার সম্ভাবনা থাকবে।

তবে ঐ সময়ের আগে যে সে ফিরতে পারবে না, তাও নয়। চারমাসেও সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন। আবার খেলা উপযোগী ফিটনেস ফিরে আসতে ছয় মাসও লাগতে পারে। সব কিছুই নির্ভর করবে রিহ্যাব প্রক্রিয়াটি যথাযথ হবার এবং ধারাবাহিক প্রক্রিয়া ঠিক থাকার ওপর। তা যদি বহাল থাকে, আশা করা যায় ঐ সময়ের মধ্যে ফিরবে মোস্তাফিজ।

দেবাশীষ চৌধুরীর ধারনা সত্য হলে মোস্তাফিজ হয়ত ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ড সফরে যেতে পারবেন না। নিউজিল্যান্ড সফরের আগে ম্যাচে খেলার মত ফিটনেস ফিরে আসার সম্ভাবনা কম। তবে সব কিছু ঠিক মত চললে হয়ত ফেব্রয়ারীতে ভারতের হায়দ্রাবাদে যে এক ম্যাচের টেষ্ট সিরিজ হবে, সেখানে মোস্তাফিজের দেখা মিলতে পারে।

কয়েক মাস আগে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ কে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন করে বিজয়ীর বেশে হাসি মুখে দেশে ফিরে এসেছিলেন সময়ের সেরা ক্রিকেট সেনসেশন। কে জানে সেই হায়দ্রাবাদেই আবার ক্রিকেট মাঠে ফেরার আনন্দে মেতে উঠতে পারেন মোস্তাফিজ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD