হাথুরুসিংহের শতভাগ, সৌম্যর সংস্কার

হাথুরুসিংহের শতভাগ, সৌম্যর সংস্কার

দুপুরের কড়া রোদটা পড়তে শুরু করেছে তখন। বাংলাদেশ দলের ম্যাচ নেই। অনুশীলনও নেই। গোটা দলেরই ছুটি সোমবার। সন্ধ্যার পর পাকিস্তান মাঠে নামবে আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে। অথচ শেরে বাংলার উইকেটের সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ দলের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সঙ্গে মিরপুরের কিউরেটর গামিনি ডি সিলভা। তারপর সোজা ইনডোরে চলে গেলেন টাইগার কোচ। যেখানে অনুশীলন করছিলেন তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম। নেটে ব্যাটিং করেছেন তামিম ও সৌম্য। বোলিং মেশিনে লম্বা সময় ব্যাটিং করেছেন মুশফিক। তামিম-মুশফিক ফিরে গেলেও রান খরায় ভোগা সৌম্যকে নিয়ে নেটে সময় কাটান হাথুরুসিংহে। নিজে বোলিং করলেন নেট বোলারদের সঙ্গে। কিছুণ পরপর আবার ব্যাটিং স্টান্স, শট খেলার ভঙ্গিসহ নানা বিষয়ে কথা বলেছেন সৌম্যর সঙ্গে।
হাথুরুসিংহের সময়টা ভালো যাচ্ছে বাংলাদেশে। রোববারই তার অধীনে টি-২০ তে প্রথমবার শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে টাইগাররা। দল ছাড়াও কোচ হাথুরুসিংহের অর্জন রয়েছে ওই জয়ে। স্বদেশ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে কোচ হাথুরুসিংহের এটি প্রথম জয়। এই শ্রীলঙ্কা দলেরই কোচ হওয়ার সুযোগ ছিল তার। কিন্তু লঙ্কান হয়েও শ্রীলঙ্কার বোর্ড কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন ৪৭ বছর বয়সী এ কোচ। পরে দেশ ছেড়ে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমান হাথুরুসিংহে। অস্ট্রেলিয়ায় কোচ হিসেবে টানা অনেক বছর চাকুরির পর বিসিবির ডাকে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেন তিনি।
শ্রীলঙ্কার বিপে প্রথম জয়ের অভিনন্দন জানাতেই হাথুরুসিংহে বলে উঠলেন, শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে এর আগে তো কোনো ম্যাচ খেলা হয়নি। তাহলে আমি জিতবো কিভাবে। সেেেত্র উপোর স্বদেশের বিরুদ্ধে হাথুরুসিংহের সাফল্যের রেকর্ডটা তাই শতভাগই থাকলো।
ক্রিকেটাররা সবাই কমবেশি সংস্কার মানেন। যেমনটা ডান প্যাড আগে পায়ে লাগানো। সৌম্য সরকারও তেমন কিছু করেন। তবে সংস্কার হিসেবে নয়। সোমবার ইনডোরে সৌম্যকে দেখা গেল প্রথমে বাঁ পায়ে প্যাড পরছেন। জানতেই বলেন, আমি সবসময় এভাবেই পরি। আগে বাঁ পায়ে। গ্লাভস আবার ডান হাতেরটাই আগে পরেন।
আবার মাঠে নামেন সৌম্য ডান পা আগে দিয়ে। এশিয়া কাপে ফর্মটা ভালো যাচ্ছে না বাঁহাতি এ ওপেনারের। টানা দুই ম্যাচেই ব্যর্থ হয়েছেন জ্বলে উঠতে। তবে সৌম্যর সামনে এখন পাকিস্তান। গত এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপে ওয়ানডেতে ক্যারিয়ারের একমাত্র সেঞ্চুরিটা করেছিলেন সৌম্য। সেদিন অপরাজিত ১২৭ রানের অসামান্য ইনিংস খেলেছিলেন। সেই সুখস্মৃতির কথা স্মরণ করিয়ে দিতেই সৌম্যর মুখে খেলে গেল এক ঝিলিক হাসি। বুধবার পাকিস্তানের বিপে আবারও হেসে উঠবে সৌম্যর ব্যাট, এমনটাই সবার আশা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD