ঢাকাFriday , 19 January 2024
  1. অলিম্পিক এসোসিয়েশন
  2. অ্যাথলেটিক
  3. আইপিএল
  4. আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরচারি
  7. এশিয়া কাপ
  8. এশিয়ান গেমস
  9. এসএ গেমস
  10. কমন ওয়েলথ গেমস
  11. কাবাডি
  12. কুস্তি
  13. ক্রিকেট
  14. টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ
  15. টেনিস

শরিফুলের কাছে হ্যাটট্রিকটা ‘স্পেশাল’

Sahab Uddin
January 19, 2024 7:26 pm
Link Copied!

শেষ ওভারের প্রথম বল ডট দিয়েছিলেন শরিফুল। পরের দুই বলেই টানা দুটি ছক্কা খেলেন পাকিস্তানি ব্যাটার খুশদিল শাহ-এর কাছে। কিছুটা হতাশ হয়ে পড়েছিলেন শরিফুল ইসলাম তখন! তাকে বিশেষ কোনো টিপস দিতে এগিয়ে আসেন তাসকিন আহমেদ। অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও কোনো উপদেশ দিলেন। এরপরের ইতিহাস সবার জানা। খুশদিল শাহ, রোস্টন চেজ এবং মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনকে সাজঘরে ফিরিয়ে বিপিএলের প্রথম ম্যাচেই হ্যাটট্রিক উপহার দিলেন শরিফুল।

বয়সভিত্তিক বেশ কিছু দলে খেলেছেন বাঁ-হাতি এই পেসার। ছিলেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য। এরপর গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে নিয়মিত খেলছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে। এরই ফাঁকে ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটসহ ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক নানা পর্যায়ে ক্রিকেট খেলেছেন শরিফুল ইসলাম।

কিন্তু এই প্রথম ক্যারিয়ারে যে কোনো পর্যায়ে প্রথম হ্যাটট্রিক করলেন শরিফুল ইসলাম। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে ম্যাচ শেষ হওয়ার পর নিজেই এ তথ্য জানালেন ম্যাচ সেরা শরিফুল। বললেন, ক্যারিয়ারের যে কোনো পর্যায়ে এটাই প্রথম হ্যাটট্রিক তার।

তবে, শরিফুল ইসলামের কাছে প্রথম হলেও এই হ্যাটট্রিকটা বিশেষ গুরুত্ববহন করে অন্য একটি কারণে। নিজেই সে তথ্য জানালেন। বললেন, ‘আজ মাঠে আমার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিল। আজই তাদের সামনে হ্যাটট্রিকটা করে ফেললাম, এটা আমার কাছে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগার।’

পরিবারের সদস্য বলতে কে কে গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন, তা অবশ্য জানাননি দুর্দান্ত ঢাকার এই পেসার। শুধু জানালেন, ওনারা তো ঢাকায় থাকেন না। অনেক দূর, গ্রাম থেকে এসেছেন। হয়তো আর একটি ম্যাচ মাঠে থেকে দেখবেন। এরপর চলে যাবেন। তবে তাদের সামনে হ্যাটট্রিক করার মত কিছু করতে পারা আমার জন্য অবশ্যই বিশেষ কিছু।’

খুশদিল শাহ পরপর দুটি ছক্কা মেরে দেয়ার পর কী কিছুটা নার্ভাস হয়ে পড়েছিলেন? শরিফুল জানালেন, নার্ভাস হননি। তবে, চিন্তা ছিল কিভাবে রানটা চেক দেয়া যায়। কারণ, আর একটি ছক্কা মারলে তো রান আরও বেশি হয়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে রান তাড়া করা খুব কঠিন হয়ে যেতো। তবে, হ্যাটট্রিক হবে এমন চিন্তা ছিল না।’
ছক্কা খাওয়ার পর তাসকিন এসে কী উপদেশ দিয়েছিলেন? জানতে চাইলে শরিফুল বলেন, ‘তাসকিন ভাই এবং মোসাদ্দেক ভাই, দু’জনই আমাকে বলেছেন সাইড চেঞ্জ করে বল করলে হয়তো ভালো হবে। ব্যাটার মারতে পারবে না। আমি, সেটাই করেছি। উইকেট পেয়েছি।’

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, Bangladesherkhela.com এর দায়ভার নেবে না।