বিকাল ৫:৫৮, শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০১৯ ইং
/ ক্রিকেট

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২-এর বাছাইপর্বে লা‌ওসের বিপক্ষে অংশ নিতে ঢাকা ছাড়ল বাংলাদেশ ফুটবল দল। ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলের বাকি এখনো তিন বছর। কিন্তু বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হচ্ছে ৬ জুন লাওসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। এটি বিশ্বকাপ বাছাইয়ের এশিয়া অঞ্চলের প্রথম পর্বের ম্যাচ। বাংলাদেশ বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে লাওসের ভিয়েনতিয়েন থেকে। ফিরতি ম্যাচটি হবে ১১ জুন ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে।

রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে শুরু করেছিল বাংলাদেশ। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে পিছিয়ে পড়ায় এবার শুরু করতে হচ্ছে আরেক ধাপ নিচ থেকে। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে বাংলাদেশ সুযোগ পাবে পরের রাউন্ডে ওঠার। যেখান থেকে চার বছর আগে বিশ্বকাপ বাছাই শুরু করেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা।

লা‌ওসের সঙ্গে ভাল ফল করার জন্য থাইল্যান্ডে দশ দিনের অনুশীলন ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ ফুটবল দল। সেখানে কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে। আগামী ২৮ মে Air Force United F.C.-র বিপক্ষে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ, ব্যাংককের Air Force Play Ground-এ। এবং ১ জুন BG Pathum United F.C. সঙ্গে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

আগামী ৩ জুন ব্যাংকক থেকে লা‌ওস যাবে জামাল ভুঁইয়ার দল।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশ দল

গোলরক্ষক: আশরাফুল ইসলাম রানা, আনিসুর রহমান জিকো ও মাজহারুল ইসলাম হিমেল।

রক্ষণভাগ: টুটুল হোসেন বাদশা, সুশান্ত ত্রিপুরা, বিশ্বনাথ ঘোষ, ইয়াসিন খান, রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী।

মাঝমাঠ: ইমন মাহমুদ, সোহেল রানা, জামাল ভূঁইয়া, রবিউল হাসান, মাসুক মিয়া জনি, মামুনুল ইসলাম।

আক্রমণভাগ: নাবিব নেওয়াজ জীবন, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, তৌহিদুল আলম সবুজ, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, বিপলু আহমেদ ও আরিফুর রহমান।

কাতারে‌ও ৩২ দলের বিশ্বকাপ

২০২২ সালে কাতার বিশ্বকাপ ৩২ দলের বদলে ৪৮ দলের করার পরিকল্পনা করেছিল ফিফা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন করা গেল না। ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো জানান, কাতার বিশ্বকাপ ৪৮ দলের করা সম্ভব হচ্ছে না, এই বিশ্বকাপে ৩২ দলই খেলতে হবে। এক বার্তায় ফিফা জানিয়েছে, ‘টানা পর্যালোচনা ও আলোচনা করার পর এই সিদ্ধান্তে আসা গেছে বর্তমান পরিস্থিতিতে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না। ৫ জুন ফিফা কংগ্রেসে ৩২ দলের টুর্নামেন্টের প্রস্তাব দেওয়া হবে।’

ইনফান্তিনোর নিজের পরিকল্পনা ছিল ৪৮ দলের বিশ্বকাপ। তবে এই টুর্নামেন্ট ৪৮ দলের করতে হলে কাতারের প্রতিবেশী দেশগুলোর সাহায্য দরকার কিন্তু মাত্র দু’বছর পরিকাঠামো তৈরি করা সম্ভব নয়। দেখা গেছে, কাতার বিশ্বকাপ ৪৮ দলের হলে বাড়তি ৩০০-৪০০ মিলিয়ন ডলার রোজগার করতে পারত। টিভি রাইটসের উপর ফিফার ১২০ মিলিয়ন ডলার বাড়তি রোজগারের সম্ভাবনা ছিল। এছাড়া মার্কেটিং রাইটের জন্য ১৫০ মিলিয়ন ডলার ও টিকিট বিক্রি থেকে ৯০মিলিয়ন ডলার আসার সম্ভাবনা ছিল।

ক্লাব বিশ্বকাপকেও ২৪ দলের করার কথাও ভেবেছিলেন ইনফান্তিনো। কিন্তু ইউরোপের সেরা ক্লাবগুলো তার বিরোধীতা করায় সেটাও সম্ভব হয় নি। ২০২১-এর জুন-জুলাইয়ে হবে এই ক্লাব বিশ্বকাপ।

কঠিণ গ্রুপে বাংলাদেশের কিশোরীরা

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ নারী বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কঠিণ গ্রুপে পড়েছে বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রুপে খেলবে বাংলাদেশের নারীরা। তাদের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, জাপান ও স্বাগতিক থাইল্যান্ড। ‘বি’ গ্রুপে পড়েছে উত্তর কোরিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, চীন ও ভিয়েতনাম।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে হয়েছে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বের ড্র। এই চ্যাম্পিয়নশিপই ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের এশিয়ার বাছাই পর্বের খেলার অংশ।

আগামী বছর ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ অক্টোবর ভারতে অনুষ্ঠিত হবে নারীদের এই বিশ্বকাপ। ভারত বাছাইয়ের প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়লেও এখন স্বাগতিক হিসেবে খেলবে বিশ্বকাপে।

১৫ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্ব থেকে ২টি দল টিকিট পাবে ভারতের বিশ্বকাপে। বাংলাদেশ এশিয়ার সেরা আট থেকে সেরা দুইয়ে জায়গা করে নেয়ার লক্ষ্যে প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছে।

সিটিজেনদের ট্রেবল জয়

ওয়াটফোর্ডকে ৬-০ গোলে বিধ্বস্ত করে ইংলিশ এফএ কাপের শিরোপা জিতলো ম্যানচেস্টোর সিটি। তাতে প্রিমিয়ার লিগ আর কারাবো কাপের পর এই জয়ে প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে এবারের মৌসুমে ঘরোয়া ট্রেবল পূর্ণ হলো সিটিজেনদের। ফাইনালে দুটি করে গোল করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও রাহিম স্টার্লিং।

আরো একটি ইতিহাস গড়লো ম্যানচেস্টার সিটি। প্রিমিয়ার লিগ, কারাবো কাপের পর এবার এফএ কাপের শিরোপাও হাতে উঠলো ভিনসেন্ট কোম্পানি আর তার দলের। পেপ গার্দিওলা দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে যে স্বপ্নযাত্রা শুরু হয়েছে সিটিজেনদের তা যেনো আরো বড় মাত্রা পেলো।

ঘরোয়া নকআউট প্রতিযোগিতা এফএ কাপের ফাইনালের মঞ্চে ম্যাচ শুরুর আগেই উৎসবের শুরু লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে। রেফারির বাঁশির সাথে সাথেই যেনো ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ম্যান সিটির কাছে। ২৬ মিনিটেই ডেভিড সিলভা সিটির হয়ে গোল উৎসবের সুচনা করেন। ব্রাজিলিয়ান তারকা জেসুস ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। তাতে ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে প্রথমার্ধেই জয়ের সুবাস পায় সিটিজেনরা।

কিন্তু ম্যাচের নাটক তখন কেবল শুরু। বিরতির পর কেভিন ডি ব্রুইন, আর জেসুস- পেপ গার্দিওলার দলের জয় নিশ্চিত করেই ফেলেছিলেন। শেষ দশ মিনিটে রাহিম স্টার্লিংয়ের পরপর দু’গোলে এফএ কাপের শিরোপা নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি সর্বাধিক ব্যবধানে এফএ কাপ ফাইনাল জয়ের ১৯০৩ সালের বিউরির গড়া রেকর্ডে ভাগ বসায় ম্যানচেস্টার সিটি।

চেন্নাইয়ের বিপক্ষে আবাহনীর জয়

রোমাঞ্চকর এক জয় ঢাকা আবাহনীর। এই জয়ে এএফসি কাপে প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার স্বপ্ন জিইয়ে রাখলো আকাশী-হলুদ শিবির। অ্যাওয়ে ম্যাচে হারলেও ঘরের মাঠে তারা হারায় চেন্নাইয়ান এফসিকে। আজ বুধবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফিরতি লেগের ম্যাচে ঢাকা আবাহনী ৩-২ গোলে পরাজিত করে চেন্নাইয়ের দলকে। এই জয়ে চার ম্যাচে ঢাকা আবাহনীর পয়েন্ট বেড়ে হল সাত।

স্বপ্ন ছিল নিজেদের মাঠে চেন্নাইন এফসিকে হারিয়ে এএফসি কাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে এগিয়ে থাকার। সেটাই করে দেখালেন বেলফোর্ট, মাসিহ ও মামুনুলরা। নিজেদের মাঠে, আত্মঘাতি গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লেও অ্যাওয়ে ম্যাচে হেরে গেছে সফরকারীরা। এই জয়ে চার ম্যাচে সাত পয়েন্ট ঢাকা আবাহনীর। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট চেন্নাইন এফসির।

গুরুত্বপূর্ণ দু’ফুটবলার তপু বর্মণ ও আতিকুর রহমান ফাহাদ নেই। ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশাও খেলতে পারেননি। ঢাকা আবাহনীকে দেখে বুঝার উপায় ছিল না দলটি চোটজর্জর। পুরো মাঠ জুড়ে খেলেছে তারা। আক্রমণের দিক দিয়েও এগিয়ে ছিলেন নাবীব নেওয়াজ জীবনরা। কিন্তু গোল মিসের মহড়াই দিয়েছে আকাশী-হলুদ শিবির। বার বার আক্রমন করেও গোলের দেখা পাননি জীবন। দলকে গোল এনে দিতে পারেননি নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজোবাও।

তাছাড়া বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে আবাহনীর শুরুটা‌ও ছিল একেবারে ম্যাড় ম্যাড়ে। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে খেলার তেজও বেড়েছে। প্রতিপক্ষের উপর বার বার হানা‌ও দিয়েছে তারা। তবে তুলনামূলক বল পজিশনে পেছনে থেকেও গোলের দেখা পেয়ে যায় চেন্নাইন এফসি। ম্যাচের ছয় মিনিটে বাঁ প্রান্ত দিয়ে কর্ণার কিক নেন ইসাক ভানমালসাওয়া। জটলা তৈরী হয় আবাহনীর গোল সীমানায়। উড়ে আসা বল ঠেকাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন সবাই। সেই ফাকে শট করে গোলকিপার শহিদুল আলম সোহেলকে বোকা বানিয়ে গোল আদায় করে নেন ভিনিথ (১-০)। এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় চেন্নাইয়ের দলটি।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমন পাল্টা আক্রমনে জমে ‌ওঠে খেলা। ৬৪ মিনিটে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়ের সঙ্গে দৌঁড়ে এগিয়ে যান হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড বেলফোর্ট। বক্সের ভেতরে ঢুকেই ডানপায়ে শট করে পরাস্ত করে ম্যাচে ১-১-এ সমতা আনেন তিনি।

এই গোলের ৫ মিনিট পরই ফ্রিকিক থেকে আফগানিস্তানের মাসিহ সাইঘানি গোল করে ২-১ ব্যবধানে আবাহনীকে এগিয়ে দেন। উল্লাসে মেতে উঠে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। কিন্তু তাদের সেই উল্লাস স্থায়ী হয়নি বেশিক্ষণ। ৭৪ মিনিটে আরও এক গোল করে ম্যাচে সমতা আনে চেন্নাইন। জযের অপেক্ষায় থাকা আবাহনীর কাছ থেকে পয়েন্ট ছিনিয়ে নেয় তারা। আকাশী-হলুদল শিবিরের বিপদ সীমানায় জটলা থেকে ইসাক ভানমালসাওয়া ডান পায়ের শটে বল জালে জাড়িয়ে দেন (২-২)।

এরপর আবার‌ও এগিয়ে যায় আবাহনী। এবার নায়ক মামুনুল ইসলাম। ঘরোয়া আসরে নিস্প্রভ সেই মামুনুলই দলকে জয় এনে দিলেন। বক্সের ডান প্রান্ত দিয়ে দুরপাল্লার এক শটে জাল কাঁপান এই মিডফিল্ডার (৩-২)।

গ্রাসরুট ফুটবল ডে’ পালিত

মতিঝিলের বাফুফে ভবনের আর্টিফিসিয়াল টার্ফে অনূর্ধ্ব-১২ কিশোর ও অনূর্ধ্ব-১৩ কিশোরীদের অংশগ্রহণে ‘এএফসি গ্রাসরুট ফুটবল ডে’ পালন করা হয়। ‘এএফসি গ্রাসরুট ফুটবল ডে’ অনুষ্ঠানে ১৫৮ জন কিশোর ও ২৭ জন কিশোরীসহ মোট ১৮৭ জন মিনি ফুটবল খেলায় অংশগ্রহণ করে।

‘এএফসি গ্রাসরুট ফুটবল ডে’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে খেলোয়াড়দের সার্টিফিকেট প্রদান করেন ফিফা কাউন্সিল মেম্বার, এএফসি ও বাফুফে কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং বাফুফে মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাফুফে কার্যনির্বাহী সদস্য ফজলুর রহমান বাবুল, বাফুফে ডেভেলপমেন্ট কমিটির সদস্য খন্দকার রকিবুল ইসলাম ও সদস্য সাইফুর রহমান মনি।

ইপিএলে ম্যানচেস্টার সিটি চ্যাম্পিয়ন

ম্যাঞ্চেস্টার সিটির উৎসবের রাতে নি:স্তব্ধতা আর অন্ধকারে পুরো লিভারপুল। গতকাল রবিবার রাতে এনফিল্ডে উলভসের বিরুদ্ধে ম্যাচের ১৭ মিনিটে সাদিয়ো মানে গোল করে লিভারপুলকে এগিয়ে দেওয়ার পরও আশ্চর্যরকমভাবে উচ্ছ্বাসহীন ছিলেন সমর্থকেরা। কিন্তু ২৭ মিনিটে ম্যান সিটির বিরুদ্ধে ব্রাইটনের গ্লেন মারে গোল করতেই ছবিটা বদলে যায়। যদিও লিভারপুল সমর্থকদের সেই উচ্ছ্বাস এক মিনিটের মধ্যেই থামিয়ে দেন স্যার্জি‌ও অ্যাগুয়েরো। ৩৮ মিনিটে এমরিক ল্যাপোর্তা-র গোলে এগিয়ে যায় ম্যান সিটি। যার অর্থ, ২৯ বছর পরে ইপিএল জেতার যে সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল, তা ধ্বংস হতে চলেছে লিভারপুলের।

ব্রাইটনের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগের দিন পেপ গুয়ার্দিওয়ালা বলেছিলেন, ‘ইপিএল জিততে না পারলে ধ্বংস হয়ে যাবে ম্যান সিটি।’ অ্যাওয়ে ম্যাচে গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা সামলে ম্যান সিটির ফুটবলারেরা শুধু ঘুরে দাঁড়াননি, ৪-১ গোলে ব্রাইটনকে ধ্বংস করে টানা দ্বিতীয়বার ইপিএল জিতলেন। এবারের লড়াইটা আগের চেয়ে আরও কঠিন ছিল। কখনও শীর্ষ স্থান দখল করছে লিভারপুল। কখনও আবার ম্যান সিটি। শেষ ম্যাচ পর্যন্ত রুদ্ধশ্বাস লড়াই। গত মৌসুমে ম্যান সিটি চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ১০০ পয়েন্ট নিয়ে। এবার ৯৮ পয়েন্টে শেষ করল তারা। সেই সঙ্গে স্পর্শ করল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের নজিরও। দশ বছর আগে স্যার আলেক্স ফার্গুসনের কোচিংয়ে টানা তিনবার ইপিএল জিতেছিল ম্যান ইউ। তারপরে কোনও ক্লাবই পরপর দু’মৌসুমও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি।

তবে ম্যান সিটি ২-১ এগিয়ে যাওয়ার পরেও গুয়ার্দিওয়ালার মধ্যে উচ্ছ্বাসের বহিঃপ্রকাশ সেভাবে দেখা যায়নি। তাঁর হয়তো আশঙ্কা ছিল, ঘরের মাঠে আবার গোল করতে পারে ব্রাইটন। কিন্তু ৬৮ মিনিটে ম্যান সিটির হয়ে রিয়াদ মাহরেজ় তৃতীয় গোল করার সঙ্গে সঙ্গেই দু’হাত মুঠো করে লাফিয়ে ওঠেন গুয়ার্দিওয়ালা। ইপিএলের ইতিহাসে তৃতীয় ম্যানেজার হিসেবে টানা দু’বার চ্যাম্পিয়ন করার কীর্তি গড়া তখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। ৭২ মিনিটে ইলখাই গানডুগান চতুর্থ গোল করার পরে আরও একবার উল্লাস লাফিয়ে উঠেলেন গুয়ার্দিওয়ালা।

ইংল্যান্ড ফুটবলের আর এক কিংবদন্তি অ্যালান শিয়েরার ম্যান সিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেন, ‘ম্যান সিটি দুর্দান্ত। টানা দু’বার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য অভিনন্দন। খেতাব ধরে রাখার অসাধারণ প্রয়াসকে আমার কুর্নিশ।’ শিয়েরার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন লিভারপুলেরও। তিনি লিখেছেন, ‘অসাধারণ খেলেছে লিভারপুলও। সব এখনও শেষ হয়ে যায়নি। সামনেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনাল।’

৩৮ ম্যাচে ৯৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করল লিভারপুল। ঘরের মাঠে উলভসদের ২-০ গোলে পরাজিত করে ‘অল রেড’রা। দুটি গোলই করেন সাদি‌ও মানে। কিন্তু ততক্ষণে খেতাবের ভাগ্য চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। মাত্র এক পয়েন্টর জন্য লিগ হাতছাড়া করার যন্ত্রণা নিয়েই মাঠ ছাড়লেন সালাহরা।

চেলসিতে আর‌ও দুইবছর লুইজ

চেলসির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ দুই বছর বাড়িয়েছেন ব্রাজিলের ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজ। নতুন চুক্তি অনুযায়ী ২০২১ সাল পর্যন্ত ইংলিশ ক্লাবটিতে থাকবেন এই ফুটবলার।

গতকাল শুক্রবার চুক্তি বাড়ানোর কথা জানায় চেলসি। চলতি মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ক্লাবের হয়ে ৪৮টি ম্যাচে মাঠে নেমেছেন ৩২ বছর বয়সী লুইজ। চেলসির ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সেরা চারে থাকা এবং ইউরোপা লিগের ফাইনালে ওঠায় অবদান রাখেন তিনি। নতুন চুক্তির পর লুইজ জানান, ‘এখানে থেকে এবং আরও কিছুদিন থাকার সুযোগ পেয়ে আমি খুব খুশি। আমি এই ক্লাবকে ভালোবাসি এবং এখনও আমার একজন তরুণ খেলোয়াড়ের মতো উচ্চাকাঙ্ক্ষা আছে।’

তিনি আর‌ও বলেন, ‘আরেকটা ইউরোপিয়ান ফাইনালে পৌঁছানোটা খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং চলতি মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সেরা তিনে থেকে শেষ করার সুযোগ এখনও আমাদের রয়েছে। দলকে সাহায্য করতে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা আমি চালিয়ে যাব।’

প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে টটেনহ্যাম

লুকাস ম’রার হ্যাটট্রিকে আয়াক্স রূপকথা থামিয়ে দিয়ে প্রথমবারের মত উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠলো টটেনহ্যাম হটস্পার। প্রথম লেগে ঘরের মাটিতে ১-০ গোলের হারের পরও আয়াক্সের মাঠে ফিরতি লেগটি তারা জিতেছে ৩-২ ব্যবধানে। তাতে বেশি অ্যাওয়ে গোল করার সুবাদে অল ইংলিশ ফাইনালে লিভারপুলের সঙ্গী হলো টটেনহ্যাম।

দু’দলই রূপকথারর মত মৌসুম কাটাচ্ছে এবার। স্বপ্নের ফাইনালে খেলতে যাওয়ার পথে সেমিফাইনালের প্রথম লেগটাও যেনো স্বপ্নের মতই কেটেছে ডাচ ক্লাব আয়াক্স আমস্টারডামের। ঘরের মাঠে ফিরতি লেগে তাই একটু এগিয়েই ছিল তারা। তবে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যামও এবার ফাইনালেই চোখ দিয়ে রেখেছে। হ্যারি কেনবিহীন দলটি বলের দখল আর আক্রমণে শুরু থেকেই ছিল নিয়ন্ত্রণের আসনে।
অবশ্য ৫ মিনিটের মধ্যেই গোল করে ১৯৯৫-র পর আয়াক্সের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল করেন ডি লাইট। ৩৫ মিনিটে হাকিম জিয়েচের গোলে ফাইনালের টিকিট প্রায় নিশ্চিত করেই ফেলেছিলো ডাচরা।

কিন্তু ম্যাচের চমক তখনও বাকি। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হতেই যেনো আরো পরিণত স্পাররা। ৫৫ মিনিটে তাদের স্বপ্নকে আবারো জাগিয়ে তোলেন লুকাস ম’রা। চার মিনিট পর তিনিই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। তাতে ম্যাচে সমতা আসলেও দুই লেগ মিলে তখনও এক গোলে এগিয়ে আয়াক্স।

ওই ব্যবধানেই ফাইনালের স্বপ্নে যখন বিভোর গ্যালারির ৫৫ হাজার দর্শক, তখনই পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়ান লুকাস ম’রা। ইনজুরি সময়ের শেষ বাঁশি বাজার কয়েক সেকেন্ড বাকি থাকতেই নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করে নেন তিনি। সাথে সাথেই প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে উঠে যায় পচেত্তিনোর দল।

গেলো কয়েক বছর ধারাবাহিক দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের ফল পেলো টটেনহ্যাম। আর রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসের মত শক্তিশালী দলগুলোকে বিদায় করে সেমিতে উঠলেও শেষ পর্যন্ত ফাইনাল দেখা হলো না আয়াক্সের। আগামী পহেলা জুন অল ইংলিশ ফাইনালে টটেনহ্যামের অপেক্ষায় লিভারপুল।

আইএসপি’র সাথে বাফুফের চুক্তি

ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস পার্টনারের সাথে পাঁচ বছরের জন্য স্পন্সরশীপ চুক্তি করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। বিকেলে বাফুফে ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি অনুযায়ী আগামী পাঁচ বছর ঘরোরা সব লিগ এবং টুর্নামেন্টে স্পন্সর এনে দেবে আইএসপি।

চলতি মৌসুমে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের টাইটেল স্পন্সর হচ্ছে টিভিএস অটো। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, আইএসপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট দীপক সিং, টিভিএস অটো বাংলাদেশের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক একরাম হোসেন, এবং ব্রডকাস্ট পার্টনার বাংলা টিভির ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ সামাদুল হক সহ অন্যান্যরা।

বার্সেলোনার বিদায়

ইতিহাসের অন্যতম নাটকীয়তার জন্ম দিয়ে, বার্সেলোনাকে বিদায় করে টানা দ্বিতীয়বারের মত উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠলো লিভারপুল। প্রথম লেগে ৩-০ গোলে পিছিয়ে থাকলোও ঘরের মাঠে, ফিরতি লেগে ‘অল রেড’রা জিতেছে ৪-০ গোলে। দুটি করে গোল করেছেন ডিভোক ওরিজি ও উইজন্যাল্ডাম।

অবিস্মরণীয়,ইতিহাসের অন্যতম সেরা ম্যাচ জিতে টানা দ্বিতীয়বারের মত উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার পর লিভারপুলের উচ্ছ্বাস তো এমনই হওয়ার কথা।

অ্যানফিল্ড যেন এক মায়াপুরীর নাম। লিভারপুলের ঘরের এই মাঠে বিশ্বের নামিদামি সব ক্লাবকেই হোঁচট খেতে হয়েছে। তাই চার মৌসুম পর আবারো ফাইনালের টিকিট পেতে প্রথম লেগেই কাজটা বেশ এগিয়ে রেখেছিলো বার্সেলোনা। ইনজুরির কারণে সালাহ আর ফিরমিনো না থাকায় দুর্বল দল নিয়েই মাঠে নামে লিভারপুল। তারপরও এই লাল সমুদ্রের সামনে যেনো অসহায় মেসি-সুয়ারেজ-কুটিনহোরা। মাত্র ৭ মিনিটেই ঘরের সমর্থকদের আনন্দে মাতিয়ে তোলেন ডিভোক ওরিজি। প্রথমার্ধে আর গোল না পেলেও শাকিরি-মানে-ওরিজিদের শরীরি ভাষাই যেনো বলে দিচ্ছিলো, অসম্ভব কিছু করার সামর্থ্য তাদের আছে।

বিরতির পর মাঠে নেমে চমক দেখান উইজন্যাল্ডাম। ৫৪ আর ৫৬ মিনিটে তারই দুই গোলে বার্সেলোনার ফাইনাল স্বপ্ন ফিকে হয়ে যায়।
এরপর দু’দল সমানে সমান। সেরার লড়াইয়ে নাম লেখাতে চাই কেবল একটি গোল। মেসি আর সুয়ারেজকে হতাশায় ডোবান ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক অ্যালিসন; তবে ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে ইতিহাসের সেরা নাটকে বিজয়ী করেন ওরিজি। অ্যানফিল্ডে এ পর্যন্ত মঞ্চস্থ হয়েছে অনেক নাটক। কিন্তু ৭৯ মিনিটে ওরিজির গোলটি সেরার সেরা হওয়ার দাবি রাখে।

তবে ফাইনালে প্রতিপক্ষের নাম জানতে লিভারপুলকে অপেক্ষায় থাকতে হবে আয়াক্স-টটেনহ্যাম ম্যাচের জন্য।

এবার‌ও ভারতে খেলবেন সাবিনা

বিদেশি কোটায় ইন্ডিয়ান উইমেন্স লিগের বড় ক্লাব গোকুলাম কেরালা এফসিতে খেলতে ভারত যাচ্ছেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।

ক্লাবটির সঙ্গে সাবিনার চুক্তি এক মাসের। ১২ দলের অংশগ্রহণে এই লিগ শেষ হবে আগামী ২২ মে। গতবার প্রথমবারের মতো ইন্ডিয়ান উইমেন্স লিগে অংশ নিয়েই আলো ছড়িয়েছিলেন সাতক্ষীরার মেয়ে সাবিনা। সাত গোল করে সিথু এফসিকে সেমিফাইনালে তুলতে বড় ভূমিকা রাখেন তিনি। তারই পুরস্কার হিসেবে এইবার‌ও ভারতীয় দলের কাছ থেকে ডাক পেলেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক।

এমন গোল আর‌ও করতে চাই: মনিকা চাকমা

গত ৩০ এপ্রিল বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে এক গোল করে তাঁক লাগিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ দলের মিডফিল্ডার মনিকা চাকমা। বাংলাদেশের এক মেয়ের পায়ে দারুণ এই গোলটি ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। শেষ পর্যন্ত এক বাংলাদেশির বদৌলতে ‘ফ্যানস ফেবারিট’-এর সৌজন্যে গোলটি পৌঁছে গেছে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার কাছে। শুধু তা-ই নয়, এবারের সপ্তাহে ‘ফ্যানস ফেবারিট’ নামের ফিফার ক্যাটাগরিতে প্রকাশ পাওয়া পাঁচটি সেরা ঘটনার একটি বাংলাদেশের মেয়ের গোল। ফিফা মনিকাকে উপাধি দিয়েছে ‘ম্যাজিকাল চাকমা’ বলে। গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মনিকা কথা বলেছন সেই গোল আর তার পারফরম্যান্সের কথা।

প্রশ্ন : মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে করা আপনার গোলটি নিয়ে তো বেশ মাতামাতি হচ্ছে, ফিফার ফ্যানস ফেভারিটেও জায়গা করে নিয়েছে সেটি?

মনিকা চাকমা : আমি শুনেছি এটা, শুনে খুব ভালো লেগেছে। ফিফা তো ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা। সেখানে আমার গোল পৌঁছে গেছে জেনে আসলেই খুব ভালো লেগেছে। আমার জন্য এটা অন্য রকম এক পাওয়া।

প্রশ্ন : ভলিতে এমন নিখুঁত গোলটা কিভাবে হলো, অনুশীলন করেছিলেন?

মনিকা : অনুশীলনে এভাবে আসলে গোল হয় না। আমাদের মূল অনুশীলন সেশনের পর কোচ ১০ মিনিট অতিরিক্ত সময় দেন ডেড বল অনুশীলনের জন্য। কিন্তু সেখানে তো আসলে এ রকম পরিস্থিতি তৈরি করা সম্ভব না। আসলে ম্যাচেও আমি ভাবিনি যে ওটা গোল হয়ে যাবে, আমি শুধু পোস্টে রাখতে চেয়েছিলাম।

প্রশ্ন : আপনার গোলগুলোর মধ্যে এটাই কি সেরা?

মনিকা : আমার মনে হয় না এর আগে এর চেয়ে ভালো গোল আমি করেছি। মিয়ানমারে অনূর্ধ্ব-১৬ খেলতে গিয়ে কর্নার থেকে সরাসরি গোল করেছি। অনেককে দিয়ে গোল করিয়েছিও। তবে আমার করা এটাই সেরা গোল। সব সময়ই এমন গোল করতে চাই।

প্রশ্ন : আপনি তো মিডফিল্ডে খেলেন, সব সময়ই কি এই গোলের চেষ্টাটা থাকে?

মনিকা : আমি খেলি হোল্ডিং পজিশনে। মারিয়া খেলে আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার হিসেবে। তবে আমি আর মারিয়া জায়গা বদল করে খেলি প্রায়ই। তো যখন ওপরে যাই ওই সময়টুকুই চেষ্টা করি কাজে লাগাতে। তখনই গোলের চেষ্টাটা থাকে।

প্রশ্ন : হোল্ডিং পজিশন না আক্রমণই আপনার বেশি পছন্দ?

মনিকা : হোল্ডিংয়ে খেলতে ভালো লাগে। কোচ আমার জন্য যেটা ভালো হয় সেটাই খেলতে বলেন।

প্রশ্ন : ফাইনালটা খেলতে না পারার আফসোস নিশ্চয় আছে?

মনিকা : হ্যাঁ, আমরা ফাইনালটা জিতেই চ্যাম্পিয়ন ট্রফিটা নিতে চেয়েছিলাম।

রিয়ালের জয়ে মারিয়ানোর জোড়া গোল

ঘরের ছেলে মারিয়ানো ডিয়াজের জোড়া গোলে দারুণ এক জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। রোববার রাতে ভিয়ারিয়ালকে ৩-২ গোলে পরাজিত করেছে লা ব্লাঙ্কোরা। আর রিয়ালের যুব একাডেমি থেকে আসা ফরোয়ার্ড মারিয়ানো ডিয়াজ একাই করেছেন দুই গোল।

২০১৬-১৭ মৌসুমে যুব একাডেমি কাস্তিয়া থেকে মূল দলে অভিষেক মারিয়ানোর। কিন্তু জিনেদিন জিদান ভরসা না পাওয়ায় ২০১৭ সালে তাকে লিওঁর কাছে বিক্রি করে দেয় রিয়াল। সেখানে ১৯ ম্যাচে ১৮ গোল করার পর মারিয়ানোকে পরের মৌসুমে আবারও ফেরত আনে দলটি।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বিখ্যাত ‘৭’নম্বর জার্সির মালিক এখন মারিয়ানো। কিন্তু নিয়মিত একাদশে সুযোগ না পেয়ে হতাশা কেবলই বাড়ছিল। আর কোচ হিসেবে জিদান ফিরে আসায় মারিয়ানোর শেষ দেখছিল স্প্যানিশ মিডিয়াগুলো। তবে অনুশীলনে কঠোর পরিশ্রম করে জিদানের নজর কাড়েন। তাই ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে প্রথম সুযোগেই মারিয়ানোকে নামিয়ে দেন রিয়াল কোচ। ম্যাচের মাত্র দ্বিতীয় মিনিটে গোল করে আস্থার প্রতিদান দেন এই ফরোয়ার্ড।

৪৯ মিনিটে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন মারিয়ানো। রিয়াল তখন এগিয়ে ২-১ গোলে। লা ব্লাঙ্কোদের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি জেসাস ভাল্লেহোর। মাঝখানে ভিয়ারিয়ালের হয়ে ১১ মিনিটে অবশ্য এক গোল শোধ দিয়েছিলেন জেরার্ড মোরেনো।

শেষে ৯০ মিনিটে জেমস কস্তার গোলে রিয়ালের মাঠে তাদেরই রুখে দেয়ার শঙ্কা জাগিয়েছিল ভিয়ারিয়াল। তবে শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। ৪৯ মিনিটে মারিয়ানোর গোলটিই আদতে জয় পেতে সাহায্য করেছে রিয়ালকে।

চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার হার

লিগ শিরোপা আগেই নিশ্চিত হয়েছিল। প্রথা অনুযায়ী বার্সেলোনাকে গার্ড অফ অনার‌ও দেয় সেল্টা ভিগো। কিন্তু মাঠের খেলায় আর পেরে ‌ওঠে নি আর্নেস্টো ভালভার্দের দল। স্প্যানিশ লা লিগায় সেল্টা ভিগোর কাছে ২-০ গোলে হেরে গেছে বার্সেলোনা।

ম্যাচ শুরু হতেই বলের দখলে বেশ এগিয়ে থাকা ক্যাটালানদের আক্রমণে আক্রমণে নাজেহাল করে তোলে স্বাগতিকরা। মেসি-সুয়ারেজ-কুটিনহোবিহীন বার্সার বিপক্ষে অবশ্য প্রথমার্ধে তেমন সুবিধা করতে পারেনি তারা। তবে ৬৭ মিনিটে ম্যাক্সি গোমেজ এগিয়ে দেন সেল্টাকে।

ম্যাচের দু মিনিট বাকি থাকতে অধিনায়ক ইয়াগো আসপাস পেনাল্টি থেকে সেল্টা ভিগোর ২-০ গোলের জয় নিশ্চিত করেন। তাতে নভেম্বরের পর লা লিগায় প্রথম হারের স্বাদ পেতে হলো কাতালান দলটিকে। তবে এর চেয়ে বড় দুঃসংবাদ হয়ে এসেছে স্ট্রাইকার ওসমান ডেম্বেলের ইনজুরি। আগামী সপ্তাহে লিভারপুলের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল মিস করবেন এই ফরাসী তারকা।

শিরোপায় চোখ লিভারপুলের

নাটকীয় এক জয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শিরোপা জয়ের আশা টিকে রইল লিভারপুলের। গতকাল শনিবার রাতে নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে ৩-২ গোলে পরাজিত করে ‘অল রেড’রা।

নিউক্যাসলের মাঠে ম্যাচে ১৩ মিনিটেই ভ্যান-ডাইকের গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। তবে সাত মিনিটের মধ্যে ম্যাচে সমতা ফেরান আফসু। ২৮ মিনিটে মোহাম্মদ সালাহ অতিথিদের আবারো এগিয়ে দেন। বিরতির পর স্যালোমোন রন্ডন আবারো স্বাগতিকদের সমতায় ফেরালে শিরোপা স্বপ্নে বড় হোঁচট লাগে অল রেডদের। তবে ম্যাচ শেষের চার মিনিট আগে, ডিভোক ওরিজির গোলে জয় নিশ্চিত হয় তাদের।

তাতে এক ম্যাচ বাকি থাকতে ৯৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠলেও ম্যানচেস্টার সিটির বাকি আছে দুটি ম্যাচ। তাই স্বস্তিতে থাকার সুযোগ নেই ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের।

বাংলাদেশ-লা‌ওস যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন

অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়ে শেষ মুহুর্তেই বাতিল করা হলো বঙ্গমাতা অনুর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক ফুটবলের ফাইনাল ম্যাচ। শিরোপা লড়াইয়ে স্বাগতিকদের প্রতিপক্ষ ছিল লাওস। ফাইনালে শেষে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণের কথা‌ও ছিল।

খেলা শুরুর নির্ধারিত সময়ের (সন্ধ্যা ছয়টা) ১৫ মিনিট পরে প্রেসবক্সে আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী সংবাদ সম্মেলনে জানান, ফাইনাল বাতিল এবং দু’দল যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন। প্রাইজমনির অর্থ (চাম্পিয়ন ২৫ হাজার ও রানার্স-আপ ১৫ হাজার ডলার) দু’দলকে সমান ভাগ করে দেয়া হবে। মাঠ খেলার উপয়োগী থকলেও, দেশের অন্যত্র ঘুর্নিঝড়ের ব্যাপকতার কারণেই ফাইনাল বাতিল বলে জানান তিনি। চ্যাম্পিয়ন ট্রফি লাওসকে প্রদান করা হবে। এ ঘটনায় টুনামেন্টর আয়োজন প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে থাকলেও তা মানতে নারাজ মুর্শেদী। তিনি জানান তারা শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করে ম্যাচ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেন। অনিশ্চয়তা সত্বেও মাঠে উপস্থিত ছিলেন প্রচুর দর্শক। তাদের অবস্থা বিবেচনায় এনে প্রদর্শিত টিকিটের মূল্য বাফুফে অফিস থেকে নিতে পারবেন দর্শকরা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত টুর্নামেন্টের স্বত্ব লাভকারী প্রতিষ্টান কে স্পোর্টসের সিইও ফাহাদ করিম জানান, তিনি অন্যান্য স্টেক হোল্ডার ও পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে আলেচনা করেছেন, সকলেই একমত হয়েছেন ফাইনাল বাতিলের বিষয়ে। ভবিষ্যতে এ ধরনের আয়োজনে তারা আরও সতর্ক হবেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত লাওসের ম্যানেজার জানান, ফাইনাল না হওয়ায় তারা হতাশ হলেও (মাঠ সম্পূর্নরূপে খেলার উপযোগী ছিল বলে তার মন্তব্য) তারা আয়োজকদের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান দেখাবেন।

গত এক সপ্তাহ ধরেই দেশজুড়ে আলোচনায় ঘুর্নিঝড় ’ফণি’। ইতিমধ্যে দেশজুড়ে নেয়া হয়েছে বিভিন্ন সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। এমনকি আগামীকাল শনিবারের নির্ধারিত এইচএসসি পরীক্ষাও বাতিল করা হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকেল থেকেই (ম্যাচ শুরুর দু’ঘন্টা পূর্বে) সর্বত্র ফিসফাস খেলা বাতিল হচ্ছে বলে। বিকেল পাঁচটার দিকে রাষ্ট্রপতির নিরাপত্তার জন্য কড়াকড়ি অবস্থা শিথিল করা হলে বিষয়টা আরো ঘনীভুত হয়। এমনকি দু’দলের খেলোয়ড়রা মাঠে এলেও অনুশীলনে অংশ নেয়নি। এরপর মাঠের বলবয়রাও স্থান ত্যাগ করে। তবে ম্যাচের রেফারী ও মাচ কমিশনার হংকংয়ের চান কা চুং মাঠ পরিদর্শনে আসেননি। বৃষ্টি মাথায় নিয়ে খেলা দেখতে আসা দর্শকরা হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের ফাইনাল কাল

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ ফুটবলের শিরোপা জিতে প্রথম আসরকে স্মরণীয় করে রাখতে চায় বাংলাদেশ। লাওসের বিপক্ষে ফাইনাল কঠিন হলেও মাঠে নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলে জয় সম্ভব বলে মনে করে স্বাগতিকরা। তবে বাংলাদেশকে সমীহ করলেও শিরোপা জিততে মুখিয়ে আছে লাওস। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আগামীকাল সন্ধ্যা ছয়টায় মাঠে নামবে দু’দল।

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের শিরোপা জিতে ইতিহাস গড়ার খুব কাছে এখন বাংলাদেশের কিশোরীরা। দরকার, আর একটা জয়। প্রতিযোগিতার ফাইনালে লাওসকে হারাতে পারলেই বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের প্রথম আসরের শিরোপা নিজেদের করে নেবে লাল-সবুজের দল। কাজটা কঠিন, তবে অসম্ভব কিছু নয়। দলের অধিনায়ক মিশরাত জাহান মৌসুমী জানান, ‘আমি মাঠে অধিনায়ক ঠিক; কিন্তু আমি অন্যদের মতো দলের একজন সদস্য। আমরা একটি দল হয়ে মাঠে খেলতে চাই। বঙ্গমাতার নামের টুর্নামেন্ট আমরা জিততে চাই। ট্রফি আমাদের কাছেই রেখে দিতে চাই। ফাইনাল ছিল আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য। সেটা পূরণ হয়েছে। এখন আমাদের লক্ষ্য ট্রফি।’

প্রতিপক্ষ লাওস ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও তিন ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে গোল দিয়েছে ১৮টি। আর বাংলাদেশ দিয়েছে সাত গোল। কিন্তু ফাইনালে প্রপিক্ষকে কোন রকম ছাড় দিতে নারাজ স্বাগতিকরা। সংবাদ সম্মেলনে কোচ জানান, শিরোপা জয়ে তার দলই ফেভারিট। গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, আমাদের মেয়েরা এই টুর্নামেন্টে অনেক ভাল খেলেছে। শুধু কাঙ্খিত গোলের দেখা পায়নি তারা। আমাদের দল যেভাবে খেলেছে তাতে আরো বেশি গোল পা‌ওয়ার কথা ছিল। আশা করি ফাইনালে আগের ভুলগুলি আর করবে না তারা।’

এদিকে, শিরোপা জয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখলেও, ফাইনালে সেরা খেলা দিয়েই চ্যাম্পিয়ন হতে চায় লাওস। এমনটাই জানান দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের শিরোপা যারাই জিতুক না কেন, ফাইনালে একটা দারুণ লড়াই দেখার অপেক্ষায় ফুটবলভক্তরা।

ফাইনালের পথে বার্সেলোনা

লিওনেল মেসির জোড়া গোলে লিভারপুলকে উড়িয়ে দিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেলো বার্সেলোনা। ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে, সেমিফাইনালের প্রথম লেগে ইংলিশ ক্লাবটিকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করে কাতালানরা। সেই সাথে, ক্লাব ফুটবলে ৬০০ তম গোলের দেখা পেলেন মেসি।

ফাইনালের আগেই ফাইনালের উত্তাপ। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে গেলো বছরের ফাইনালিস্ট লিভারপুলের মুখোমুখি লিওনেল মেসির বার্সেলোনা। ন্যু ক্যাম্পে, তাই চার বছর পর ফাইনালের স্বপ্ন আটানব্বই হাজার দর্শকের চোখে। কিন্তু ইয়ুর্গেন ক্লপের দল তো আর ছেড়ে কথা বলার নয়। বলের দখলে সমানে সমান লড়াই দু’দলের। ২৬ মিনিটেই অ্যালিসনকে বোকা বানিয়ে ঘরের দর্শকদের আনন্দে মাতান লিভারপুলের সাবেক তারকা লুইস সুয়ারেজ।

প্রথমার্ধে না পারলেও ৭৫ মিনিটে সুয়ারেজে শট ক্রসবারে লেগে ফিরে এলেও ফিরতি বল ঠিকই জালে জড়ান আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি।

সাত মিনিট পরই দারুণ এক মাইলফলকে পৌঁছান পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। দুর্দান্ত এক গোলে নিজের ক্লাব ক্যারিয়ারের ৬০০ তম গোলটির দেখা পান তিনি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো একই মাইলফলকে পৌঁছানোর এক সপ্তাহেরও কম সময়ের ব্যবধানে এই উচ্চতায় উঠলেন মেসি।

তাতে আগামী সপ্তাহে এনফিল্ডে ফিরতি লেগের আগে ফাইনালের পথটা অনেকটাই পরিষ্কার করে রাখলো আর্নেস্তা ভালভার্দের শিষ্যরা।

দারুণ জয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

কবিরুল ইসলাম
মঙ্গোলিয়ার বিরুদ্ধে দারুণ এক জয় দিয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের ফাইনালে জায়গা উঠেছে বাংলাদেশ। আজ মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে, ৩-০ গোলের জয় পায় লাল-সবুজের দল। স্বাগতিকদের হয়ে একটি করে গোল করেন মনিকা চাকমা, মার্জিয়া ও তহুরা খাতুন। আগামী ৩ মে একই ভেন্যুতে লাওসের বিরুদ্ধে শিরোপা লড়াইয়ে নামবে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। তবে ম্যাচ জিতলে‌ও আগের মতোই ছিল ফিনিসিংয়ের অভাব। নয়তো ব্যবধান আরও বড় হতে পারতো।

এ ম্যাচে দু’টি পরিবর্তন ছিল বাংলাদেশের একাদশে। ইনজুরির কারনে গ্রুপ পর্বের দুই ম্যাচের স্কোরার কৃষ্ণা রানী সরকার ও সিরাত জাহান স্বপ্না সেমিফাইনালে খেলতে পারেননি। তাদের পরিবর্তে একাদশে জায়গা করে নেন মিডফিল্ডার মার্জিয়া ও ফরোয়ার্ড সাজেদা খাতুন। শুরুতেই ছিল আক্রমন। ২৪ সেকেন্ডেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ নষ্ট করেন সাজেদা খাতুন। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক সেনজাভকে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি কৃষ্ণার পরিবর্তে মাঠে নামা এই ফরোয়ার্ড। পরের মিনিটেই আঁখি খাতুনের লম্বা পাস ধরে আবারও গোলরক্ষককে একা পেয়ে গিয়েগিছিলেন সাজেদা। কিন্তু এবারও সুযোগটা কাজে লাগাতে ব্যর্থ তিনি। গোল মিসের মহড়ায় এরপর নাম লেখান সানজিদা। ১৬ মিনিটে ভাগ্য সহায় না থাকায় এগিয়ে যাওয়া হয়নি স্বাগতিকদের। মঙ্গোলিয়ার গোলরক্ষক সেনজাভের কাছ থেকে পাওয়া বল ধরে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডি বক্সের ঠিক বাইরে থেকে গোল মুখে জোড়ালো শট নেন সানজিদা। সাইডবারে লেগে ফিরে আসে বল।

অবশেষে প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে কাঙ্খিত সেই গোলের দেখা পায় বাংলাদেশ। সাজেদার পাসে পাওয়া বলে হেড নিয়ে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে মনিকা চাকমা বাঁ-পায়ের দূর্দান্ত এক শটে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে নিশানা ভেদ করেন (১-০)। উৎসবে মেতে উঠেন হাজার সাতেক সমর্থক। আনন্দের বন্যা বইয়ে যায় লাল-সবুজ শিবিরে। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমে আগের সেই ধারা ধরে রেখেই খেলা শুরু করে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। প্রথমার্ধে একাধিকবার গোলের সুযোগ মিস করা সাজেদা খাতুনকে তুলে নিয়ে তহুরা খাতুনকে মাঠে নামান কোচ। আক্রমনের ধারটাও যেনো বেড়ে গিয়েছিল। মুহুর্মুহু আক্রমনে কোনঠাসা করে ফেলেছিল মঙ্গোলিয়াকে। কিন্তু ফিনিসিংয়ের অভাব ছিল আগের মতোই। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে মারিয়া মান্ডার জোড়ালো শট গোলরক্ষক সেনজাভের হাতে লেগে বাইরে চলে যাওয়ায় হতাশার গল্পটা আরও একটু দীর্ঘায়িত হয়। বারবার সুযোগ হাতছাড়া হলেও ৬৯ মিনিটে ভুল করেননি স্বপ্নার পরিবর্তে একাদশে ঠাঁই পাওয়া মার্জিয়া। প্রথম গোলদাতা মনিকা চাকমার ছোট পাস ধরে ডান পায়ের দারুণ শটে গোল ব্যবধান দ্বিগুন করেন তিনি (২-০)।

ম্যাচ শেষ হওয়ার পাঁচ মিনিট আগে গোলের গ্রাফটা আরও একধাপ উপরে নিয়ে যান বদলী হিসেবে মাঠে নামা তহুরা খাতুন (৩-০)। অবশেষে ৩-০ গোলের জয়ে ফাইনালে পৌছে যায় লাল-সবুজের বাংলাদেশ। যেখানে শিরোপা লড়াইয়ে তাদের অপেক্ষায় লা‌ওস।

বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন

লেভান্তেকে একমাত্র গোলে হারিয়ে স্প্যানিশ লা লিগে তিন ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা জিতল বার্সেলোনা। জিতলেই শিরোপা। এমন সমীকরণ সামনে রেখে খেলতে নামা বার্সেলোনা একচেটিয়া চাপ ধরে রেখেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না। বদলি নেমে পার্থক্য গড়ে দেন লিওনেল মেসি। অধিনায়কের গোলে লেভান্তেকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হলো কাতালানরা।

ন্যু ক্যাম্পে শনিবার রাতে ১-০ গোলে জিতে তিন ম্যাচ হাতে রেখে শিরোপা জয় নিশ্চিত করে আর্নেস্টো ভালভারদের দল। ডিসেম্বরে লিগে প্রথম দেখায় মেসির হ্যাটট্রিকে লেভান্তের মাঠে ৫-০ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। এই নিয়ে টানা দ্বিতীয় ও শেষ ১১ মৌসুমে অষ্টমবারের মতো লা লিগার শিরোপা জিতলো বার্সা। স্পেনের শীর্ষে লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬ বার চ্যাম্পিয়ন হলো তারা।

ম্যাচের শুরু থেকে অতিথিদের রক্ষণে প্রবল চাপ তৈরি করা বার্সেলোনা প্রথম পাঁচ মিনিটে দুবার এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল। দ্বিতীয় মিনিটে কাছ থেকে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন সুয়ারেজ। খানিক পর দুজনের মধ্যে দিয়ে এগিয়ে ২৫ গজ দূর থেকে ফিলিপে কুতিনহোর শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক।

বিরতির আগে পোস্ট বরাবর আরও পাঁচটি শট নেয় স্বাগতিকরা। কিন্তু সাফল্যের দেখা মেলেনি। এর মধ্যে ৪১ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কুতিনহোর ফ্রি-কিক ক্রসবারে লাগলে গোল বঞ্চিত হয় বার্সেলোনা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই কুতিনহোকে তুলে নিয়ে মেসিকে নামান কোচ। ৬২ মিনিটে দলকে কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দেন অধিনায়ক। জটলার মধ্যে আর্তুরো ভিদালের ছোট পাস পেয়ে প্রথম টোকায় একজনকে কাটিয়ে বাঁ পায়ের শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন আর্জেন্টাইন তারকা। এবারের লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতা মেসির মোট গোল হলো ৩৪টি। লা লিগায় বদলি খেলোয়াড় হিসেবে এটা তার ২৪তম গোল, একবিংশ শতাব্দীতে এটাই বদলি হিসেবে নামা কোনো খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ গোল।

পাঁচ মিনিট পর নিজেদের ভুলে গোল খেতে বসেছিল বার্সেলোনা। ডিফেন্ডারদের পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া লুইস মোরালেস গোলরক্ষককে একা পেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার উড়িয়ে মারলে বেঁচে যায় শিরোপাধারীরা। শেষ দিকে ভালো দুটি সুযোগ পেয়েছিল লেভান্তে। কিন্তু গোলরক্ষক টের স্টেগেনকে পরাস্ত করতে পারেনি তারা। পাশাপাশি এনিস বার্ধির একটি শট বাধা পায় পোস্টে। যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ নষ্ট করেন লুইস সুয়ারেস। তবে তাতে তাদের শিরোপা জয় আটকায়নি।

৩৫ ম্যাচে ২৫ জয় ও আট ড্রয়ে চ্যাম্পিয়নদের পয়েন্ট হলো ৮৩। দিনের আরেক ম্যাচে রিয়াল ভাইয়াদলিদকে ১-০ গোলে হারানো আতলেতিকো মাদ্রিদ ৯ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৬৫।

গ্রুপ সেরা হয়েই সেমিতে বাংলাদেশ

বি গ্রুপের শেষ ম্যাচে কিরগিজস্তানকে ২-১ গোলে হারিয়ে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে উঠেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে, আরো জয় পেতে পারত লাল-সবুজের কিশোরীরা। কিন্তু ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতার পাশাপাশি কিরগিজ গোলকিপারের দৃঢ়তায় বড় জয় পা‌ওয়া হয়নি বাংলাদেশের।

ম্যাচের ৩০ সেকেন্ড গোল করে এগিয়ে যায় আগ্রাসী বাংলাদেশ। কৃষ্ণার শট প্রতিপক্ষর গোলরক্ষক ঠিকমত ধরতে না পারায় সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন সানজিদা আক্তার। ১-০ তে লিড নেয় বাংলাদেশ। আনন্দে নেচে ওঠে গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

এরপর একের পর এক আক্রামনে প্রতিপক্ষকে ব্যাস্ত রাখে স্বপ্না, কৃষ্ণা ও মৌসুমীরা। আরব আমিরাতের ম্যাচের মত এবারো ফিনিসিংটা ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। ৩৫ মিনিটে মরাজিয়ার শটটি বারে লেগে ফিরে না আসলে হয়তো ব্যবধানটা দ্বিগুন করতে পারতো তখনই। বিরতির শেষ দিকে মারজিয়ার আরেকটি শট অল্পের জন্য মিস হয়। ১-০ তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে আবারো ফিনিসিংয়ে ব্যর্থ স্বাগতিকরা। একের পর এক আক্রমন ভাঙ্গতে পারেনি কিরগিজস্তানের ডিফেন্স। বেশ কয়টি সহজ সুযোগ পেয়েও খেই হারায় গোলাম রাব্বানীর শিষ্যরা। অবশেষে ৬০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের রাতের আকাশ আলোকিত করে তোলেন স্ট্রাইকার কৃষ্ণা রানি সরকার। সানজিদা খাতুনের বাড়ানো ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে ২-০ তে লিড এনে দেন বাংলাদেশকে।

তবে ২-০ তে লিড নেওয়া বাংলাদেশের ব্যাধানটা ২-১ করেন কিরগিজ ডিফেন্ডার আখমাতুলোভা জাইরিনা। ৭০ মিনিটে দ্রুত গতির শটটি ধরতি পারেনি বাংলাদেশের গোলরক্ষক রুপা চাকমা। এরপর প্রতিপক্ষর দিকে একের পর এক আক্রমন চালালেও ব্যার্থ লাল-সবুজ বাহিনিরা। শেষ প্রর্যন্ত ২-১ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ।

হ্যাজার্ডের সাথে খেলতে চান নেইমার

এডেন হ্যাজার্ডের সঙ্গে খেলতে চাইছেন বিশ্বের সবচেয়ে দামী ফরোয়ার্ড ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। সেই সঙ্গে তার বর্তমান দল প্যারিস সেন্ট জার্মেই‌ও ছাড়তে চাইছেন নেইমার। ২০১৭ সালে রেকর্ড পরিমান ট্রান্সফার ফিতে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দিয়েছিলেন নেইমার। ১৯৮ মিলিয়ন পাউন্ডে তিনি দল বদল করেন।

ন্যূক্যাম্প ছাড়া নিয়ে নেইমার জানান,’আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি, তাই দল ছেড়েছিলাম।’ তিনি আরো জানান, ‘সবসময় আমি নতুন কিছু পছন্দ করি, এখন‌ও তাই আছি।’

আগের দল স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা সম্পর্কে নেইমার বলেন, ‘বার্সেলোনা এমনই একটি দল যা সব সময়ই আমাকে আকৃষ্ট করে। এখন‌ও আমি দলটিকে ভালবাসি। কিন্তু সেই সময়ে আমি নতুন চাইছিলাম। তাই দল ছেড়ে নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলাম।’

চেলসির স্টাইকার এডেন হ্যাজার্ডের সাথে খেলা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘হ্যাজার্ডের সঙ্গে খেলতে চাই। আমার মতই খেলার স্টাইল তার।’ চেলসি ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দে‌ওয়ার খুব জোর সম্ভাবনা রয়েছে হ্যাজার্ডের।

কিরগিজস্তানের জয় সেমিতে বাংলাদেশ

সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে উঠে গেল কিরগিজস্তান। তাদের জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে সেরা চারে উঠে গেছে বাংলাদেশও। তাতে শুক্রবারের ম্যাচটি হয়ে উঠেছে এখন গ্রুপ চ্যাম্পিয়নের।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জিতেছে কিরগিজস্তান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে ২-০ গোলে হারা আরব আমিরাত টানা দুই পরাজয়ে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিল। একটি করে জয়ে ৩ করে পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনাল খেলা নিশ্চিত করা কিরগিজস্তান ও বাংলাদেশ।

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ ইন্টারন্যাশনাল গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে কমপক্ষে ড্র দরকার ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতের। কিন্তু লড়াই করলেও কিরগিজস্তানের সঙ্গে পেরে ওঠেনি দলটি।

খেলার ৫ মিনিটে বরনবেকোভা আইজান শুরুতে এগিয়ে দেন কিরগিজস্তানকে। ১৮ মিনিটে ইয়ারসেবেক ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। তবে ৩৯ মিনিটে আরব আমিরাতের শাহাদ খালিদ আলজারান ব্যবধান ২-১ নামিয়ে আনেন।

২-১ গোলে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয়ার্ধ শুরু করা আরব আমিরাত ৭০তম মিনিটে সমতায় ফেরার সেরা সুযোগটি নষ্ট করে। স্পট কিক ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন সেন্দিয়া ঘারিব।

শেষ দিকে আইজহান সরাসরি লালকার্ড পেলে দশ জনের দলে পরিণত হয় কিরগিজস্তান। তবে বাকিটা সময় পার করে দিয়ে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দলটি।

শিরোপা জয়ের আরো কাছে বার্সেলোনা

আলাভেসকে ২-০ গোলে হারিয়ে স্প্যানিশ লা লিগায় টানা দ্বিতীয় লিগ শিরোপা জয়ের খুব কাছে চলে গেছে শীর্ষদল বার্সেলোনা। আর মাত্র তিন পয়েন্ট পেলেই চ্যাম্পিয়ন হবে বার্সা। আগামী শনিবার ঘরের মাঠে লেভান্তেকে হারাতে পারলেই কাজটা হয়ে যাবে। অবশ্য বার্সার শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যেতে পারে আজ বুধবারই, যদি দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ ঘরের মাঠে ভ্যালেন্সিয়ার কাছে হেরে যায়।

আলাভেসের মাঠ ম্যানডিজোরোটজা স্টেডিয়ামে, আক্রমণাত্মক খেলা উপহার দেয় কাতালানরা। ম্যাচের প্রথম ছয় মিনিটেই অন্তত দুই গোল পেতে পারত আর্নেস্টো ভালভার্দের দল। কিন্তু সুয়ারেজ, সার্জিও রবার্তোর প্রচেষ্টা রুখে দেন আলাভেসের গোলরক্ষক ফার্নান্দো পাচেকো। তাতে গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় খেলার প্রথমার্ধ।

বিরতি থেকে ফিরে খেলার ৫৪ মিনিটে রবার্তোর কাছ থেকে বল পেয়ে বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন মিডফিল্ডার কার্লেস অ্যালেনা। তিন মিনিট পর ফ্রি কিক থেকে আসা বল জটলার মধ্যে পেয়ে জালে পাঠান জেরার্ড পিকে। তবে বল আগেই আলাভেসের স্ট্রাইকার পেনিয়ার হাতে লাগায় ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

৬০ মিনিটে সফল স্পট-কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সুয়ারেজ। পরের মিনিটেই ডেম্বেলেকে তুলে মেসিকে মাঠে নামান বার্সা কোচ। মাঠে নামার সাত মিনিটের মাথায় গোল পেতে পারতেন মেসি। কয়েকজনকে কাটিয়ে বাঁ দিক দিয়ে ডি বক্সে ঢুকে শট নেন আর্জেন্টাইন তারকা। কিন্তু তার শট গোলরক্ষকের হাতে লাগার পর পোস্টে লাগে।

এই জয়ে অ্যাথলেটিকোর চেয়ে ১২ পয়েন্ট এগিয়ে গেছে শীর্ষস্থানের দল বার্সেলোনা। ৩৪ ম্যাচে বার্সার পয়েন্ট এখন ৮০। এক ম্যাচ কম খেলা অ্যাথলেটিকোর পয়েন্ট ৬৮। আর তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের সংগ্রহ ৬৪ পয়েন্ট।

মঙ্গোলিয়ার জয়

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মঙ্গোলিয়া ৩-০ গোলে হারিয়েছে তাজিকিস্তানকে।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে, প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল মঙ্গোলিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে আর‌ও এক গোল করে ৩-০ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মঙ্গোলিয়ার কিশোরীরা।

১৪ মিনিটে মঙ্গোলিয়াকে এগিয়ে দেন আন্দ্রেই। ২৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এনখেমাগার। ৬৯ মিনিটে পেনাল্টি থেকে দলের তৃতীয় ‌ও শেষ গোলটি করেন দেলজারজায়া।

রিয়াল মাদ্রিদে সালাহ!

ইংল্যান্ড ছেড়ে এবার স্পেনেই আস্তানা গাড়ছেন মোহাম্মদ সালাহ। এমনই এক সংবাদ প্রকাশ করেছে Telefoot নামে ফ্রান্সের এক পত্রিকা। লিভারপুলের কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের সাথে ইদানিং সালাহর সম্পর্কটা ভালো যাচ্ছে না বলেই তিনি রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিচ্ছেন বলে জানায় Telefoot।

অবশ্য আর আগেই সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হয়েছিল ক্লপের সাথে মোহাম্মদ সালাহর সম্পর্কের অবনতির কথা। পরে মিশরীয় ফরোয়ার্ডের এজেন্ট বিষয়টিকে গুজব বলে উড়িয়ে দেন। কিন্তু এবার Telefoot আবার‌ও সালাহর লিভারপুল ছেড়ে যাবার খবর প্রকাশ করে। তারা জানায়, আসছে গ্রীষ্মেই সালাহ ইংল্যান্ড ছেড়ে স্পেনে আবাস গড়বেন।

অবশ্য এটা তো সবাই জানেন যে, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো চলে যাবার পর থেকেই রিয়াল মাদ্রিদ একজন ফরোয়ার্ডের খোঁজে ছিল। কিলিয়ান এমবাপে, এডেন হ্যাজার্ড এবং নেইমারের পর মোহাম্মদ সালাহর নাম আসলো লা ব্ল্যাঙ্কোদের শিবিরে যোগ দেবার। রিয়াল মাদ্রিদের কোচ জিনেদিন জিদান এখন থেকেই নজর রাখছেন মোহাম্মদ সালাহর দিকে। তবে লিভারপুল ইতোমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে মোহাম্মদ সালাহ বিক্রির জন্য নয়।

চলতি মৌসুমে সবধরণের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪৭ ম্যাচে ২৩ গোল করেছেন সালাহ। এবং ইপিএলে ১৯ গোল করে যৌথভাবে শীর্ষে আছেন।

জয়ে শুরু বাংলাদেশের

কাঙ্খিত জয় দিয়েই বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক নারী গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু করল স্বাগতিক বাংলাদেশ। প্রতিযোগিতার উদ্বোধোনী ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ২-০ গোলে হারিয়েছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। বাংলাদেশের হয়ে স্বপ্না ও কৃষ্ণা রানী সরাকার একটি করে গোল করেন। এই জয়ে “বি” গ্রুপে থেকে পুরো তিন পয়েন্ট পেলো স্বাগতিকরা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে খেলার শুরুতেই দাপট দেখাতে শুরু করে বাংলাদেশের মেয়েরা। ছোটো ছোটো পাসে খেলে তারা মুগ্ধতার আবেশ ছড়ায় স্টেডিয়াম আসা দর্শকদের মাঝে। খেলার শুরু থেকেই তারা আক্রমণ চালায় প্রতিপক্ষের সীমানায়। খেলার বয়স মিনিটখানেক পাড় হতে না হতেই স্বপ্না অফ সাইডের ফাদে না পড়লে তখনই এগিয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশ। তবে খেলার তাদের প্রাধান্য মোটেই কমেনি। ১২ মিনিটে বাংলাদেশের প্রথম গোলটি আসে স্বপ্নার পা থেকে। আঁখির লম্বা পাস ধরে আমিরাতের গোলরক্ষকে বোকা বানিয়ে বল জালে জাড়িয়ে দেন সিরাত জাহান স্বপ্না। উচ্ছাসে ফেটে পড়ে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের গ্যালারি।

এরপর ব্যাবধান দ্বিগুন করার মরিয়া হয়ে ‌ওঠে মারিয়া-মৌসুমিরা। ২০ মিনিটে শামসুরন্নাহার গোলরক্ষকে একা পেয়ে গোল করতে ব্যর্থ হন। তবে এই ব্যর্থতা বেশিক্ষণ সঙ্গী হয়নি তাদের। ৩০ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন কৃষ্ণা রানী সরকার। কর্নার থেকে কৃষ্ণার মাথায় বল লেগে সরাসরি জালে আশ্রয় নেয়।

তবে ৪০ মিনিটে আরেটি সহজ সুযোগ নষ্ট করে বাংলাদেশ। সামসুন্নাহার-মৌসুমির যৌথ চেষ্টাও বিফলে যায়। বল জালে জড়াতে পারেন নি তারা। ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় লাল-সবুজের কিশোরীরা।

দ্বিতীয়ার্ধেও একের পর এক আক্রমন চালায় তারা আমিরাতের সীমানায়। বারবার গোলের সুযোগ তৈরি করে‌ও ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের সব আক্রমনই আমিরাতের গোলরক্ষক ও ডিফেন্ডাররা রুখে দেন। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। আগামী ২৬ এপ্রিল সন্ধা ছ’টায় একই মাঠে কিরগিজস্তানের মুখোমুখি হবে লাল-সবুজের দল।

বঙ্গমাতা নারী গোল্ডকাপের পর্দা উঠছে আজ

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক নারী গোল্ডকাপ ফুটবলের পর্দা উঠছে আজ সোমবার। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে, শিরোপার অন্যতম দাবীদার হিসেবে বাংলাদেশকেই মেনে নিচ্ছেন প্রতিপক্ষরা। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে দুপুরে কথা বলেন ছয় দলের কোচ এবং অধিনায়করা। এসময় প্রতিটি দলকে শুভকামনা জানান জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরী।

এক শিরোপার ছয় দাবীদার। আগামী ৩ মে টুর্নামেন্টের ফাইনালে এই হাসি শেষ পর্যন্ত ফুটবে এক অধিনায়কের মুখেই। কে সেই ভাগ্যবতী? জানা নেই কারো। তবে ফটোসেশনে অভিব্যক্তিতে যেনো নিজেদের চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই প্রমান দিতে চাইলেন তারা। টুর্নামেন্ট নিয়ে আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে একমাত্র সংযুক্ত আরব আমিরাত ছাড়া প্রত্যেকেই ফেবারিট হিসেবে মেনে নেন স্বাগতিক বাংলাদেশকেই।

স্বাগতিক দলের কোচ অধিনায়কও স্বীকার করে নেন, প্রতিপক্ষ দলগুলোর শক্তিমত্তা আর নিজ দলের পারফরম্যান্স বিবেচনায় এগিয়ে থাকবে তার দলই।

এদিকে, বাংলাদেশকে শুভকামনা জানাতে এদিন আরো উপস্থিত ছিলেন আব্দুস সালাম মুর্শেদী, কাজী নাবিল আহমেদসহ স্পন্সর কে স্পোর্টসের সিইও ফাহাদ করিম। আরব আমিরাতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সোমবারই শিরোপা জয়ের অভিযান শুরু করছে বাংলাদেশ। গ্রুপে তাদের আরেক প্রতিপক্ষ কিরগিজস্থান।