সকাল ৯:২৪, সোমবার, ২১শে মে, ২০১৮ ইং
/ ক্রিকেট

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচিং পরামর্শকের দায়িত্ব নিতে রাতে ঢাকায় আসছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ব্যাটসম্যান ও কোচ গ্যারি কারস্টেন। বিসিবির খন্ডকালিন পরামর্শকের দায়িত্ব নেওয়ার কথা আছে তার।

কারস্টেনের আসার পরই শুরু হবে নতুন করে প্রধান কোচ খোঁজার আলোচনা। ভারতের বিশ্বকাপজয়ী কোচ কারস্টেনকে বাংলাদেশে ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হিসেবে পেতে চেয়েছিল বিসিবি। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ব্যাটসম্যান আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন পূর্ণসময়ের জন্য তিনি কোথাও যোগ দেবেন না।

এর আগে, কারস্টেন আইপিএলে বিরাট কোহলিদের দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর কোচের দায়িত্বে ছিলেন।

১৫ সদস্যের জাতীয় দল ঘোষণা

আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য বাংলাদেশ দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। ভারতের দেরাদুনে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে শুরু হবে সিরিজটি। নিদাহাস ট্রফির স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েছেন নুরুল হাসান সোহান, তাসকিন আহমেদ ও ইমরুল কায়েস। দুপুরে মিরপুরে সংবাদ সম্মেলনে এ দল ঘোষণা করেন, প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তবে দলে সুযোগ পেয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

ভারতের দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৩, ৫ ‌ও ৭ জুন তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি সিরিজকে সামনে রেখে আজ রোববার দুপুরে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। সবশেষ নিদাহাস ট্রফিতে ভালো করায় দলে বড় কোনো পরিবর্তন আনেননি নির্বাচকরা।

নিদাহাস ট্রফির স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েছেন পেসার তাসকিন আহমেদ, ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস এবং উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কাজী নুরুল হাসান সোহান। দলে সুযোগ পেয়েছেন শুধু মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

জাতীয় দলের হয়ে ২ টেস্ট, ১৮ ওয়ানডে এবং ৬ টি-টোয়েন্টি খেলা মোসাদ্দেক দীর্ঘদিন পর দলে ফিরলেন। গত বছরের আগস্টে চোখের সংক্রমণের কারণে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েন এ স্পিনিং অলরাউন্ডার। সুস্থ হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে নিজেকে প্রমাণ করে আবার জাতীয় দলে জায়গা করে নিলেন ২২ বছর বয়সি এ ক্রিকেটার।

মোসাদ্দেক লম্বা সময় মাঠের বাইরে ছিলেন চোখের সংক্রমণে। এর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সুযোগ যেটুকু পেয়েছেন সেগুলোতে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। প্রয়োজনের সময়ে দলের হয়ে অবদান রেখেছেন। ২০১৬ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে তার ওয়ানডে ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল। প্রথম ম্যাচেই মিরপুরে করেছিলেন অপরাজিত ৪৫ রান।

পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতায় সুযোগ মেলে টেস্টে। শততম টেস্টে জয় পেতেও রেখেছিলেন অবদান। সেই টেস্টে নিজের অভিষেকে প্রথম ইনিংসে ৭৫ রানের দারুণ ইনিংস খেলেছিলেন শ্রীলঙ্কায়। ওই সফরে ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে হারানোর ম্যাচে খেলেছিলেন ৯ বলে অপরাজিত ২৪ রানের ইনিংস। টি-টোয়েন্টিতে রয়েছে তার দুটি কার্যকরী ইনিংস। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এসে নিজেকে মেলে ধরেছিলেন এ তরুণ ক্রিকেটার।

সেই আফগানিস্তানের বিপক্ষেই আবার ফিরলেন। মাঝের সময়টাই অসুস্থতার কারণে জাতীয় দলের কেন্দ্রীয় চুক্তিও হারিয়েছেন মোসাদ্দেক। প্রতিভাবান এ ক্রিকেটার বাংলাদেশের অন্যতম বড় সম্পদ হতে পারেন। ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে তার জাতীয় দলে ফেরা বড় শক্তি হিসেবে কাজ করবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এদিকে আফগানিস্তান সিরিজের জন্য স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে কাজী নুরুল হাসান সোহান, নাঈম হাসান এবং আবুল হাসান রাজুকে। ২৯ মে দেরাদুনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বে বাংলাদেশ দল।

বাংলাদেশের দল: সাকিব আল হাসান(অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন ‍কুমার দাশ, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আরিফুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার রনি, রুবেল হোসেন ও আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী।

প্লে-অফ কোলকাতা

আইপিএলে ডু আর ডাই ম্যাচে হায়দ্রাবাদকে ৫ উইকেট হারিয়েছে বলিউড বাদশা শাহারুখ খানের দল কোলকাতা নাইট রাইডার্স। তাতে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে থেকেই প্লে-অফ নিশ্চিত করলো কোলকাতা।

হায়দ্রাবাদের দেয়া ১৭৩ রানে টার্গেটে নেমে আক্রামণাত্মক ব্যাটিং করে দুই ওপেনার সুনিল নারাইন ও ক্রিস লিন। মাত্র ৩.৪ ওভারে দলের স্কোরেজমা করেন তারা ৫২ রান। সুনিল নারাইন ভয়ংকর হবার আগে ১০ বলে ২৯ রান করেন। তাকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান সাকিব আল হাসান। এরপর ক্রিস লিন ও রবিন উথাপ্পা দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে লক্ষের কাছে চলে আসে কলকাতা। ক্রিস লিন দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন। রবিন উথাপা করেন ৪৫ রান। শেষ পর্যন্ত ২২ বলে ২৬ রান করে দলেকে জিতেয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক দিনেশ কার্তিক।হাদ্রাবদের হয়ে প্রথম খেলতে নামা কার্লোস ব্রেথওয়েট ২১ রানে তুলে নেন ২ উইকেট।

এর আগে রাজিব গান্ধি আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে, ব্যাটিং নেমে ভালো শুরু এনে দেন শিখর ধাওয়ান ও শ্রীবৎস গোস্বামী। উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৭৯ রান। শ্রীবৎস গো্স্বামী ২৬ বলে ৩৫ রানে আউট হলে, পাঁচ চার ও এক ছক্কায় ৩৯ বলে ফিফটি তুলে নেনে শিখর ধাওয়ান। ৩৬ রান করেন হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসান। ব্যাট হাতে সাকিব করেন ৭ বলে দুই চারে করেন ১০ রান। শেষ পর্যন্ত হায়দ্রাবাদের ইনিংস থামে ১৭২ রানে।

কোহলিদের বিদায়

আইপিএলে প্লে-অফের ‌ওঠার ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের কাছে ৩০ রানে হেরে আসর থেকে বিদায় নিলো বিরাট কোহলির দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। এতে প্লে-অফের খুব কাছে এখন রাহনেরা। প্লে-অফের জন্য তাদের তাকিয়ে থাকতে হবে মুম্বাই ম্যাচের দিকে।

রাজস্থানের দেওয়া ১৬৫ রানের টার্গেটে ভালো সূচনা করে ব্যাঙ্গালুরু। তবে ম্যাচ সেরা গোপালের বোলিং তোপে ১৩৪ রানে থেমে যায় বেঙ্গালুরু ইনিংস। বিরাট কোহলি ৪ রানে গৌতমের বলে আউট হলে দ্বিতীয় উইকেটে পার্থিব প্যাটেলের সাথে ৫৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ৩৩ রান করে প্যাটেল প্যাভিলিয়নে ফিরলে আর কোন ব্যাটসম্যান ডি ভিলিয়ার্সকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেনি। ডি ভিলিয়ার্স সর্বোচ্চ ৫৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। রাজস্থানের রয়্যালসের শ্রেয়াস গোপাল নেনে ১৬ রানে ৪ উইকেট।

আপরদিকে প্রথমে ব্যাটিং নেমে রাহুল ত্রিপাঠির ৫৮ বলে ৮০ রান। অধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানের ৩১ বলে ৩৩ রান এবং প্রিটোরিয়ার ব্যাটসম্যান হেইনরিচি ক্লাসেনের ২১ বলে ৩২ রানের উপর ভর করে ১৬৪ রান স্কোর বোর্ড জমা করে রাজস্থান।

প্লে-অফের পথে ব্যাঙ্গালুরু

সাকিবদের বিপক্ষে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে ১৪ রানে জয় পেয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। তাতে ১৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের পঞ্চম স্থানে উঠে এলো বিরাট কোহলির দল।

ব্যাঙ্গালুরুর দেওয়া ২১৯ রানে টার্গেটে দুর্দান্ত সূচনা এনে দেন দু্‌ই ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও অ্যালেক্স হেলস। ধাওয়ান ১৫ বলে ১৮ রানে করে আউট হন। এবি ডি ভিলিয়ার্সের দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হ‌ওয়ার আগে ২৪ বলে ৩৭ রান করেন অ্যালেক্স হেলস। এরপর অধিনায়ক কেন
উইলিয়ামসের সাথে ১৩৫ রানে জুটি গড়েন মানিশ পান্ডিয়া। কেন উইলিয়ামসন ৮১ রানে আউট হলে ম্যাচ চলে যায় ব্যাঙ্গালুরু হাতে। শেষে ওভারে হায়দ্রাবাদের জয়ে প্রয়োজন ছিলো ২০ রান। তবে সেই ওভারে মাত্র ৫ রান দিয়ে ব্যাঙ্গালুরুকে ১৪ রানের জয় এনে দেন মোহাম্মদ সিরাজ। মানিশ পান্ডিয়া শেষ পর্যন্ত অপারিজিত থাকেন ৬২ রানে।

এর আগে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টসে হরে ব্যাটিং নেমে মাত্র ৬ রানে পার্থিব প্যাটলের উইকেট হরায় ব্যাঙ্গালুরু। অধিনায়ক বিরাট কোহলি‌ও ১২ রানের বেশি সংগ্রহ করতে পারেন নি। পরে মঈন আলীকে সাথে নিয়ে তৃতীয় উইকেট ১০৭ রানের জুটি গড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ম্যাচ সেরা ডি ভিলিয়ার্স ৩৯ বলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৯ রান করেন। মঈন আলির ব্যাট থেকে আসে ৬৫ রান। শেষদিকে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ১৭ বলে ৪০ রান ও সরফরাজ খানের ৮ বলে ২২ রানের ঝড়‌ে ৬ উইকেটে ২১৮ রান তোলে ব্যাঙ্গালুরু। হায়দ্রাবাদের হয়ে রাশিদ খান ২৭ রানে নেন ৩ উইকেট। তবে সাকিব আল হাসান ছিলেন উইকেট শূন্য। এদিকে, ৪ ওভারে ৭০ রান দিয়ে এবারের আসরে রেকর্ড গড়েন বাসিল থাম্পি।

সাকিবের পর আফ্রিদির নাম প্রত্যাহার

চলতি মাসের ৩১ তারিখে লর্ডসে ওয়েস্টে ইন্ডিজের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠেয় প্রীতি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বিশ্ব একাদশে জয়াগা পেয়েছিলেন পাকিস্তানের অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। তবে হাঁটুর ইঞ্জুরির কারণে বিশ্ব একাদশে খেলতে পারেবেন না ৩৮ বছর বয়সি এই অলরাউন্ডার।

আফ্রিদি এক টুইটার বার্তায় জানান, ‘আমি হাটুর ইনজুরিতে পড়েছি। আমার সুস্থ হতে তিন থেকে চার সপ্তাহ সময় লাগবে। তাই আমি এই ম্যাচটা মিস করবো। অন্যাদিকে বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান তার ব্যাক্তিগত কারন দেখিয়ে আগেই নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন। তার পরিবর্তে একাদশে জয়গা পেয়েছেন নেপালের অফ স্পেনার সন্দীপ লামেচান।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে ঘুর্নিঝড় হারিকেন ইরমা ও মারিয়ার আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে যায় দীপপুঞ্জ ‌ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুটি ক্রিকেট স্টেডিয়াম।ধ্বংসস্তেপের পরিনত হওয়া স্টেডিয়াম দুটি সংস্করনের জন্য তহবিল গঠনের লক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বিশ্ব একাদশের মধ্যকার চ্যারাটি ম্যাচের আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি, মেরিলিবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব(এমসিসি) এবং ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড(ইসিবি)।

টি-টোয়েন্টি সিরিজে‌ও হার বাংলাদেশের নারীদের

‌ওয়ানডের মতো টি-টোয়েন্টি সিরিজে‌ও দক্ষিণ আফ্রিকায় হার দিয়ে শুরু হলো বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটারদের। তিন ম্যাচের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ক্রিকেট দলের কাছে ১৭ রানে হারলো বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দল। এতে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা।

দক্ষিণ আফ্রিকার দেওয়া ১২৮ রানের টার্গেটে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি সানজিদা ও শামিমা। ৫ রান করে শামিমা প্যাভিলিয়নে ফিরলে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি সানজিদা ইসলামও। সানজিদা ১৭ বলে করেন ৮ রান। এরপর রুমানা আহেমেদ ও ফারজানা হকের ৭২ রানের জুটি দলকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যায়। কিন্তু মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যাদের ব্যার্থতায় শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১১০ রানে থামে বাংলাদেশের নারীরা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন রুমানা আহেমদ। ফারজানা করেন ৩৫ রান।

এর আগে কিম্বারলির ডায়মন ওভাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাট করে, লিজেল লি’র ৪৬, লরা উলভার্টের ৩০ রান ও সুন লুম’য়ের ২৮ রানে ভর করে ৬ উইকেটে ১২৭ রান সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকার নারীরা। বাংলাদেশের খাদিজা ২৩ রানে নেন ৩ উইকেট।

আগামী ১৯ মে দ্বিতীয় ‌ও ২০ মে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে দু’দল।

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে মুম্বাইয়ের জয়

আইপিএলে প্লে-অফে উঠার লড়াইয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ৩ রানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে আসলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।এই জয়ে ১৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের দৌড়ে এখন মুস্তাফিজদের দল মুম্বাই।

মুম্বাইয়ের দেওয়া ১৮৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে, ১১ বলে ১৮ রান করে গেইল আউট হন। পরে অ্যারন ফিঞ্চকে নিয়ে ১১১ রানের জুটি গড়েন লোকেশ রাহুল। ফিঞ্চ ব্যাক্তিগত ৩৫ বলে ৪৬ রানে বুমরাহ বলে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়েনে ফেরেন। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন লোকেশ রাহুল। শেষ ওভারে পাঞ্জাবের জয়ে প্রয়োজন ছিলো ১৭ রান। কিন্তু শেষ ওভারে মাত্র ১৩ রান তুলতে পারে পাঞ্জাব। এতে ৩ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মুস্তাফিজের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। মুম্বাইয়ের বোলার ম্যাচ সেরা জাসপ্রিত বুমরাহ ১৫ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট।

প্রীতি জিনতার এই হাসি শেষ র্পযন্ত থাকে নি

এর আগে, মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে কাইরন পোলার্ডের ২৩ বলে ৫০, সুর্যকুমার যাদবের ১৫ বলে ২৭ ও ইশান কিশানের ১২ বলে ২০ রানের উপর ভর করে ৮ উইকেট ১৮৬ রান সংগ্রহ মুম্বাই।

সাকিবের নাম প্রত্যাহার

বাংলাদেশের ক্রিকেটের ভক্তদের জন্য অনেক বড় একটি সুসংবাদ এনে দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। বিশ্ব একাদশের হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলার কথা ছিল এই দুই টাইগার ক্রিকেটারের। কিন্তু হঠাৎ করেই নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) বর্তমানে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন সাকিব। সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন প্রায় প্রতি ম্যাচেই। এরই মধ্যে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে বিশ্ব একাদশ থেকে নিজের নাম সরিয়ে নিলেন তিনি। আইসিসি আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের ওয়েবসাইটে নিশ্চিত করেছে সাকিবের সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি। এ প্রসঙ্গে তারা লিখেছে, সাকিব আল হাসান সেই ম্যাচ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। খুব শিগগির তার বদলির নাম ঘোষণা করা হবে। এরই মধ্যে অবশ্য নেপালের লেগস্পিনার সন্দীপ লামিচরনকে বিশ্ব একাদশের হয়ে দলে যোগ দিতে ডেকেছে আইসিসি।

প্রলঙ্করী ঝড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের একাধিক স্টেডিয়াম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরই সংস্কার কাজের অর্থ সংগ্রহের জন্যই আগামী ৩১ মে লর্ডসে বিশ্ব একাদশ একটি টি-টোয়েন্টি খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। বিশ্ব একাদশে আছেন শহীদ আফ্রিদি, ইয়ন মরগান, রশিদ খান, থিসারা পেরেরা, হার্দিক পান্ডিয়ার মতো ক্রিকেটাররা।

এ বছর হচ্ছেনা বিপিএল

জাতীয় নির্বাচনের কারণে এ বছর আর হচ্ছেনা বিপিএলের ষষ্ঠ আসর। রাজধানীর এক হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে এ কথা জানান, বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক।

তিনি বলেন, সরকারের নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর সাথে কথা বলে আগামী বছরের জানুয়ারীতে বিপিএল আয়োজন করতে চান তারা। সেক্ষেত্রে ঐ সময়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের সূচী থাকলেও তাতে পরিবর্তন আসবে বলে‌ও জানান ইসমাইল হায়দার মল্লিক।

গর্ডন গ্রিনিজ সংবর্ধিত

খেলোয়াড়দের অদম্য ইচ্ছে শক্তি আর তাদের প্রতি দেশের মানুষের অগাধ আস্থার কারণেই ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জিতে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলা নিশ্চিত করেছিলো বাংলাদেশ। এমনটাই মনে করেন কিংবদন্তি ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান ও সে সময়ে বাংলাদেশ দলের হেড কোচ গর্ডন গ্রিনিজ।

পাঁচ দিনের সফরে ঢাকায় আসা এই সাবেক কোচ জানালেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের খেলাটির প্রতি চরম ভালোবাসাই এদেশে ক্রিকেটের অগ্রযাত্রায় বড় বূমিকা রাখছে। তাই সমর্থকদের কাছ থেকে তার প্রত্যাশা অনেক। দুপুরে রাজধানীতে গর্ডন গ্রিনিজের সম্মানে আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা জানান তিনি।

প্লে-অফের পথে কলকাতা

আইপিএলে রাজস্থান র‌য়্যালসকে ৬ উইকেটে হারিয়ে লিগ টেবিলের তৃতীয় স্থানে উঠে আসলো শাহারুখ খানের কলকাতা নাইট রাইডার্স। এই জয়ে ১৩ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের খেলার পথে শক্ত অবস্থানে রইলো নাইটরা।

রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে ১৪৩ রানের টার্গেটে নেমে ইনিংসের প্রথম বলে ছয় মেরে কলকাতাকে শুভ সূচনা এনে দেন ‍সুনিল নারাইন। তবে বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি তার ব্যাট। ৭ বলে ২১ রানে আউট হন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত ক্রিস লিন ও অধিনায়ক দিনেশ কার্তিকের দৃঢ়তায় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কলকাতা। নাইট রাইডার্সদের হয়ে সর্বোচ্চ ক্রিস লিন ৪২ বলে করেন সর্বোচ্চ ৪৫ রান। দিনেশ কার্তিক অপরাজিত থাকেন ৩১ বলে ৪১ রান করে।

কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে কুলদিপ যাদবের বোলিংয়ের তোপে মাত্র ১৪২ রানে গুাটিয়ে যায় রাজস্থান রয়্যালসের ইনিংস। রাজস্থানের হয়ে জস বাটলার ২২ বলে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন। রাহুল ত্রিপাঠি করেন ২৭ রান। কলকাতার বোলারদের মধ্য কুলদিপ যাদব ২০ রানে ৪ উইকেট নিয়ে রাজস্থানের ব্যাটিংয়ে ধ্বস নামান।

অভিষেক টেষ্টে আইরিশদের লড়াকু হার

অভিষেক টেস্টে ম্যাচ সেরা কেভিন ও’ব্রায়েনের সেঞ্চুরির পরও পাকিস্তানের কাছে ৫ উইকেটে হারলো স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড।

ডাবলিন টেস্টে ম্যাচের শেষ ইনিংসে ১৬০ রানের টার্গেটে নেমে পাকিস্তান ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল ১৪ রানেই। কিন্তু অভিষিক্ত ইমাম-উল-হক ও বাবর আজম জুটি দলকে এগিয়ে নেয় জয়ের পথে।

৩ উইকেট হাতে নিয়ে ১৩৯ রানে এগিয়ে থেকে শেষ দিন শুরু করেছিল আয়ারল্যান্ড। তবে আর আর লড়াই চালিয়ে যেতে পারেনি তারা।

দেশের টেস্ট অভিষেকে সেঞ্চুরির কীর্তি গড়া কেভিন ও’ব্রায়েন ফেরেন আগের দিনের ১১৮ রানেই। ৩৩৯ রানে গুটিয়ে যায় আইরিশরা। ৬৬ রানে ৫ উইকেট নিয়ে মোহাম্মদ আব্বাস স্বাগতিক শিবিরে ধ্বস নামান। ষষ্ঠ টেস্টে এই পেসার দ্বিতীয়বার ইনিংসে ৫ উইকেট নিলেন।

রান তাড়ায় নামা পাকিস্তানকে নতুন বলে নাড়িয়ে দেন দুই আইরিশ পেসার টিম মারটাঘ ও বয়েড র‌্যানকিন। প্রথম ইনিংসে চার উইকেট নেওয়া মারটাঘ ফেরান আজহার আলি ও আসাদ শফিককে। মাঝে র‌্যানকিনের শিকার হারিস সোহেল। ৫ ওভারের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে পাকিস্তান।

পাকিস্তানের সামনে তখন কঠিন চ্যালেঞ্জ। আর আইরিশদের সামনে ইতিহাসের হাতছানি। শেষ পর্যন্ত তরুণ দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটে সেই চ্যালেঞ্জ জিতেছে পাকিস্তান।

অভিষিক্ত ওপেনার ইমাম-উল-হক ও বাবর আজম চতুর্থ উইকেটে ১২৬ রানের জুটিতে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেন। বাবর ৫৯ রানে রান আউট হলে ভাঙে এই জুটি। শেষ পর্যন্ত আইরিশরা পরাজয় মানে ইমাম উল হকের অপরাজিত ৭৪ রানের কাছে। ৫ উইকেটে ১৬০ রান করে জয় পায় পাকিস্তান।

প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হকের ভাতিজা বলে ইমামের টেস্ট দলে জায়গা পাওয়া নিয়ে ছিল অনেক সমালোচনা। অভিষেকে দলকে জেতানো অপরাজিত ইনিংসে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান দিলেন সমলোচনার জবাব আর যোগ্যতার প্রমাণ।

এর আগে, আয়ারল্যান্ডের ১৩০ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেটে ৩১০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছিল পাকিস্তান।

কলকাতা-রাজস্থান লড়াই আজ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ-আইপিএলে আজকের একমাত্র ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের মুখোমুখি হবে রাজস্থান রয়্যালস। কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় শুরু হবে ম্যাচটি। প্লে অফ খেলতে হবে দুই দলের জন্যই এই ম্যাচে জয় পা‌ওয়া জরুরী। ১২ ম্যাচে উভয় দলের সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট করে।

এদিকে, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে কাল ১০ উইকেটে হারিয়েছে বিরাট কোহিলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার ব্যাঙ্গালুরু। এই জয়ে ১২ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফে উঠার আশাটা জিইয়ে রাখলো ব্যাঙ্গালুরু।

টসে হেরে ব্যাট করে মাত্র ৮৮ রানে গুটিয়ে যায় পাঞ্জাবের ইনিংস। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেন অ্যারন ফিঞ্চ। লোকশ রাহুল ২১ ও ক্রিস গেইল করেন ১৮ রান। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে ম্যাচ সেরা উমেশ যাদব ২৩ রানে ৩ উইকেট নেন।

৮৯ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত খেলেতে থাকেন দুই ওপেনার বিরাট কোহলি ও পার্থিব প্যাটেল। তাদের ব্যাটিংয়ে মাত্র ৮.১ ওভারে কোন উইকেট না হারিয়ে জয়ের লক্ষে পৌঁছায় ব্যাঙ্গালুরু। অধিনায়ক বিরাট কোহলি অপরাজিত থাকেন ২৮ বলে ৪৮ রান করে। আর পার্থিবের ব্যাট থেকে আসে ২৪ রান।

আশার আলো রাজস্থান শিবিরে

আইপিএলের ম্যাচে, ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজুর রহমান বিহীন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৭ উইকেটে হারিয়ে প্লে অফের আশা বাঁচিয়ে রাখলো রাজস্থান রয়্যালস। ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের পঞ্চম স্থানে এখন তারা।

চিয়ারলিডারদের আনন্দ নৃত্য

১৬৯ রানের টার্গেটে নেমে দলের ৯ রানেই ম্যাথু শর্টেও উইকেট হারায় রাজস্থান রয়্যালস। পরে উইকেটকিপার জস বাটলারের অপরাজিত ৯৪ রান এবং অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানের ৩৭ রানে ভর করে, ৩ উইকেটে ১৭১ রান তুলে ম্যাচ জেতে, রাজস্থান।

এর আগে নিজেদের মাঠ ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে, প্রথমে ব্যাট করে, ৬ উইকেটে ১৬৮ রান তোলে মুম্বাই। দলের পক্ষে ৪২ বলে সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন এভিন লুইস।

৩৮ সূর্যকুমার যাদব এবং ৩৬ রান করেন হার্দিক পান্ডিয়া। রাজস্থানের বোলারদের মধ্যে জোফরা আর্চার ও বেন স্টোকস ২টি করে উইকেট তুলে নেন।

প্লে অফের পথে চেন্নাই সুপার কিংস

অম্বাতি রাইডুর অপরাজিত সেঞ্চুরিতে, সাকিব আল হাসানের দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে ৮ উইকেটে হারিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ-আইপিএলে প্লে অফের পথে এগিয়ে গেলো চেন্নাই সুপার কিংস।

পুনের মহারাষ্ট্র ক্রিকেট এসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে, ১৮০ রানের টার্গেটে নেমে, দুই ওপেনার ওয়াটসন ও রাইডু ১৩৪ রানের জুটি গড়ে দলের জয়কে সহজ করে দেন। ৩৫ বলে ৫৭ রান করে ওয়াটসন রান আউট হলেও, দলের জয়ে কোনো প্রভাব পড়ে নি। অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনীকে নিয়ে, ৬ বল আগেই চেন্নাই সুপার কিংসকে জয় পাইয়ে দেন অম্বাতি রাইডু। ৬২ বলে সাত চার ও সাত ছক্কায় ১০০ রান করে অপরাজিত থাকেন রাইডু।

এর আগে, টসে হেরে ব্যাট করে, শিখর ধাওয়ানের ৭৯ এবং অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ৫১ রানে ভর করে, ৪ উইকেটে ১৭৯ রানে থামে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ইনিংস। বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ৬ বলে ৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

জিতলো ব্যাঙ্গালুরু

আইপিএলের ম্যাচে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বিরাট কোহলির দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। এতে ১১ ম্যাচে চার জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সপ্তমস্থানেই থেকে গেলো কোহলিবাহিনি।

১৮২ রানে জয়ের টার্গেটে নেমে, দলের ১৮ রানে দুই উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয় পড়ে ব্যাঙ্গালুরু। এরপর বিরাট কোহলি ও এবি ডিভিলিয়ার্সের ১১৮ রানের জুটি দলের বিপর্যয় রোধ করে। ডি ভিলিয়ার্স ৩৭ বলে সর্বোচ্চ ৭২ রানে অপারাজিত থাকেন। বিরাট কোহলি করেন ৪০ বলে ৭০ রান। শেষ পর্যন্ত তাদের কল্যাণে ৬ বল হতে রেখে ৫ উইকেটের জয় পায় ব্যাঙ্গালুরু।

এর আগে, দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে, টসে হেরে ব্যাট করে, আগের ম্যাচে সেঞ্চুরিয়ান রিষভ পান্টের ৩৪ বলে ৬১ রান, অভিষেক শর্মার ১৯ বলে ৪৬ রান ও অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ারের ৩৫ বলে ৩২ রানে ভর করে ৪ উইকেটে ১৮১ রানের স্কোর গড়ে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ব্যাঙ্গালুরুর বোলারদের মধ্যে চাহাল ২৪ রানে নেন ২ উইকেট।

প্লে অফের আশা কলকাতার

আইপিএলের ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ৩১ রানে হারিয়ে চতুর্থস্থানে উঠে এলো কলকাতা নাইট রাইডার্স।

অশ্বীনের স্ত্রী প্রীতি নারায়নন মাঠে উপস্থিত থেকেও পাঞ্জাবকে জেতাতে পারলেন না

২৪৬ রানের টার্গেটে নেমে, দলের ৫৭ রানে ক্রিস গেইল ও মৈনাক আগারওয়ালের উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। পরে লোকেশ রাহুল ২৯ বলে ৬৬ এবং অধিনায়ক অশ্বীন ২২ বলে ৪৫ রানের ইনিংস খেললেও, ৮ উইকেটে ২১৪ রানে থামে পাঞ্জাবের ইনিংস।

সুনীল নারাইনের রান উৎসব

এর আগে, ইন্দোরে টসে হেরে ব্যাট করে সুনীল নারাইনের ৩৬ বলে ৭৫, অধিনায়ক দিনেশ কার্তিকের ২৩ বলে ৫০ এবং আন্দ্রে রাসেলের ১৪ বলে ৩১ রানে ভর করে ৬ উইকেটে ২৪৫ রানের বিশাল স্কোর গড়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

এই জয়ে ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে প্লে অফের আশা বাঁচিয়ে রাখলো শাহরুখ খানের কলকাতা।

আফ্রিকায় হার বাংলাদেশের মেয়েদের

ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ১৫৪ রানে হেরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের মেয়েরা। এতে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ৪-০ তে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা।

ডায়মন্ড ওভালে টসে জিতে ব্যাটংয়ে নেমে বাংলাদেশকে ২৩১ রানের টার্গেট দেয় প্রোটিয়া নারীরা। কিন্তু ব্যাটিং ব্যর্থতায় সেই লক্ষ্যে পোঁছাতে পারেনি রুমানা-সালমারা। মাত্র ৭৬ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২২ রান করেন ফারজানা হক। শামিমা সুলতানা করেন ১৭ রান ও শারমিন সুলতানার ব্যাট থেকে আসে ১১ রান।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে, লিজেল লি’র ১০২ বলে ৭২, ক্লো ট্রায়নের ৪২ বলে ৬০ এবং লারা উলভার্টের ৬২ বলে ৩২ রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৩০ রান তোলে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে জাহানারা আলম ও নাহিদা আক্তার নেনে দুটি করে উইকেট।

প্রথম দল হিসেবে প্লেঅফে হায়দ্রাবাদ

ঋষভ পান্টের সেঞ্চুরি‌ও জেতাতে পারেনি দিল্লী ডেয়ারডেভিলসকে। সাত বল হাতে রেখেই ৯ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। তাতে ১১ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম দল হিসেবে প্লে-অফে কোয়ালিফাই করলো সাকিব আল হাসানের দল হায়দ্রাবাদ।

দিল্লীর ফিরোজ শাহ কোটলায়, সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিরুদ্ধে অনবদ্য শতরান করলেন দিল্লী ডেয়ারডেভিলসের ব্যাটসম্যান ঋষভ পান্ট। মাত্র ৫৬ বলে প্রথম আইপিএল শতরান করেন পান্ট। তাঁর ব্যাটে ভর করে দিল্লী নিজেদের মাঠে তুলল ১৮৭ রান। শেষ পর্যন্ত ৬৩ বলে ১২৮ রান করে অপরাজিত থাকেন পান্ট। তার মারকুটে ইনিংসে রয়েছে ১৫টা চার, ৭টা ছয়।

শুধু শতরানই নয়, অনেকগুলো নজিরও তৈরি করলেন এই ব্যাটসম্যান। আইপিএল ইতিহাসে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের(১২৮) মুকুট উঠল তাঁর মাথায়। দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম (২০ বছর ২১৮ দিন) ব্যাটসম্যান হিসাবে আইপিএল শতরান পান্টের ব্যাট থেকে (প্রথম কনিষ্ঠতম ব্যাটসম্যান হিসেবে শতরানের মালিক মানীশ পাণ্ডে, ২০০৯)। এছাড়াও ঋষভ আইপিএলে সেঞ্চুরি করা ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ রান করলেন(১২৮)। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন মুরলী বিজয়(১২৭)। চলতি আইপিএলেও এটাই ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান। সেই সঙ্গে কনিষ্ঠতম ক্রিকেটার হিসেবে ২১ বছর ২১৮ দিন বয়সে আইপিএলে এক হাজার রানের মালিক হন। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১৮৭ রান তোলে দিল্লী।

জবাবে, শিখর ধাওয়ান আর কেন উইলিয়ামসন জুটির দাপটে ৭ বল বাকি থাকতেই ৯ উইকেটে জয় ছিনিয়ে নেয় হায়দ্রাবাদ। ধাওয়ান করেন ৫০ বলে ৯২ রান আর অধিনায়ক উইলিয়ামসনের ব্যাট থেকে এসে ৫৩ বলে ৮৩ রান। এই পরাজয়ে দিল্লী ছিটকে গেল প্লে-অফের দৌড় থেকে।

রশিদ খানই বড় হুমকি বাংলাদেশের: মুশফিক

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হবে ৩ জুন থেকে। ইতিমধ্যে সফরসূচী সূচি নির্ধারিত হয়েছে। ভারতের দেরাদুনেই হবে দিন-রাতের এই সিরিজের সবগুলো ম্যাচ। স্বাভাবিকভাবেই উপমহাদশের উইকেট হিসেবে দেরাদুনের উইকেটও স্পিনবান্ধব হবে। আর স্পিনে দারুণ শক্তিশালী আফগানিস্তান। তাই সিরিজটি বেশ চ্যালেঞ্জিংই হবে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম। এছাড়া দলটির লেগস্পিনার রশিদ খানই টাইগারদের বড় হুমকি হতে পারেন বলেও মনে করেন তিনি।

সাম্প্রতি সবচেয়ে আলোচিত বোলারই রশিদ খান। বল হাতে নিলেই সাফল্য পাচ্ছেন। আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে বোলারদের মধ্যে তার অবস্থানও সবার উপরে। তাই রশিদ খান স্বাভাবিকভাবেই টাইগারদের বড় দুর্ভাবনার কারণ হতে পারেন। মুশফিক বলেন, ‘রশিদ খান একজন বিশ্বমানের বোলার। আইপিএলে এক ম্যাচ ছাড়া তার বিরুদ্ধে ৬-৭ রানের বেশি কোনো ওভারে কেউ নিতে পারেনি। আমাদের জন্য তাই চ্যালেঞ্জিং হবে।’

বর্তমানে দারুণ ফর্মেও আছেন রশিদ খান। তাই তাকে খেলতে এর মধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন মুশফিক। তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি কিছু কাজ করছি। কোন শট খেললে স্কোর করতে পারবো, তা নিয়ে কাজ করছি। আর দল হিসেবে একটা ভালো পরিকল্পনা করতে হবে, তা যাতে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি। টি-টোয়েন্টি এমন, যেখানে একজন বোলারকে দেখে খেলার সুযোগ নাই। অবশ্যই একটা পরিকল্পনা করতে হবে, যেখানে একটু ঝুঁকি নিয়ে হলেও যাতে রানটা আমি করতে পারি।’

তবে শুধুই রশিদ খানকে হুমকি মানছেন না মুশফিক। তার তালিকাতে আছেন মুজিব জাদরানও। এছাড়াও ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারেন মোহাম্মদ নবীও। তাই তাদের বিপক্ষে সঠিক পরিকল্পনা করে খেলতে চান মুশফিক। আর তার জন্য নিজেদের উচ্চদক্ষতাসম্পন্ন ক্রিকেটার আছে বলেও জানান তিনি। মুশফিক বলেন, ‘ওদের শুধু রশিদ খান না, মুজিবও নতুন বলে ভালো করে থাকে। আমাদের ওইভাবে পরিকল্পনা করে এগোতে হবে। আশা করি আমরা পারবো। কারণ আমাদের উচ্চদক্ষতাসম্পন্ন ক্রিকেটার আছে। তারা যদি ক্লিক করে তাহলে এটি খুব ভালো একটা সিরিজ হবে।’

এদিকে বাংলাদেশের অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই হতাশ মুশফিক। তিনি বলেন,‘এটা বোর্ডের ব্যাপার। কেন বাদ হলো- এ বাপারে আমার মন্তব্য করা কঠিন। কিন্তু আমরা খেলার জন্য মুখিয়ে ছিলাম। ওরা (অস্ট্রেলিয়া) এখানে এসেছিল। আমাদেরও ইচ্ছা ছিল সেখানে (অস্ট্রেলিয়া) গিয়ে খেলার, কেননা কখনও খেলা হয়নি। আমার কাছে অন্যরকম অনুভূতি ছিল, সব মিলিয়ে আমি হতাশ।’ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে ইংল্যান্ডে। ১৯৯২ বিশ্বকাপের মতো সামনের আসরেও রবিন রাউন্ড পদ্ধতিতে অংশ নেওয়া ১০ দল মুখোমুখি হবে একে অন্যের।

অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট নয় টি-টোয়েন্টি

বাংলাদেশের সঙ্গে টেস্ট কিংবা ‌ওয়ানডে নয়, টি=টোয়েন্টি খেলতে চাইছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড (সিএ)। বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ বাতিল করে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রস্তাাব দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে।

চলতি বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দুই টেস্ট ও তিন ওয়ানডের সিরিজ খেলতে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ দলের। তবে অর্থনৈতিকভাবে লাভজনক হবে না, এই কারণ দেখিয়ে বিসিবি’র সাথে আলোচনা করেই সিরিজ বাতিল করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। বদলে ২০১৯ সালে অস্ট্রেলিয়াতে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

তবে বিষয়টি নিয়ে এখনো আলোচনা চলছে। বাংলাদেশ প্রথম ও শেষবারের মত অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সফরে গিয়েছিল ২০০৩ সালে। গত বছর বাংলাদেশে দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে এসেছিল অজিরা। সিরিজটি ১-১ এ ড্র হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়া সফরে গেলে বাংলাদেশ ম্যাচ খেলত উত্তর অস্ট্রেলিয়ায়। ঐতিহাসিকভাবেই আগস্ট-সেপ্টেম্বরে ওই অঞ্চলে টেস্টের দর্শক পাওয়া যায় না। তাছাড়া টিভি সম্প্রচারকরাও ফুটবল মৌসুমের মাঝে এই সিরিজটি সম্প্রচারে আগ্রহী ছিলো না। তাই দুই বোর্ডের সমঝোতাতেই সফরটি বাতিল হয়েছে বলে জানান সিএ’র এক মুখপাত্র, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমেই আইসিসি’র এফটিপিতে আগস্টে বাংলাদেশের সফর বাতিল করা হয়েছে।’

তবে বাংলাদেশকে একেবারে বঞ্চিত করতে চায় না অস্ট্রেলিয়া। তাদের মাটিতেই ২০২০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজিত হবে। এর প্রস্তুতির জন্য এবং টাইগারদের অস্ট্রেলিয় কন্ডিশনে খাপ খাওয়াতে সাহায্য করার জন্য ২০১৯ সালে টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজন করতে চায় সিএ। এটি ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টও হতে পারে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী, এই বছর সিরিজটি না হলেও বিকল্প পথের চিন্তা করছে তারা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা শেষে ২০১৯ সালের শেষ দিকে একটি তিন জাতির টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার প্রস্তাব দিয়েছে সিএ। ২০২০ সালের বিশ্ব টি-টোয়েন্টির আগে অস্ট্রেলিয়ান কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে সহায়ক হবে ধরে নিয়ে এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছে তারা।

দেরাদুন স্টেডিয়ামের কথা

উত্তরখন্ডের রাজধানী দেরাদুনের রাজিব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম হতে চলছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্থানের তিনটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্ট ম্যাচ। আগামী ৩, ৫ ও ৭ জুন হবে এই তিনটি ম্যাচ। বাংলাদেশ সময় সাড়ে রাত আটায় শুরু হবে দিন-রাতের ম্যাচগুলো।

২০১৬ সালে হিমালয়ের কোলে অতি সুন্দর করে এই স্টেডিয়ামটি তৈরি হয়। এটি ভারতের সবচেয় সুন্দর স্টেডিয়ামগুলোর একটি। ২৫ হাজার দর্শক আসনের এই স্টেডিয়ামটা পুরো উত্তরখন্ডের একটাই বড় খেলার মাঠ। এই স্টেডিয়াম তৈরিতে ব্যয় হয় ২৩৭ কোটি টাকা। ২৩ একর জমির ‌ওপর তৈরি করা এই স্টেডিয়ামের সঙ্গে আছে আধুনিকমানের সুইমিং পুল, কর্পোরেট বক্স, ক্লাব হাউজিং এবং ফ্লাডলাইট। তাছাড়া ভিআইপিদের জন্য অনন্য বৈশিষ্ট্যমন্ডিত বিলাসবহুল রুম‌ও আছে এখানে।

এইসব বিবেচনায় আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনে দেরাদুনকে খুব বেশিদিন অপেক্ষা করতে হয়নি। ২০১৫-১৬ সালে নিজেদের হোম গ্রাউন্ড হিসাবে ব্যবহার করেছিলো আফাগানিস্থান। ভারতের ক্রিকেটর সর্বোচ্চ সংস্থা বিসিসিআইর অনুমতি সাপেক্ষে এই স্টেডিয়ামকে হোম ভেন্যু ঘোষনা করে আফগানিদের জন্য।

এর আগে, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান একবারই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছিল। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সে ম্যাচটি জিতেছিল বাংলাদেশ। বর্তমানে টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে আফগানিস্তান আট ও বাংলাদেশ আছে দশ নম্বরে।

মুম্বাইয়ের কাছে ১০২ রানে হার কোলকাতার

বিশাল রানের টার্গেটের সামনে রীতিমতো নাকানি-চোবানি খেলো বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের কোলকাতা। বুধবার আইপিএলে ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে কলকাতাকে ১০২ রানে হারিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এই জয়ে ১১ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলির চতুর্থ স্থানে উঠে এলো রোহিত শর্মার দল।

টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে কোলকাতাকে ২১১ রানের টার্গেট দেয় মুম্বাই। জবাবে ব্যাট করতে নেমে পুরো ওভার শেষ করার আগেই ধসে যায় কলকাতার ইনিংস। ১০২ রানে হেরে এ যাত্রায় আর নক-আউটে যাওয়া হল না কোলকাতার।

শুরুটা করে দিয়েছিলেন সূর্যকুমার যাদব ও লুইস। সূর্যকুমারের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রানের ইনিংস। লুইসের রান ১৮। এরপর মুম্বাই ইনিংসের হাল ধরেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। সঙ্গে ঈশান কিষান। রোহিত শর্মা ৩৬ রানে আউট হলে‌ও ঈশানের ব্যাট থেকে আসে ৬২ রান। হার্দিক পাণ্ডিয়া ১৯ ও বেন কাটিংয়ের ২৪ রানে ভর করে ৬ উইকেটে ২১০ রানের বিশাল স্কোর গড়ে মুম্বাই।

জবাবে ব্যর্থ কোলকাতার ব্যাটিং। ১৮.১ ওভারে ১০৮ রানেই শেষ হয়ে দিনেশ কার্তিকের দল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২১ রান নীতিশ রানা ও ক্রিস লিনের। মুম্বাইয়ের হয়ে দু’টি করে উইকেট নেন ক্রুনাল পাণ্ডিয়া ও হার্দিক পাণ্ডিয়া।

৩১ সদস্যের প্রাথমিক দল বাংলাদেশের

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের জন্য ৩১ জনের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। একেবারে নতুন হিসেবে দলে জায়গা পেয়েছেন ইয়াসিন আরাফাত ‌ও সাদমান ইসলাম।

প্রাথমিক দলের সদস্যরা হলেন- তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মাশরাফি বিন মর্তুজা, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, নাঈম হাসান, আবু হায়দার রনি, কামরুল ইসলাম রাব্বি, রুবেল হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, এনামুল হক বিজয়, আবু জায়েদ রাহি, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাজমুল ইসলাম অপু, মোহাম্মদ মিঠুন, আরিফুল হক, শফিউল ইসলাম, সাদমান ইসলাম, ইয়াসিন আরাফাত, আবুল হাসান রাজু ‌ও খান আব্দুর রাজ্জাক।

বাংলাদেশ-আফগান সিরিজের সূচি

ভারতে, আফগানিস্তান ‌ও বাংলদেশের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের ভেন্যু ‌ও খেলার সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। দেহারদুনে ভারতের নবনির্মিত স্টেডিয়ামে জুনের প্রথম সপ্তাহে টাইগাররা এই সিরিজটি খেলবে।

শুরুতে প্রস্তাব ছিল দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজের। পরে দুই বোর্ড মিলে সিদ্ধান্ত নেয় ওয়ানডের বদলে টি-টোয়েন্টি খেলার। এই সিরিজে অংশ নিতে আগামী ৩১ মে ভারতের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল। একদিন করে বিরতি দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচগুলো। সিরিজের প্রথম ম্যাচ ৫ জুন, দ্বিতীয়টি ৭ এবং শেষটি ৯ জুন। বাংলাদেশের বিপক্ষে এই সিরিজের পরই ভারতের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের প্রথম টেস্টটি খেলবে আফগানিস্তান।

তৃতীয় স্থানে পাঞ্জাব

আইপিএলে রাজস্থান ‌রয়েলসকে ৬ উইকেটে হারালে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। এই জয়ে ১০ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের তৃতীয় স্থানে উঠে এলো রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দল।

রাজস্থানের দেওয়া ১৫৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি পাঞ্জাবের। দলের ২৯ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে তারা। আগের ম্যাচে ফিফটি পাওয়া ক্রিস গেইল আউট হন মাত্র ৮ রানে। ২ রান করেন আগরওয়াল। এরপর দলের কান্ডারি হয়ে হাল ধরেন লোকেশ রাহুল। লোকেশ রাহুল দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৪ রান করেন এবং করুণ নায়ারেপ ব্যাট থেকে আসে ৩১ রান।রাজস্থানের বোলারদের পক্ষে বেন স্টোকস, গৌতম ও অ্যার্চার একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে জস বাটলারে ৩৯ বলে ৫১ ও সঞ্জু স্যামসনের ২৩ বলে ২৮ রানের উপর ভর করে ১৫২ রান তোলে আজিঙ্কা রাহানের দল। আফগানিস্থানের মজিবুর রহমান ২৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হন। এই হারে পয়েন্ট টেবিলের সবচেয়ে নিচে চলে আসলো রাজস্থান রয়েলস।

কোলকাতাকে হারাল মুম্বাই

আইপিএলের ম্যাচে কোলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৩ রানে হারিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অবস্থান এখন লিগ টেবিলের পঞ্চমে। এই নিয়ে আইপিএলে টানা সাতবার কোলকাতাকে পরাজিত করলো মুম্বাই।

ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে, ১৮২ রানে জয়ের টার্গেটে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৬৮ রানে থামে কোলকাতার ইনিংস। ৩৫ বলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন রবিন উথাপ্পা। ৩৬ রান করে অপরাজিত থাকেন অধিনায়ক দিনেশ কার্তিক। মুম্বাইয়ের বোলারদের মধ্যে ম্যাচ সেরা হার্দিক পান্ডিয়া ১৯ রানে নেন ২ উইকেট।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করে, সূর্যকুমার যাদবের ৫৯ রানে ভর করে ৪ উইকেটে ১৮১ রান তোলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এভিন লুইস করেন ৪৩ এবং পান্ডিয়া ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

শীর্ষে এবার হায়দ্রাবাদ

আইপিএলের ইদুর দৌড়ে সবাইকে পেছনে ফেল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছে সাকিব আল হাসানের দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুন্য দেখিয়ে চলতি বছর সর্বোচ্চ রানের টার্গেট চেজ করে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে উইলিয়ামসন-শিখর ধা‌ওয়ানদের দল হায়দ্রাবাদ।

শিখর ধাওয়ানের স্ত্রী আয়েশা মুখার্জি

হায়দ্রাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে টসে জিতে দারুণ সূচনা করে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ১০ ‌ওভারেই দলের সংগ্রহে ৯৫ রান যোগ করে দুই উইকেট হারানো দিল্লি। এরপর রান তোলার সেই গতি আর ধরে রাখতে পারেনি তারা। তাতে ৫ উইকেটে ১৬৩ রান তোলে শ্রেয়াস আয়ারের দল। দলের পক্ষে ৩৬ বলে সর্বোচ্চ ৬৫ রান করেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পৃথিবী শ’। শ্রেয়াসের ব্যাট থেকে আসে ৪৪ রান।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের কোচ টম মুডির স্ত্রী হেলেন

আফগানিস্তানের স্পিনার রশীদ খান ২৩ রানে ২ উইকেট তুলে নেন। সাকিব আল হাসান ৩৪ রান খরচা করলে‌ও উইকেট বঞ্চিত থাকেন।

সানরাইজার্সের সমর্থকদের উল্লাস

জবাবে শুরু থেকেই মারমুখি ছিলেন সানরাইজার্সের ‌ওপেনাররা। শিখর ধা‌ওয়ান ‌ও অ্যালেক্স হেলস উদ্বোধনী জুটিতে তোলেন ৭৬ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করে হেলস সাজঘরে ফেরেন। ধা‌ওয়ান করেন ৩৩ রান। শেষ পর্যন্ত ইউসুফ পাঠানের ১২ বলে ২৭ রানের ঝড়ে এক বল আগেই ১৭৪ রান করে জয় নিশ্চিত করে ৩ উইকেট হারানো সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। এই জয়ে ৯ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে গেলো কেন উইলিয়ামসন-সাকিবদের দল।