সন্ধ্যা ৬:০৪, বৃহস্পতিবার, ১৯শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং

ইউএস ‌ওপেন চ্যাম্পিয়ন স্লোয়ানি স্টেফান এবার মিয়ামি ‌ওপেন টেনিসের শিরোপা জিতলেন। প্রতিযোগিতার ফাইনালে লাটভিয়ার জেলেনা ‌ওস্তাপেঙ্কোকে ৭-৬, ‌ও ৬-১ গেমে পরাজিত করে স্ল‌োয়ানি মিয়ামি ‌ওপেনে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টেফান শুরুর দিকে কিছুটা টেনসনে ছিলেন। তাতে প্রথম সেটে আটবার ‌ওস্তাপেঙ্কো এগিয়‌েও যান। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি টাইব্রেকারে ৭-৬ গেমে প্রথম সেট জেতেন।

দ্বিতীয় সেটে পুরো ছন্দে ফেরেন স্লোয়ানি। ‌ওয়ার্ল্ড নাম্বার ‌ফাইভ ‌ওস্তাপেঙ্কোকে তিনি কোনো পাত্তাই দেননি আর। ৬-১ গেমের জয়ে শিরোপা জেতেন।

অবশ্য এই দুই গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ীর এটাই প্রথম সাক্ষাত ছিল। মিয়ামি ‌ওপেন শিরোপা জেতার পথে স্লোয়ানি সাবেক তিনজন গ্র্যান্ডস্ল্যাম চ্যাম্পিয়নকে পরাস্ত করেন।

বাংলাদেশের ইব্রাহিমের প্রথম স্বর্ন জয়

তৃতীয় দক্ষিণ এশিয়ান আরচ্যারী চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ দিনে স্বাগতিক বাংলাদেশের ইব্রাহিম প্রথম স্বর্ন জিতলেন। বিকেএসপিতে, আজ মঙ্গলবার পুরুষ ব্যাক্তিগত রিকার্ভ ইভেন্টে, স্বাগতিক দলের আরেক প্রতিযোগী রুমান সানাকে ৬-২ সেট পয়েন্টে পরাজিত করে স্বর্ন পদক জেতেন, ইব্রাহিম শেখ রেজওয়ান।

সাউথ এশিয়ান আরচারী চ্যাম্পিয়নশিপে ইব্রাহিম শেখ রেজওয়ান

প্রথম স্বর্ণ জয়ের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে ইব্রাহিম বলেন, প্রতিটা তীর মারার সময় বুকের মধ্যে কাঁপ ছিলো। রুমান ভাইকে হারাতে পারবো ভাবতেও পারিনি। গতকাল থেকেই ভাবছিলাম আমি আমার মত খেলবো এবং রৌপ্য পদক পাবো। কিন্তু মাঠে ঘটনা বদলে যায়। খুব ভাল লাগছে ভাল লাগছে যে আমার হাত দিয়ে এবারের ৩য় সাউথ এশিয়ান আরচারী চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম স্বর্ণটি পেল বাংলাদেশ।
খেলা শেষে দুজনকেই অভিনন্দন জানান ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন আহমেদ চপল।

দক্ষিণ এশিয়ান আরচ্যারী চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ দিনে ১০টি স্বর্ণ, ১০টি রৌপ্য ও ১০ ব্রোঞ্জ পদক জয়ের লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের প্রতিযোগিতা।

প্রীতি ম্যাচে ব্রাজিলের জয়

১৩ মিনিটে তিন গোলে, শুক্রবার রাতে মস্কোয় প্রীতি ম্যাচে এবারের বিশ্বকাপ ফুটবলের স্বাগতিক রাশিয়াকে ৩-০ ব্যবধানে পরাজিত করেছে সবার আগে বিশ্বকাপের মূল পর্বে ওঠা ব্রাজিল। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর মিরান্দা, কুটিনহো এবং পাওলিনহোর কল্যাণে জয় পায় সেলেসা‌ওরা। চলতি বছর এটি ব্রাজিলের প্রথম জয়।

শুরুতে কিছুটা ছন্দহীন ব্রাজিল দ্রুতই নিজেদের খুঁজে পায়। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে তারা; কিন্তু শেষটা ভালো হচ্ছিল না। প্রথমার্ধে দুই-তৃতীয়াংশের বেশি সময় বল দখলে রেখেও তাই প্রতিপক্ষের গোলরক্ষককে বড় কোনো পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি তিতের দল।

২৫ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে কুটিনহোর জোরালো ঠেকিয়ে দিতে কোন সমস্যাই হয়নি রাশিয়ান গোলরক্ষকের। দুই মিনিট পর গোল করার সুযোগ পেয়ে ব্যর্থ হন উইলিয়ান।

বিরতির আগে সেরা সুযোগটি অবশ্য পায় স্বাগতিকরা। ৩৭ মিনিটে ১০ গজ দূর থেকে উড়িয়ে মারেন মিডফিল্ডার আলেকসেই মিরানচুক।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে ডি-বক্সের মধ্যে থেকে পাওলিনহোর নেওয়া শট ঠেকান ইগর আকিনফিভ। চার মিনিট পর ব্রাজিলের আরেকটি প্রচেষ্টা গোলরক্ষকের মাথায় লেগে বাইরে চলে যায়।

৫৩ মিনিটে অপেক্ষা শেষ হয় ব্রাজিলের। ডান দিক থেকে উইলিয়ানের ক্রসে সিলভার হেড ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক; কিন্তু ফিরতি বল জালে জড়িয়ে ব্রাজিলকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন ইন্টার মিলানের ডিফেন্ডার মিরান্দা।

৬২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বার্সেলোনার মিডফিল্ডার কুটিনহো। নিজেদের ডি-বক্সে পাওলিনহোকে রাশিয়ান খেলোয়াড় ফাউল করলে, পেনাল্টি পায় অতিথিরা। স্পট কিকে দলকে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেনকুটিনহো।

এই গোলের চার মিনিট পর উইলিয়ানের ক্রসে মাথা ছুইয়ে দলের পক্ষে তৃতীয় গোলটি করেন বার্সেলোনার আরেক মিডফিল্ডার পাওলিনহো।

বিশ্বকাপ ফুটবলের পরবর্তী প্রীতি ম্যাচে আগামী মঙ্গলবার বার্লিনে, ব্রাজিল মুখোমুখি হবে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানির। আর সেন্ট পিটার্সবার্গে একই দিনে রাশিয়া লড়বে ফ্রান্সের বিপক্ষে।

চেলসিকে বিদায় করে কোয়ার্টারে বার্সা

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে লি‌ওনেল মেসির শততম গোলের দিনে চেলসিকে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা। ন্যূ কাম্পে, মেসির জোড়া গোলে ইংলিশ দল চেলসিকে হারায় তারা ৩-০ ব্যবধানে। তাতে ৪-১ গোল গড়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠলো বার্সেলোনা।

অবশ্য কোয়ার্টার ফাইনালে ‌ওঠার সমীকরণটা ছিলো খুব সোজা। চেলসির ম্যাঠে ১-১ গোলে প্রথম পর্বে ড্র করায় যে দল জিতবে সে-ই পাবে শেষ আটের টিকিট। এমন হিসেবের ম্যাচে, মাত্র তৃতীয় মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন মেসি। ডান দিক থেকে আক্রমণে ওঠা এই তারকা ফরোয়ার্ড দেম্বেলের সঙ্গে পাস দেওয়া-নেওয়ার চেষ্টায় ছিলেন; কিন্তু সতীর্থের বাড়ানো বল মার্কো আলোনসোর পায়ে লেগে চলে যায় সুয়ারেসের কাছে। উরুগুয়ে স্ট্রাইকারের ফিরতি পাস পেয়ে বাইলাইনের কাছ থেকে ডান পায়ে শট নেন মেসি। বল গোলরক্ষকের দুপায়ের মধ্যে দিয়ে জড়ায় জালে।

দ্বিতীয় গোলও নিজেদের ভুলে হজম করে চেলসি। খেলার ২০ মিনিটে মাঝমাঠে সেস ফাব্রেগাসের ভুলে বল পেয়ে যান মেসি। একজনকে কাটিয়ে, আরেক জনকে দারুণ ক্ষিপ্রতায় এড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ডান দিকে ডেম্বেলেকে পাস দেন। জোরালো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। বার্সেলোনার হয়ে এটাই তার প্রথম গোল।

বিরতির ঠিক আগে ব্যবধান কমাতে পারত চেলসি। কিন্তু মার্কো আলোনসোর নেওয়া ফ্রি-কিক পোস্টে লাগলে আর ফেরা হয়নি তাদের।

উল্টো বিরতি থেকে ফিরে খেলার ৬৩ মিনিটে সুয়ারেসের কাছ থেকে বল পেয়ে কোনাকুনি শটে আবার‌ও চেলসির গোলকিপার কর্তোয়ার দুপায়ের ফাঁক দিয়ে বল জালে পাঠান পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এবারের আসরে এটা তার ষষ্ঠ ও সব মিলিয়ে ১০০তম গোল।

বার্সেলোনা ছাড়া‌ও কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠা বাকি দলগুলো হলো-গত দুবারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ, গতবারের রানার্সআপ জুভেন্টাস, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার সিটি, সেভিয়া, বায়ার্ন মিউনিখ ও রোমা।

শেষ আটে বায়ার্ন মিউনিখ

বড় জয় দিয়েই উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে পৌছে গেলো বায়ার্ন মিউনিখ। বেসিকতাসের মাঠে বুধবার রাতে, ৩-১ ব্যবধানে হারায় তারা স্বাগতিক দলকে। অবশ্য প্রথম লেগে নিজেদের মাঠ আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায়, ৫-০ গোলের জয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালের পথে এক পা দিয়েই রেখেছিলো তারা। এতে দুই লেগে ৮-১ ব্যবধানে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করলো জার্মান জায়ান্টরা। সেই সঙ্গে চলতি মৌসুমে শত গোল করার রেকর্ড‌ও ছুইলো বায়ার্ন।

খেলার ১৮ মিনিটে টমাস মুলারের বাড়ানো ক্রস ধরে নিখুঁত শটে লক্ষ্যভেদ করেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড চিয়াগো আলকানতারা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে আত্মঘাতী গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়। বিপদমুক্ত করতে গিয়ে গোখান গোনুল নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন। ৫৯ মিনিটে ভাগনার লাভের গোলে ব্যবধান কমায় বেসিকতাস।

তবে খেলার ৮৪ মিনিটের গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বায়ার্নের। সতীর্থের বাড়ানো ক্রস প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের গায়ে লাগার পর পেয়ে যান সান্ড্রো ভাগনার। ডি-বক্সের মাঝামাঝি থেকে দলকে তৃতীয় গোলটি পাইয়ে দেন জার্মানির এই ফরোয়ার্ড।

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ‌ওঠার পাশাপাশি জার্মান জায়ান্টরা সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে শত গোলের মাইলফলক‌ও স্পর্ম করলো। ৩৯ ম্যাচে তাদের গোল সংখ্যা বেড়ে এখন হলো ১০২ টি। তারমধ্যে ৬৫টি বুন্দেস লিগায়, ১৮টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে, ১৪টি DFB Pokal কাপে, এবং DFL-Supercup ফাইনালে করেছে ২টি গোল। অবশ্য সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মোট ২৯টি গোল হজম করতে হয়েছে জাপ হেইঙ্কসের দলকে।

এবার ব্যাঙ্গালুরুর কাছে আবাহনীর হার

http://https://www.youtube.com/watch?v=NI1R7YlxlE8

ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে‌ও পারলো না আবাহনী। নিউ রেডিয়েন্টের মতো ব্যাঙ্গালুরু এফসি বিপক্ষেও পা‌ওয়া সুযোগগুলোর সঠিক ব্যবহার করতে না পারায় পরাজয় নিয়েই দেশে ফেরার টিকিট কাটতে হয় সাইফুল বারী টিটুর দলের। এএফসি কাপের ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে শ্রী কান্তেরাভা স্টেডিয়ামে ব্যাঙ্গালুরুর কাছে ১-০ গোলে পরাজিত হয় বাংলাদেশর দল আবাহনী।

নিজেদের মাঠ এএফসি কাপে গত নয় ম্যাচে আট জয় ও এক ড্রয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলতে নামা ব্যাঙ্গালুরু শুরু থেকে বলের নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে ছিল। কিন্তু পোস্টে শট নেওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে ছিল গত এএফসি কাপে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভারতের দলটিকে ২-০ গোলে হারানো আবাহনী।

খেলার ১৪ মিনিটে ৪০ গজেরও বেশি দূর থেকে নেওয়া মামুন মিয়ার জোরালো শট অল্পের জন্য ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়। দুই মিনিট পর মামুনের ক্রসে জাপানি মিডফিল্ডার সেইয়া কোজিমার হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে আবাহনীর হতাশা বাড়ে।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে ওয়ালী ফয়সালের ক্রসে আবাহনীর নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এমেকা ডারলিংটনের হেড গোলের ঠিকানা খুঁজে পায়নি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে আবাহনীর রক্ষণে চাপ দিতে থাকে ব্যাঙ্গালুরু। ৪৯ মিনিটে ড্যানিয়েল লালহিলিমপুইয়ার শট ফেরান গোলরক্ষক শহিদুল ইসলাম সোহেল। ৫৩ মিনিটে ভিক্টর পেরেসের প্রচেষ্টা‌ও সফল হয়নি।

এলিসন উডোকার দুটি হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে আবাহনীর হতাশা আরও বাড়ে। ৫৮ মিনিটে ওয়ালীর ক্রসে এবং ৬৩ মিনিটে রুবেল মিয়ার বাড়ানো বলে হেড করেছিলেন নাইজেরিয়া এই ডিফেন্ডার।

৭২ মিনিটের সুযোগ কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় ব্যাঙ্গালুরু। ড্যানিয়েল সেগোভিয়ার হেড করে বাড়ানো বল ডান পায়ের শটে জালে জড়িয়ে দেন ২০ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড লালহিলিমপুইয়া। শেষ পর্যন্ত এ গোলেই এএফসি কাপে শুভসূচনা করে ব্যাঙ্গালুরু। এর আগে, মালদ্বীপের দল নিউ রেডিয়েন্টের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচে‌ও ১-০ ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশের জায়ান্ট আবাহনী।

থাইল্যান্ডকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিল বাংলাদেশ

ওমান থেকে এস এম আশরাফ

ওমানে এশিয়ান গেমস হকির বাছাইপর্বে থাইল্যান্ডকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচের প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে ছিলো মাহবুব হারুনের দল।

যতই ফেবারিটের তকমা থাকুক না কেনো। প্রথম ম্যাচে স্নায়ুর পরীক্ষা থেকেই যায়। সেই পরীক্ষায় ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকেই বাংলাদেশ এগিয়ে গেলো দুর্বার গতিতে। ১৪ মিনিটে সরোয়ারের স্টিকে প্রথম আর ২৭ মিনিটে নিলয় দিলেন দ্বিতীয় গোল।

একদিকে আক্রমন অন্যদিকে প্লেসিং এই দুইয়ের মিশেলে দিশেহারা থাইল্যান্ডের রক্ষলভাগ। মিলন আর রোমানের স্টিক কথা বললে ৪৭ মিনিটে চার গোলে এগিয়ে যায় লাল সবুজের দল।

প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা ইমন  প্রতিপক্ষকে কাপিয়েছেন। গোল পাননি তবে যোগান দিয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন জিমি। কথা বলেছে অভিজ্ঞ চয়নের স্টিকও। গোল হতে পারতো আরো গোটা চারেক। শেষ পর্যন্ত চয়নের স্টিকে বাংলাদেশ সন্তষ্ট ৫-০ ব্যবধান নিয়েই।

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক রাসেল মাহমুদ জিমি

তবু প্রথম ম্যাচ জয়ে সন্তষ্ট ম্যাচ সেরা জিমি। বললেন, আমরা একটি দল হিসেবে খেলতে চেয়েছি। মাঠে সেটা করে দেখাতে পেরেছি বলেই সবচেয়ে বেশি ভাল লাগছে। আমরা আসলে এমনটাই চেযেছিলাম। আর প্রথম ম্যাচ বলেই হয়তো সবার কাছে একটু অন্যরকম লাগছিল। তবে আমরা আরো ভাল খেলার আশা রাখি।

আগামীকাল রোববার দ্বিতীয় ম্যাচে হংকংয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

এজবাস্টনের বাংলাদেশের অনুশীলন

এজবাস্টনে আজ অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। কারণ বার্মিংহামের এই এজবাস্টন স্টেডিয়ামেই আগামীকাল প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ দল মুখোমুখি হবে পাকিস্তানের। আগামী ৩০ মে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে টাইগাররা মুখোমুখি হবে ভারতের। ম্যাচটি হবে লন্ডনের কেনিংটন ওভালে। এরপর আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচে কেনিংটন ওভালেই স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে মাশরাফিরা।

*** বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ভিডিও ফুটেজ ও মাশরাফির ইন্টারভিউ সংযুক্ত করা হলো। ***