ইংল্যান্ডের সেমিফাইনাল নিশ্চিতের লড়াই কাল

ইংল্যান্ডের সেমিফাইনাল নিশ্চিতের লড়াই কাল

তিন ম্যাচের সব ক’টিতে জিতে ইতোমধ্যে সেমিফাইনালের দ্বারপ্রান্তে ইংল্যান্ড। আর ১টি জয় সেমির টিকিট নিশ্চিত হবে ইংলিশদের। তাই সেমিফাইনাল নিশ্চিতে জয়ের লক্ষ্যে আগামীকাল সোমবার টি-টোয়েন্ট বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে সুপার টুয়েলভে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে শ্রীলংকার মুখোমুখি হচ্ছে ইংল্যান্ড। এদিকে ৩ ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে সেমির আশা এখনো বাঁচিয়ে রেখেছে শ্রীলংকা। তাই সেমির দৌঁড়ে টিকে থাকতে থাকতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেতে মরিয়া লংকানরা। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগামীকাল বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি। 

সুপার টুয়েলভে দুর্বার ইংল্যান্ড তিন ম্যাচেই দাপট দেখিয়ে জয় পেয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬ উইকেটে, বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটে হারায় ইয়োইন মরগানের দল। এই তিন ম্যাচেই ইংল্যান্ডের বোলারদের পারফরমেন্স ছিলো চোখে পড়ার মত। প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫৫ রানে, এরপর বাংলাদেশকে ১২৪ ও অস্ট্রেলিয়াকে ১২৫ রানের মধ্যে আটকে রাখে ইংলিশ বোলাররা।

প্রতিপক্ষের মাথা ব্যাথার কারণ ইংল্যান্ডের পাঁচ বোলার- তিন পেসার টাইমাল মিলস, ক্রিস জর্ডান ও ক্রিস ওকস। আর দুই স্পিনার আদিল রশিদ ও মঈন আলি। আসরে তিন ম্যাচ খেলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭ উইকেট নিয়েছেন মিলস। জর্ডান-ওকসের শিকার ৪টি করে উইকেট। মঈনও নিয়েছেন ৪ উইকেট। তবে বল হাতে শুরুতে কার্যকরী ভূমিকা রাখছেন মঈন।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে ইনিংসের তৃতীয় ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে টাইগারদের দুই ওপেনারকে ফিরিয়ে শুরুতেই ইংল্যান্ডকে চালকের আসনে বসিয়ে দেন  মঈন। ইনিংসের শুরুতে মঈন  প্রতিপক্ষের চিন্তার কারন হলেও মাঝের ওভারগুলোতে প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে পারদর্শিতা দেখাচ্ছেন রশিদ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বল হাতে আলো ছড়িয়েছিলেন তিনি। ২ রানে ৪টিসহ আসরে ৫ উইকেট নিয়েছেন রশিদ।

বোলারদের নৈপুন্য ব্যাটারদের কাজকে সহজ করে দিচ্ছে। ছোট টার্গেট স্পর্শ করতে কোন সমস্যায় পড়তে হচ্ছে না জেসন রয়-জশ বাটলার-জনি বেয়ারস্টো-ডেভিড মালানদের। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছেন জশ বাটলার। ৩২ বলে অপরাজিত ৭১ রান করেন তিনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩৮ বলে ৬১ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন জেসন রয়।

অন্য দিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫ উইকেটের জয়ে সুপার টুয়েলভ শুরু করে শ্রীলংকা। তবে পরের দুই ম্যাচে হেরে যায় লংকানরা। অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৭ ও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৪ উইকেটে ম্যাচ হারে শ্রীলংকা। শ্রীলংকার টপ-অর্ডারে তিন ব্যাটারই সেরা ফর্মে আছেন। পাথুম নিশাঙ্কা আসরে এ পর্যন্ত ৬ ইনিংসে ২টি হাফ-সেঞ্চুরিতে সর্বোচ্চ ১৬৯ রান করেছেন।

চারিথ আসালঙ্কা ৪ ইনিংসে করেন ১৪২ রান। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ জয়ী ৮০ রানের ইনিংস ছিলো তার। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ জয়ের আরেক নায়ক ভানুকা রাজাপাকসে এখন পর্যন্ত করেছেন ১২৯ রান। ব্যাটারদের মত শ্রীলংকার বোলাররাও সেরা ফর্মে রয়েছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে হ্যাট্টিক করেন স্পিনার হাসারাঙ্গা ডি সিলভা। বাংলাদেশের সাকিব আল হাসানের সাথে আসরের সর্বোচ্চ ১১টি উইকেট হাসারাঙ্গার পকেটে। এছাড়া লাহিরু কুমারা-মাহেশ থিকসানার শিকার ৮টি করে উইকেট।

টি-টোয়েন্টিতে এ পর্যন্ত ১২বার মুখোমুখি হয়েছে শ্রীলংকা ও ইংল্যান্ড। আটবার জিতেছে ইংলিশরা। চারবার জয় শ্রীলংকার। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চারবারের দেখায় তিনবার ইংল্যান্ড ও একবার জিতে শ্রীলংকা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD