বিশ্বকাপে বাড়ছে নারী ক্রিকেট দল

বিশ্বকাপে বাড়ছে নারী ক্রিকেট দল

বিশ্ব নারী দিবসে উপলক্ষ্যে নারীদের জন্য বড় সুখবর দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। নারীদের ক্রিকেটের পরিধি বাড়াতে ২০২৩ সালের পর থেকে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্বকাপগুলোতে আরো বেশি সংখ্যক দেশের নারী জাতীয় দল অংশ নিতে পারবে। যা চলবে ২০৩১ সাল পর্যন্ত। ফলে ভবিষ্যতে আরো বেশি ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেতে যাচ্ছেন বিশ্বের নারী ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেটের বর্তমান সূচি চক্র অনুযায়ী, ২০২৫ সাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নারীদের ওয়ানডে বিশ্বকাপ অংশ নিতে পারবে ৮ দল, ম্যাচসংখ্যা ৩১ টি। নতুন নিয়মে এর পর থেকে ১০ দলের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে এই টুর্নামেন্ট। একইভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও বাড়বে দল এবং ম্যাচের সংখ্যা। বর্তমান নিয়মে যেখানে সুযোগ পেত ১০ দল, সেখানে নতুন নিয়মে সুযোগ পাবে ১২ দল। ম্যাচের সংখ্যা ২৩ থেকে উন্নীত হবে ৩৩ এ।
 
ঠিক এক বছর আগে অনুষ্ঠিত হয়েছিল নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল। যেখানে ভারতকে হারিয়ে শিরোপা অর্জন করেছিল অস্ট্রেলিয়া। মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত হওয়া ফাইনালে সেদিন ৮৬ হাজার ১৭৪ জন দর্শক মাঠে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেছিল। যা নারীদের ক্রিকেটে আর কখনো ঘটেনি। আর নারীদের ক্রিকেটের প্রতি দর্শকদের এমন আগ্রহে অনুপ্রাণিত হয়েই দল সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আইসিসির প্রধান নির্বাহী মানু সোহনি বলেছেন, 'নারী ক্রিকেটের আসরগুলি প্রসারিত করার ব্যাপারে এই সিদ্ধান্ত। এর ফলে আরো বেশি সদস্য দেশ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রতিযোগিতা করার বড় সুযোগ পাবে। অর্থাৎ আরো বেশি দল আসন্ন বছরগুলোতে বাছাইপর্ব খেলার সুযোগ পাবে। আমি নিশ্চিত যে এসব পদক্ষেপের ফলে আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো এবং নারীদের খেলার পরিধি ও শক্তি আরো বেশি বৃদ্ধি পাবে।'

আইসিসির এই কর্মকর্তা আরও যোগ করে বলেন, 'গত চার বছরে নারী ক্রিকেটের ব্রডকাস্টিংয়ে আমূল পরিবর্তন আনতে পেরেছি আমরা। যা দর্শকদের নারী ক্রিকেটের আরও কাছে পৌঁছে দিয়েছে। ২০২০ সালের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রায় ১১শত কোটি দর্শক টিভির সামনে ছিল। এ ছাড়া ফাইনাল ম্যাচটিতে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে উপস্থিত ছিলেন ৮৬ হাজার ১শ ৭৪ জন দর্শক। যা কি না নারীদের ক্রিকেট আসর সর্বোচ্চ উপস্থিতির রেকর্ড।'

ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ছাড়াও ২০২৭ সাল থেকে টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স কাপ নামে নারীদের জন্য নতুন আর একটি আসরের আয়োজিত হবে। এই আসরের প্রথম সংস্করণে অংশ নেবে শীর্ষ ছয়টি দল। ম্যাচের সংখ্যা থাকবে ১৬ টি। ২০২৩ থেকে ২০৩১ সূচি চক্র অনুযায়ী এসব টুর্নামেন্টের আয়োজক নির্ধারণের জন্য খুব শীঘ্রই নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। যাতে অংশ নিতে পারবে আইসিসির সকল সদস্য দেশগুলো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD