ইংল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ দক্ষিণ আফ্রিকা

ইংল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ দক্ষিণ আফ্রিকা

ইংল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ হলো স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান ডেভিড মালানের ব্যাটিং নৈপুন্যে দক্ষিণ আফ্রিকাকে প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশ করলো ইংলিশরা। গতরাতে কেপটাউনে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ড ৯ উইকেটে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে। ফলে তিন ম্যাচের ৩-০ ব্যবধানে জিতেছে ইংলিশরা। প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি ম্যাচ যথাক্রমে ৫ ও ৪ উইকেটে জিতেছিলো ইয়ন মরগানের দল।

হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াতে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। স্বাগতিকদের উপরের সারির তিন ব্যাটস্যানকে বড় ইনিংস খেলতে দেননি ইংল্যান্ডের দুই পেসার বেন স্টোকস ও ক্রিস জর্ডান। তেম্বা বাভুমা ৩২ ও রেজা হেনড্রিক্স ১৩ রান করে স্টোকসের শিকার হন। জর্ডানের বলে ১৭ রানে থামেন অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক। এক পর্যায়ে ৬৪ রানে ৩ উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

সতীর্থরা না পারলেও, এরপর বড় জুটি গড়ার চেষ্টা করে সফল হন সাবেক অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস ও ভ্যান ডার ডুসেন। ব্যাট হাতে মারমুখী মেজাজে ছিলেন ডুসেন। ২৩ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের তৃতীয় হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন ডুসেন। ডুসেনের সাথে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ১০ম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে অপরাজিত থেকে ইনিংস শেষ করেন ডু-প্লেসিসও। চতুর্থ উইকেটে ডু-প্লেসিস-ডুসেনের ৬৪ বলে অবিচ্ছিন্ন ১২৭ রানের সুবাদে ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৯১ রানের বড় সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ডুসেন ৩২ বলে ৫টি করে চার-ছক্কায় অপরাজিত ৭৪ রান করেন। ৫টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৭ বলে অপরাজিত ৫২ রান করেন ডু-প্লেসিস।

ইংল্যান্ডের স্টোকস ২৬ রানে ২ উইকেট নেন।

১৯২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে চতুর্থ ওভারে ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। ওপেনার জেসন রয় ১৬ রানে বিদায় নেন। এরপর প্রোটিয়া বোলারদের উপর আধিপত্য বিস্তার করেন জশ বাটলার ও ডেভিড মালান। ঝড়ো গাতির ব্যাটিং করে ১১ ওভারে ১০৬ রান পেয়ে যায় ইংল্যান্ড। ২৫ বলে নবম হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংএ শীর্ষে থাকা মালান। আর ৩৪ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের দশম হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পান বাটলার।

শেষ পর্যন্ত বাটলার ও মালানের ৮৫ বলে অবিচ্ছিন্ন ১৬৭ রানে ১৪ বল বাকী রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। ৩টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৪৬ বলে অপরাজিত ৬৭ রান করেন বাটলার। সেঞ্চুরির দোড়গোড়ায় পৌছে ৯৯ রানে অপরাজিত থাকেন মালান। তার ৪৭ বলের ইনিংসে ১১টি চার ও ৫টি ছক্কা ছিলো। ম্যাচ ও সিরিজ সেরা হন মালান।

আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD