বড় জয় বায়ার্নের, শুরুতেই হোঁচট খেল রিয়াল

বড় জয় বায়ার্নের, শুরুতেই হোঁচট খেল রিয়াল

ফেভারিটদের জযের দিনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হার দিয়ে শুরু করলো স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নতুন মিশন শুরু করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। এ দিকে দিনের অপর ম্যাচগুলোতে লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটি জয় পেলেও প্রথম ম্যাচেই হেরে গেছে রিয়াল।

রেকর্ড ১৩ বারের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন মাদ্রিদ ঘরের মাঠ স্তাদিও ডি স্টিফানোতে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দোনেস্কের কাছে ৩-২ গোলে পরাজিত হয়েছে। এর মাধ্যমে জিনেদিন জিদানের দল আরো একবার প্রমান করলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবে বায়ার্ন এই প্রতিযোগিতায় যে ধরনের মান বজায় রেখে খেলে চলেছে তার থেকে বেশ খানিকটা দূরেই আছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা।

দুই মাস আগে লিসবনে প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইকে ফাইনালে পরাজিত করে শিরোপা জিতেছিল বায়ার্ন। আর নতুন মৌসুমেও জয়ের ধারা বজায় রেখে প্রথমেই বড় ম্যাচে এ্যাথলেটিকোকে পরাজিত করে গ্রুপ-এ’তে আধিপত্য ধরে রাখলো হান্সি ফ্লিকের শিষ্যরা। লিসবনের ফাইনালে গোল করা কিংসলে কোম্যানের হাত ধরে দর্শকবিহীন আলিয়াঁজ এরিনাতে ২৮ মিনেটে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। ফরাসী এই তরুণ এ্যাটাকারই ৭৭ মিনিটে দলের হয়ে চতুর্থ ও নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেছেন। এর মাঝে ৪১ মিনিটে লিওঁ গোয়েতজা ও ৬৬ মিনিটে ক্রোয়েনটিন টোলিসোর গোলে বায়ার্নের বড় জয় নিশ্চিত হয়।

ম্যাচ শেষে স্কাই স্পোর্টসকে কোম্যান বলেছেন, ‘গত মৌসুমের ফাইনালে জয়সূচক গোলটি আমাকে মানসিক ভাবে শক্তিশালী করে তুলেছিল। কিন্তু সেসব এখন অতীত, আমরা এবার নতুন একটি মৌসুম খেলতে মাঠে নেমেছি।’ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এটি বায়ার্নের টানা দ্বাদশ জয় হলেও দিয়েগো সিমিওনের অধীনে এ্যাথলেটিকোর জন্য সবচেয়ে বাজে পরাজয়ের স্মৃতি হয়ে থাকবে ম্যাচটি। লোকোমোটিভ মস্কোর বিপক্ষে পরবর্তী ম্যাচ খেলতে আগামী সপ্তাহে রাশিয়া সফরে যাবে বায়ার্ন।

বুধবার রেড বুল সালজবার্গের বিপক্ষে লড়াই করে ২-২ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে লোকোমোটিভ। অস্ট্রিয়ার মাঠে ১৯ মিনিটে এডারের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল লোকোমোটিভ। বিরতির ঠিক আগে ডোমিনিক জোবোসাজলাইয়ের দুর্দান্ত গোলে সমতা ফেরায় সালজবার্গ। ৫০ মিনিটে ডিফ্লেকটেড শটে স্বাগতিক সালজবার্গকে এগিয়ে দেন জøাটকো জুনুজোভিচ। ৭৫ মিনিটে ভিটালি লিসকোভিচের গোলে রাশিয়ান দলের এক পয়েন্ট নিশ্চিত হয়।

ঘরের মাঠে বিরতির আগে ৩-০ গোলে শাখতারের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। দ্বিতীয়ার্ধে দারুনভাবে লড়াইয়ে ফিরে এসেও মৌসুমের শুরুটা ভাল করতে পারেনি গ্যালাকটিকোরা। করোনাভাইরাসের কারনে শাখতার তাদের প্রথম দলের ১০জন খেলোয়াড় ও ৯জন সদস্যকে ছাড়া মাঠে নেমেছিল। যে কারনে মূল একাদশে সাতজন অনুর্ধ্ব-২১ কিংবা তারও কম বয়সী খেলোয়াড়কে খেলাতে বাধ্য হয় শাখতার।

তেতে ও মানোর সোলোমনের গোলের সাথে রাফায়েল ভারানের আত্মঘাতি গোলে ইউক্রেনিয়ার চ্যাম্পিয়নরা বিরতির আগেই ৩-০ গোলের লিড নেয়। লুকা মড্রিচ ও ভিনসিয়াস জুনিয়র ৫৯ মিনিটের মধ্যে দুই গোল করে মাদ্রিদকে লড়াইয়ে ফিরিয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেও শেষ রক্ষা হয়নি। ফেডে ভালভার্দের ডিফ্লেকটেড শট ইনজুরি টাইমে জালে জড়ালেও অফসাইডের কারনে তা বাতিল হয়ে যায়।

ইনজুরি আক্রান্ত সার্জিও রামোসের অনুপস্থিতিতে রিয়াল এখন পর্যন্ত তাদের শেষ সাতটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের হোম ম্যাচে মাত্র একটিতে জয়ের মুখ দেখেছে। শনিবার বার্সেলোনার বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোতে মাঠে নামার আগে গত পাঁচদিনে এটি তাদের দ্বিতীয় পরাজয়। মাদ্রিদ বস জিদান বলেছেন, ‘আমাদের সব জায়গায় কিছু কিছু বিষয়ের অভাব ছিল। কিন্তু সব মিলিয়ে আমি বলতে চাই আজকের ম্যাচে আত্মবিশ^াসের বড়ই অভাব ছিল যা একটি ম্যাচে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’

গ্রুপ-বি’র দিনের আরেক ম্যাচে সান সিরোতে ইন্টার মিলান ও বরুসিয়া মনচেনগ্লাডবাচ ২-২ গোলে ড্র করেছে। ইন্টারের হয়ে জোড়া গোল করেছেন রোমেলু লুকাকু। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এক গোল করার পর ম্যাচের শেষের দিকে দ্বিতীয় গোল করে সমতা ফেরান এই বেলজিয়ান তারকা। এর মাঝে রেমি বেনসেবাইনি পেনাল্টি থেকে গ্ল্যডবাচের হয়ে সমতা ফেরানোর পর জোনাস হফম্যান ৮৪ মিনিটে সফরকারীদের এগিয়ে দেন।

আমাস্টারডামে গ্রুপ-ডি’র প্রথম ম্যাচে ভার্জিল ফন ডাইককে ছাড়া লিভারপুল কোনরকমে ১-০ গোলে স্বাগতিক আয়াক্সকে পরাজিত করেছে। হাঁটুর ইনজুরির কারনে ফন ডাইকের মৌসুম শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু রেডস বস জর্গেন ক্লপের দল ঠিকই প্রথম ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট আদায় করে নিয়েছে। ৩৫ মিনিটে সাদ্রি মানের শট ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজের জালে জড়ান নিকোলাস টাগলিয়াফিকো। আর আত্মঘাতি এই গোলেই আয়াক্সের পরাজয় নিশ্চিত হয়।

ক্লপ বলেছেন, ‘এটা আমদের ফুটবলের ঝলক নয়। কিন্তু আমরা তিন পয়েন্ট চেয়েছিলাম এবং ম্যাচ শেষে সেটা পেয়েছি।’ আগামী সপ্তাহে মিডজিল্যান্ডকে আতিথ্য দেবার ম্যাচটিতে নিজেদের স্বাভাবিক খেলা ফিরিয়ে আনার আশা করছে ২০১৯ ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নরা। ড্যানিশ দল মিডজিল্যান্ড নিজেদের প্রথম ম্যাচে বুধবার আটালান্টার কাছে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে।

ঘরের মাঠে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত পোর্তোর বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে লুইস ডিয়াজ দুর্দান্ত গোলে ১৪ মিনিটে পোর্তোকে এগিয়ে দিয়েছিল । ২০ মিনিটে সার্জিও এগুয়েরো পেনাল্টি থেকে সমতা ফেরান। ৬৫ মিনিটে ইকে গুনডোগানের ফ্রি-কিক থেকে এগিয়ে যায় সিটিজেনরা। ৭৩ মিনিটে বদলী খেলোয়াড় ফেরান টরেস দুর্দান্ত গোলে সিটির জয় নিশ্চিত করেন।

গ্রুপ-সি’র আরেক ম্যাচে মিশরীয় বদলী খেলোয়াড় আহমেদ হাসানের স্টপেজ টাইমের গোলে অলিম্পিয়াকোস ১-০ গোলে মার্শেইকে পরাজিত করেছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD