টুর্নামেন্টে টিকে থাকার লক্ষ্য মাহমুদুল্লাহদের

টুর্নামেন্টে টিকে থাকার লক্ষ্য মাহমুদুল্লাহদের

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ফাইনালের দৌঁড়ে টিকে থাকার লক্ষ্য নিয়ে আগামীকাল সোমবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের পঞ্চম ম্যাচে তামিম একাদশের মুখোমুখি হচ্ছে মাহমুদুল্লাহ একাদশ। ম্যাচটি শুরু হবে বেলা ১টা ৩০ মিনিটে। ম্যাচটি সরাসরি ইউটিউব ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্র্ডে (বিসিবি) ফেসবুক পেইজে দেখা যাবে। বেসরকারী টেলিভিশন গাজী টিভিও সরাসরি ম্যাচটি দেখাবে।

ইতোমধ্যে তিন ম্যাচের দু’টিতে পরাজিত হয়ে চাপে পড়েছে মাহমুদুল্লাহ একদশ। নাজমুল একাদশের কাছে ৪ উইকেটে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করে তারা। তবে পরের ম্যাচে ঘুড়ে দাঁড়ায় মাহমুদুুল্লাহ একাদশ। তামিম একাদশকে ৫ উইকেটে হারায় দলটি। দ্বিতীয় পর্বে আবারো নাজমুল একাদশের কাছে ১৩১ রানের বড় ব্যবধানে হারে মাহমুদুল্লাহ একাদশ। ফলে পয়েন্ট টেবিলে রান রেটে অনেকখানি পিছিয়ে চাপে রয়েছে দলটি।

তামিম একাদশ দু’টি ম্যাচ খেলেছে। একটি করে জয় ও হারের স্বাদ পেয়েছে তারা। মাহমুদুল্লাহ একাদশের কাছে ৫ উইকেটে হারে তারা। তবে নাজমুল একাদশকে ৪২ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টের লড়াইয়ে থাকে তামিম একাদশ।

আগামীকাল মাহমুদুল্লাহ একাদশের জন্য বাঁচা-মরার লড়াই। ফাইনালের দৌঁড়ে টিকে থাকতে হলে তামিম একাদশের জন্যও ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ। মাহমুদুল্লাহ একাদশের কাছে হারলেও, ফাইনালের দৌঁড়ে টিকে থাকবে তামিম একাদশ। কারণ তাদের হাতে এরপর আরও একটি ম্যাচ রয়েছে। তবে হেরে গেলে মাহমুদুল্লাহ একাদশ টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিবে।

মাহমুদুল্লাহ একাদশের নেতৃত্বে আছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দলটি তিন ম্যাচের কোনটিতেই দলীয়ভাবে ২শ রান করতে পারেনি। প্রথম ম্যাচে নাজমুল একাদশের বিপক্ষে ১৯৬ রানে অলআউট হয় মাহমুদুল্লাহ একাদশ। ম্যাচটি ৪ উইকেটে হারে তারা। দ্বিতীয় ম্যাচে তামিম একাদশকে ১০৩ রানে গুটিয়ে দিয়ে ৫ উইকেটে ১০৬ রান করে ম্যাচ জিতে মাহমুদুল্লাহ একাদশ। তৃতীয় ম্যাচে নাজমুল একাদশের বিপক্ষে জয়ের জন্য ২৬৫ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ১৩৩ রানে গুটিয়ে যায় দলটি।

তাই মাহমুদুল্লাহ একাদশের বড় চিন্তার বিষয় হয়ে উঠেছে ব্যাটিং। সমস্যা সমাধানের জন্য দলের ব্যাটসম্যানদের ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে হবে।

প্রথম ম্যাচে ব্যাট হাতে নড়বড়ে পারফরমেন্স ছিলো তামিম একাদশের। ১২৫ রানে অষ্টম উইকেট পতনের পর শেখ মাহাদি হাসানের ৫৭ বলে ৮২ রানের সুবাদে ৯ উইকেটে ২২১ রানের সংগ্রহ পায় তারা। তবে দলের বোলাররা প্রতি ম্যাচেই দারুণ পারফরমেন্স করছেন। বিশেষভাবে তাদের পেসাররা। তরুণ শরিফুল ইসলাম, অভিজ্ঞ মুস্তাফিজুর রহমান ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন নিজেদের সেরাটা দিয়েছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD