অ-১৯ বিশ্বকাপ জয়ীদের হাতেই ক্রিকেটের ভবিষ্যত

অ-১৯ বিশ্বকাপ জয়ীদের হাতেই ক্রিকেটের ভবিষ্যত

চলমান বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে নজরকাড়া পারফরমেন্স করেছেন অনূধর্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী খেলোয়াড়রা। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের খেলোয়াড়দের ভবিষ্যত উজ্জ্বল বলে মনে করেন জাতীয় ক্রিকেট দলের দুই পেসার রুবেল হোসেন ও তাসকিন আহমেদ। বিসিবি প্রেসিডেন্ট কাপ দিয়ে যুবাদের সাথে খেলার অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন রুবেল ও তাসকিন। এই টুর্নামেন্টে অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড়কে দেখেছেন রুবেল-তাসকিন। যারা ভয় ছাড়াই যেকোন বোলারকে মোকাবেলা করেছেন।

তৌহিদ হৃদয়, মাহমুদুল হাসান জয়, রিশাদ আহমেদের মতো খেলোয়াড়দের ম্যাচ জেতানো ইনিংসের কারনে তাদের হাতে বাংলাদেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যত নিরাপদ। অধিনায়ক আকবর আলী, ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম, পারভেজ হোসেন ইমনদের মতো অন্য খেলোয়াড়রা টুর্নামেন্টে নিজেদের সেরাটা দিতে না পারলেও, গুরুত্বপূর্ণ সময়ে তারা জ্বলে উঠবে বলে অনেকেরই বিশ্বাস।

কোন খেলোয়াড়ের নাম না বললেও, সব মিলিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ খেলোয়াড়দের পারফরমেন্স আশানুরূপ ছিলো বলে মনে করেন রুবেল-তাসকিন। রুবেল বলেন, ‘অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের নির্বাচিত খেলোয়াড়রা সত্যিই ভালো খেলোয়াড়। তারা নিজেদের সেরাটা দিয়েছেন, যা খুবই আনন্দায়ক বিষয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি বিশেষ কোন খেলোয়াড়ের নাম বলবো না, তবে দু’তিনজন খেলোয়াড় আছে যাদের ভবিষ্যতে উজ্জল। আমি মনে করি, তারা বাংলাদেশের ভবিষ্যত তারকা।’

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের মতো একটি প্লাটফর্ম তৈরি করার জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাসকিন। এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে সিনিয়র খেলোয়াড়দের সাথে এবং বিপক্ষে খেলার সুযোগ পেয়েছে তরুণরা।

তাসকিন বলেন, ‘সবার জন্য দারুন এক প্লাটফর্ম তৈরি করার জন্য বিসিবিকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। এখানে সিনিয়রদের সাথে এবং বিপক্ষে খেলছে জুনিয়ররা। যা তাদের অভিজ্ঞ করছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘অনূর্ধ্ব -১৯ দলের কিছু ব্যাটসম্যান এবং বোলাররা তাদের সেরা প্রতিভা দেখিয়েছে। আশা করি তারা এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে পারবে এবং ভবিষ্যতেও ভালো করবে।’

যুবাদের পারফরমেন্সে অনেকেই আনন্দিত হলেও জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ভিন্ন মত দিয়েছেন। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের খেলোয়াড়দের প্রতি আরও ধৈর্য্যশীল হবার জন্য সকলকে অনুরোধ জানান ডোমিঙ্গো।

ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমি মনে করি, অনূর্ধ্ব-১৯ খেলোয়াড়দের উন্নতির জন্য আরও সময় দেয়া সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যা করতে চান না তা হলো একজন তরুণ খেলোয়াড়, বিশেষভাবে ব্যাটসম্যানকে খুব শীঘ্রই বাছাই করা। তবে তার কয়েকটি ব্যর্থতায়, তাকে দুই বা তিন বছরের জন্য বাদ দেন এবং তাকে ভুলে যান।’

কয়েক মাস আগে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয় করায় তাদের প্রতি প্রত্যাশা বেশি। কিছু তরুণ খেলোয়াড়, বিসিবির প্রেসিডেন্ট কাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছে। তবে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয় করা অধিনায়ক আকবর আলির মতো কিছু খেলোয়াড় অনেককে হতাশ করেছে।

তিনি বলেন, ‘আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্সের জন্য প্রস্তুত হলেই কেবল খেলোয়াড়দের তখন নির্বাচিত করতে হবে। জাতীয় দলে প্রবেশের পথটা অবশ্যই শক্ত হতে হবে। তাকে ঘরোয়া ক্রিকেটে বড় ধরনের পারফরম্যান্স করতে হবে এবং নিশ্চিত করতে হবে যে, সে প্রশিক্ষণ এবং ফিটনেসে শতভাগ সঠিক। যেভাবে সে তার জীবনকে নেতৃত্ব দেয় এবং দলের সংস্কৃতিতে সে ফিট হতে পারবে।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD