রাত ১২:১৪, রবিবার, ২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / ইংল্যান্ডের অপেক্ষার অবসান
ইংল্যান্ডের অপেক্ষার অবসান
জুলাই ১৫, ২০১৯



এ যেনো রবার্ট ব্রুটসের কাহিনী। তিনবার ব্যর্থতার পর চতুর্থবারে এসে বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নপুরণ করলো ইংল্যান্ড। লর্ডসে, নিউজিল্যান্ডকে সুপার ওভারে পরাজিত করে প্রথমবার বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে, ক্রিকেটের জনকরা। তবে এর আগে, তিনবার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেও শিরোপা ছোঁয়া হয়নি ইংলিশদের। চতুর্থ সুযোগে পূর্বসূরিদের সেই আক্ষেপ দূর করলেন, ইয়ন মর্গানরা।

অবশেষে ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হলো ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপ আসরের জন্মের পর এবারই প্রথম সোনালী ট্রফি ছুঁতে পারলো ক্রিকেট খেলার জনকেরা। নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২৪২ রানের টার্গেটে নেমে খেলা টাই। সুপার ওভারও টাই। ফলাফল নির্ধারণে বাইলজের স্মরণ। তাতে কিউইদের ১৪টি বাউন্ডারির বিপরীতে ২২ টি হাঁকানোয় জয় পায় থ্রি লায়নরা। তাতে ইংলিশরা প্রথমবার পেলো বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ।

তবে এর আগের তিনবারই পরে ব্যাট করেছিলো ইংলিশরা। অর্থাৎ জয়ের টার্গেটে তিনবারই ব্যর্থ থ্রি লায়নরা। হতাশার বোনো জলে ভেসে যায় তাদের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন। ১৯৭৯ সালে থেকে ১৯৯২, এই ১৩ বছরের মধ্যে তিনটি বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছে ইংল্যান্ড। অথচ ছুঁয়ে দেখা হয়নি সোনালী ট্রফি। তিনবারই রান তাড়া করতে গিয়ে ব্যর্থ তারা।

১৯৭৯ সালে এই লর্ডসেই প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠে ইংল্যান্ড। তখন ৬০ ওভারে হতো ওয়ানডে ম্যাচ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেয়া ২৮৭ রানে টার্গেটে নেমে, অধিনায়ক মাইক বিয়ারলি ও জিওফ বয়কটের ১২৯ রানের উদ্বোধনী জুটিও জেতাতে পারেনি ইংল্যান্ডকে। জোয়েল গার্নার মাত্র ৩৮ রানে ৫ উইকেট শিকার করলে, ১৯৪-এ গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড।

এরপর ১৯৮৭ বিশ্বকাপে ভারতে ইডেন গার্ডেনসে আবার এক ট্র্যাজিক ঘটনার জন্ম দেয় ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২৫৪ রানের লক্ষ্যে নেমে শিরোপার খুব কাছেও হেরে যায়, মাইক গ্যাটিংয়ের দল। মাত্র ৭ রানের পরাজয়ে বিশ্বকাপটা সেবারও ছোঁয়া হয়নি ইংলিশদের।

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার এখানেই শেষ নয় ইংল্যান্ডের। ১৯৯২ সালে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডেও বিশ্বকাপ লুকোচুরি খেলে তাদের সাথে। ২৫০ রানের টার্গেটে নেমে, ওয়াসিম আকরামের পেস আর মুস্তাক আহমেদের স্পিনে হাবুডুবু খায় গ্রাহাম গুচের দল। তাতে ২২ রানে ইংলিশদের হারিয়ে প্রথমবার বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে পাকিস্তান। আর আরো একবার বিশ্বকাপ-ফাইনালে পরাজয়ে ট্র্যাজিক উপাখ্যানের জন্ম দেয় ইংল্যান্ড।

এবার সব অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ইংল্যান্ডকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করায় ইয়ন মর্গান-ব্রিগেড।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :