রাত ১২:১৯, রবিবার, ২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / অবশেষে ইংল্যান্ড বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন
অবশেষে ইংল্যান্ড বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন
জুলাই ১৫, ২০১৯



৪৪ বছরের অপেক্ষার অবসান হলো ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ডের। লর্ডসে শ্বাসরুদ্ধকর এক ফাইনাল ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে সুপার ওভারে হারিয়ে প্রথমবার বিশ্বকাপ জিতলো ইংল্যান্ড। নির্ধারিত ওভারের ম্যাচ টাই হওয়ায় খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও টাই হওয়ার পর বেশি সংখ্যক বাউন্ডারি হাঁকানোর সুবাদে শিরোপা উল্লাসে মাতে ইংলিশরা।

দুর্দান্ত, অসাধারণ, চোখ জুড়ানো- যে উপমাতেই সাজানো হোক না কেনো, এমন এক ম্যাচের সবচেয়ে বড় পুরষ্কারই প্রথমবারের মত বিশ্বকাপ শিরোপা জিততে পারা। কিন্তু বিশ্বকাপের ফরম্যাট বলেই হয়তো খালি হাতে ফিরতে হলো নিউজিল্যান্ডকে। নাটক আর পাল্টা নাটকের পর ৫০ ওভারের ম্যাচ টাই আর সুপার ওভারেও একই ফল থাকার পর বেশি সংখ্যক বাউন্ডারির সুবাদে প্রথমবারের মত বিশ্বসেরার মুকুট পেলো ইংল্যান্ড।

ফাইনাল তো দূরে থাক, বিশ্বকাপের কোনো পর্যায়েই এমন জমজমাট আর নাটকীয়তায় ভরা ম্যাচ কখনও দেখেনি কেউ। বারবার কেবল বাইলজ ঘাঁটতে হয়নি ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের। সুপার ওভারে আগে ব্যাট করে বেন স্টোকস আর জশ বাটলার জুটি তোলেন ১৫ রান। জোফরা আর্চার বল হাতে নিয়ে গাপ্টিল-নিশামকে রুখে দেন সেই একই সংগ্রহে।

অথচ এর আগে, ইংলিশদের জয়ের লক্ষ্যটা তেমন কঠিন মনে হয়নি। ২৪২ রান লর্ডসের মাঠে মোটেও বিশাল চ্যালেঞ্জ নয়। কিন্তু, ম্যাট হেনরি, গ্রান্ডহোম, ফার্গুসনদের বোলিং তোপে সেটাই যেনো পাহাড়ের মত ঠেকছিলো ইংলিশ টপ অর্ডার আর মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায়। দলের ৮৬ রানের মধ্যে সাজঘরে প্রথম চার ব্যাটসম্যান। লর্ডসের আকাশে তখন মেঘের সাথে দর্শক-সমর্থকদের মধ্যেও দুশ্চিন্তার ঘনঘটা। এরপরই কান্ডারির ভূমিকায় নামেন জশ বাটলার আর বেন স্টোকস। এর আগেও বহুবার এমন পরিস্থিতি থেকে দলকে টেনে তোলার অভিজ্ঞতা আছে এই দুই ইংলিশের। এবারও তারা জুটি গড়ে দেখালেন তেমনই কৃতিত্ব। ১১০ রানের জুটি গড়ে বাটলার ফেরার পরও দলকে প্রায় জয়ের বন্দরেই পৌঁছে দেন বেন স্টোকস। কিন্তু শেষ বলে আর পেরে ওঠেননি। তাতে টাই ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

এরআগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ২৪১ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড। হেনরি নিকোলস ৫৫ ও টম ল্যাথাম করেন ৪৭ রান। ইংলিশ পেসার ক্রিস ওকস ও লিয়াম প্লাঙ্কেট তুলে নেন তিনটি করে উইকেট।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :