বিকাল ৫:১৮, বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে টটেনহ্যাম
প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে টটেনহ্যাম
মে ৯, ২০১৯



লুকাস ম’রার হ্যাটট্রিকে আয়াক্স রূপকথা থামিয়ে দিয়ে প্রথমবারের মত উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠলো টটেনহ্যাম হটস্পার। প্রথম লেগে ঘরের মাটিতে ১-০ গোলের হারের পরও আয়াক্সের মাঠে ফিরতি লেগটি তারা জিতেছে ৩-২ ব্যবধানে। তাতে বেশি অ্যাওয়ে গোল করার সুবাদে অল ইংলিশ ফাইনালে লিভারপুলের সঙ্গী হলো টটেনহ্যাম।

দু’দলই রূপকথারর মত মৌসুম কাটাচ্ছে এবার। স্বপ্নের ফাইনালে খেলতে যাওয়ার পথে সেমিফাইনালের প্রথম লেগটাও যেনো স্বপ্নের মতই কেটেছে ডাচ ক্লাব আয়াক্স আমস্টারডামের। ঘরের মাঠে ফিরতি লেগে তাই একটু এগিয়েই ছিল তারা। তবে ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যামও এবার ফাইনালেই চোখ দিয়ে রেখেছে। হ্যারি কেনবিহীন দলটি বলের দখল আর আক্রমণে শুরু থেকেই ছিল নিয়ন্ত্রণের আসনে।
অবশ্য ৫ মিনিটের মধ্যেই গোল করে ১৯৯৫-র পর আয়াক্সের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল করেন ডি লাইট। ৩৫ মিনিটে হাকিম জিয়েচের গোলে ফাইনালের টিকিট প্রায় নিশ্চিত করেই ফেলেছিলো ডাচরা।

কিন্তু ম্যাচের চমক তখনও বাকি। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হতেই যেনো আরো পরিণত স্পাররা। ৫৫ মিনিটে তাদের স্বপ্নকে আবারো জাগিয়ে তোলেন লুকাস ম’রা। চার মিনিট পর তিনিই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। তাতে ম্যাচে সমতা আসলেও দুই লেগ মিলে তখনও এক গোলে এগিয়ে আয়াক্স।

ওই ব্যবধানেই ফাইনালের স্বপ্নে যখন বিভোর গ্যালারির ৫৫ হাজার দর্শক, তখনই পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়ান লুকাস ম’রা। ইনজুরি সময়ের শেষ বাঁশি বাজার কয়েক সেকেন্ড বাকি থাকতেই নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করে নেন তিনি। সাথে সাথেই প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে উঠে যায় পচেত্তিনোর দল।

গেলো কয়েক বছর ধারাবাহিক দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের ফল পেলো টটেনহ্যাম। আর রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসের মত শক্তিশালী দলগুলোকে বিদায় করে সেমিতে উঠলেও শেষ পর্যন্ত ফাইনাল দেখা হলো না আয়াক্সের। আগামী পহেলা জুন অল ইংলিশ ফাইনালে টটেনহ্যামের অপেক্ষায় লিভারপুল।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :