রাত ৮:০৭, সোমবার, ২৭শে মে, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / উদ্বোধনী জুটিতে বিশ্ব রেকর্ড
উদ্বোধনী জুটিতে বিশ্ব রেকর্ড
মে ৬, ২০১৯



ডাবল সেঞ্চুরির আক্ষেপটা হয়তো থাকবে জন ক্যাম্পবেলের। কিন্তু সেই আক্ষেপ তাকে খুব বেশি পোড়াবে না। কারণ যা করেছেন তাতেই তিনি হয়ে গেছেন ইতিহাসের অংশ। যেন তেন ইতিহাস নয়, রীতিমতো বিশ্ব রেকর্ড। শাই হোপকে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৩৬৫ রান তুলে নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েন এই জুটি।

ডাবলিনে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে উদ্বোধনী জুটির নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন হোপ-ক্যাম্পবেল। ওয়ানডের যেকোনো উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটাও হতে হতে হয়নি অল্পের জন্য, তারা থেমেছেন ৩৬৫ রান করে। ‌ওয়ানডে ক্রিকেটে উদ্বোধনীতে জুটির আগের রেকর্ডটি ছিল ৩০৪ রানের। পাকিস্তানের ইমাম-উল-হক ও ফখর জামান বুলাওয়েতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৮ সালে সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে রেকর্ডটি গড়েছিলেন। জন ক্যাম্পবেল ও শাই হোপ আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ভেঙে দিলেন সেটিই, নতুন রেকর্ড থামল ৩৬৫ রানে।

কেবল ওপেনিং জুটিই নয়, হোপ-ক্যাম্পবেলের সামনে হাতছানি দিচ্ছিল ওয়ানডের যেকোনো জুটিতে সর্বোচ্চর রেকর্ডটিও। যেকোনো জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ক্রিস গেইল ও মারলন স্যামুয়েলসের ৩৭২ রানের, দ্বিতীয় উইকেটে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৫ সালে ক্যানবেরায় গত বিশ্বকাপে রেকর্ডটি গড়েন।

ওই ম্যাচে গেইল ১৪৭ বলে ২১৫ রান করে আউট হন, স্যামুয়েলস অপরাজিত থাকেন ১৩৩ রানে। উইন্ডিজ তোলে ২ উইকেটে ৩৭২ রান, ২ বল খেলে ডোয়াইন স্মিথ রানের খাতা না খুলে সাজঘরে ফিরলে ঝড় তোলেন গেইলরা। জিম্বাবুয়ে পরে ২৮৯ রান তুলে বৃষ্টি আইনে ম্যাচ হারে ৭৩ রানে।

তবে আরেকটি নতুন কীর্তি গড়েন এই দুই ‌ওপেনার। তা হলো, এর আগে কখনো ক্যারিবিয়ান দুই ‌ওপেনার সেঞ্চুরি করতে পারেন নি। হোপ-ক্যাম্পবেল রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি সেটা‌ও করে দেখান। তাছাড়া উদ্বোধনী জুটিতে দুই ব্যাটসম্যান এরআগে কখনো দেড়শ’ বা তারচেয়ে বেশি রানের ইনিংস খেলতে পারেন নি। তারা দুজন সেই সেই রেকর্ড‌ও নিজেদের করে নেন।

১৩৭ বলে ১৭৯ রানে ব্যারি ম্যাক্কার্থির বলে উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডের হাতে ক্যাচ দিয়ে সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড ছুঁড়ে এসেছেন ক্যাম্পবেল। সাজঘরে ফেরার আগে ৬ ছক্কা ও ১৫ চারে ১৭৯ রানের ইনিংস সাজান।

ক্যাম্পবেল ফেরার পর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেন নি শাই হোপ। ক্যাম্পবেলের বিদায়ের তিন বল পর টাকারকে ক্যাচ দিয়ে ম্যাক্কার্থির শিকার হন তিনি। ফেরার আগে ১৫২ বলে ২ ছয় ও ২২ চারের সাহায্যে করেছেন ১৭০ রান।

তাতে নির্ধারিত ওভারে ৩ উইকেটে ৩৮১ রান পর্যন্ত যেতে পেরেছে উইন্ডিজ। যা ক্যারিবীয়দের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের রেকর্ড। পরে আয়ারল্যান্ড মাত্র ১৮৫ রানে অলআউট হলে ১৯৬ রানের বড় জয় পায় ক্যারিবিয়ানরা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :