রাত ২:৪১, মঙ্গলবার, ১৫ই জুলাই, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন
বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন
এপ্রিল ২৮, ২০১৯



লেভান্তেকে একমাত্র গোলে হারিয়ে স্প্যানিশ লা লিগে তিন ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা জিতল বার্সেলোনা। জিতলেই শিরোপা। এমন সমীকরণ সামনে রেখে খেলতে নামা বার্সেলোনা একচেটিয়া চাপ ধরে রেখেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না। বদলি নেমে পার্থক্য গড়ে দেন লিওনেল মেসি। অধিনায়কের গোলে লেভান্তেকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হলো কাতালানরা।

ন্যু ক্যাম্পে শনিবার রাতে ১-০ গোলে জিতে তিন ম্যাচ হাতে রেখে শিরোপা জয় নিশ্চিত করে আর্নেস্টো ভালভারদের দল। ডিসেম্বরে লিগে প্রথম দেখায় মেসির হ্যাটট্রিকে লেভান্তের মাঠে ৫-০ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। এই নিয়ে টানা দ্বিতীয় ও শেষ ১১ মৌসুমে অষ্টমবারের মতো লা লিগার শিরোপা জিতলো বার্সা। স্পেনের শীর্ষে লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬ বার চ্যাম্পিয়ন হলো তারা।

ম্যাচের শুরু থেকে অতিথিদের রক্ষণে প্রবল চাপ তৈরি করা বার্সেলোনা প্রথম পাঁচ মিনিটে দুবার এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল। দ্বিতীয় মিনিটে কাছ থেকে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন সুয়ারেজ। খানিক পর দুজনের মধ্যে দিয়ে এগিয়ে ২৫ গজ দূর থেকে ফিলিপে কুতিনহোর শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক।

বিরতির আগে পোস্ট বরাবর আরও পাঁচটি শট নেয় স্বাগতিকরা। কিন্তু সাফল্যের দেখা মেলেনি। এর মধ্যে ৪১ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কুতিনহোর ফ্রি-কিক ক্রসবারে লাগলে গোল বঞ্চিত হয় বার্সেলোনা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই কুতিনহোকে তুলে নিয়ে মেসিকে নামান কোচ। ৬২ মিনিটে দলকে কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দেন অধিনায়ক। জটলার মধ্যে আর্তুরো ভিদালের ছোট পাস পেয়ে প্রথম টোকায় একজনকে কাটিয়ে বাঁ পায়ের শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন আর্জেন্টাইন তারকা। এবারের লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতা মেসির মোট গোল হলো ৩৪টি। লা লিগায় বদলি খেলোয়াড় হিসেবে এটা তার ২৪তম গোল, একবিংশ শতাব্দীতে এটাই বদলি হিসেবে নামা কোনো খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ গোল।

পাঁচ মিনিট পর নিজেদের ভুলে গোল খেতে বসেছিল বার্সেলোনা। ডিফেন্ডারদের পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া লুইস মোরালেস গোলরক্ষককে একা পেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার উড়িয়ে মারলে বেঁচে যায় শিরোপাধারীরা। শেষ দিকে ভালো দুটি সুযোগ পেয়েছিল লেভান্তে। কিন্তু গোলরক্ষক টের স্টেগেনকে পরাস্ত করতে পারেনি তারা। পাশাপাশি এনিস বার্ধির একটি শট বাধা পায় পোস্টে। যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ নষ্ট করেন লুইস সুয়ারেস। তবে তাতে তাদের শিরোপা জয় আটকায়নি।

৩৫ ম্যাচে ২৫ জয় ও আট ড্রয়ে চ্যাম্পিয়নদের পয়েন্ট হলো ৮৩। দিনের আরেক ম্যাচে রিয়াল ভাইয়াদলিদকে ১-০ গোলে হারানো আতলেতিকো মাদ্রিদ ৯ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৬৫।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :