দুপুর ১:১২, শনিবার, ২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / রেকর্ড গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যানইউ
রেকর্ড গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যানইউ
মার্চ ৭, ২০১৯



ইনজুরি সময়ে মার্কাস রাশফোর্ডের নাটকীয় পেনাল্টি গোলে প্যারিস সেন্ট জার্মেইকে বিদায় করে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। পিএসজির মাঠে ৩-১ গোলের জয়ে ঘরের মাঠে ২-০ গোলের হারকে পাল্টে দিয়ে শেষ আট নিশ্চিত করে ওলে গানার সোলসকায়ারের শিষ্যরা। আরেক ম্যাচে, রোমাকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে পোর্তো।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলর ম্যাচে ইতিহাস গড়ল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। প্রথম লেগে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের বিরুদ্ধে ২-০ গোলে হেরেছিল ইপিএলের দলটি। কিন্তু প্যারিসের মাঠে একেবারে শেষ মুহূর্তে রাশফোর্ডের পেনাল্টি গোলে তাদেরকে ১-৩ ব্যবধানে পরাজিত করে অ্যা‌ওয়ে গোলের সুবিধা নিয়ে শেষ আটে পৌঁছে গেল সোলসকায়ারের দল। এর আগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বে আর কোনও দল প্রথম লেগে ঘরের মাঠে দুই বা তার বেশি গোলে পিছিয়ে পড়ে পরের রাউন্ডের টিকিট জোগার করতে পারেনি। রাশফোর্ড ছাড়া দুটি গোল করেন বেলজিয়ান স্ট্রাইকার লুকাকু। তবে এই ম্যাচেও নাটক হল ভিডিও অ্যাসিসটেন্স রেফারি বা ভিএআর নিয়ে। তবে এদিন কিন্তু অধিকাংশ সময় খেলার নিয়ন্ত্রণ ছিল প্যারিসের দলটির হাতেই। ৭৩ শতাংশ বলের দখল রেখেও তাদের হারতে হয় মূলত কয়েকটি ছোট ভুলে।

দারুণ ফর্মে আছেন রোমেলো লুকাকু। ম্যাচের একেবারে দ্বিতীয় মিনিটেই কেহ্রেরের মিসপাস থেকে বল ধরে গোলরক্ষক বুফনকে কাটিয়ে গোল করেন তিনি। এরপর খেলা ধরে নিয়েছিল ফরাসি ক্লাবটি। ১০ মিনিট বাদেই এমবাপের পাস থেকে সেই গোল শোধ করে করেন বের্নাত ভেলাস্কো।

কিন্তু খেলার গতির বিরুদ্ধে আধঘন্টার মাথায় আবার একটি ভুলের সুযোগে গোল করেন লুকাকু। এক্ষেত্রে দায়ী সেন্ট জার্মেইয়ের গোলরক্ষক জিয়ানলুইগি বুফন। রাশফোর্ডের একটি দূরপাল্লার শট, তিনি আটকাতে পারলেও, বল তাঁর হাত থেকে ছিটকে যায়। ফিরতি বল পেয়েই জালে জড়িয়ে দেন লুকাকু।

বিরতিতে তো বটেই দ্বিতীয়ার্ধেও প্রায় পুরো সময়ই ফলাফল ছিল ১-২। তবে বেশ কিছু গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন জার্মেইয়ের ফুটবলাররা। এমবাপে ডেভিড দ্য ভিয়াকে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে পারেননি। বের্নাতের আরেকটি শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। এইভাবে খেলা শেষ হলে সহজেই দুই লেগ মিলিয়ে প্যারিসের দলটি পরের রাউন্ডে উঠে যেত। সেটাই হচ্ছে, ধরে নিয়েছিলেন সবাই। কিন্তু হাওয়া পাল্টে দিল ভিএআর।

ইনজুরি টাইমের খেলা যখন চলছে সেই সময় দিয়োগো দালোতের একটি দূরপাল্লার শট জার্মেইয়ের বক্সের মধ্যে কিম্পেম্বের হাতে লাগে। রেফারির নজর এড়ালেও ভিএআর দেখে পেনাল্টি দেওয়া হয়। বক্সের মধ্যে থেকে বল জালে জড়াতে ভুল করেনি মারমকাস রাশফোর্ড।

এতে দুই লেগ মিলিয়ে ফলাফল দাঁড়ায় ৩-৩। একটি বেশি অ্যাওয়ে গোল করার সুবাদে পরের রাউন্ডে উঠে যায় ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড।

দিনের অন্য ম্যাচে, নিজেদের ঘরের মাঠে ইতালির এএস রোমা ক্লাবকে ৩-১ গোলে পরাস্ত করে পর্তুগিজ ক্লাব এফসি পোর্তো। প্রথম লেগে পোর্তো ১-২ গোলে পিছিয়ে ছিল। ফলে দুই লেগ মিলিয়ে রোমাকে ৪-৩ ব্যবধানে পিছনে ফেলে কোয়ার্টারফাইনালে উঠে যায় তারা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :