বিকাল ৫:৪১, বুধবার, ২২শে মে, ২০১৯ ইং
/ ক্রিকেট / আরিফুলের নৈপুণ্যে জিতল প্রাইম ব্যাংক
আরিফুলের নৈপুণ্যে জিতল প্রাইম ব্যাংক
মার্চ ৯, ২০১৯



স্পোর্টস রিপোর্টার
আরিফুল হকের ক্যাচটা ধরতে পারলে ম্যাচের ফল ভিন্ন হতে পারত। হয়তো প্রাইম ব্যাংককে হারিয়ে বিজয়ের পতাকা উড়াত খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি। কিন্তু হলো না। শেষ পর্যন্ত খেলাঘরকে ২ উইেকেট হারিয়ে জয় তুলে নিলো প্রাইম ব্যাংকই।

খেলাঘরের দেওয়া ১৯৬ রানের লক্ষ্য ছুঁতে তখনও ১৬ রান পিছিয়ে প্রাইম ব্যাংক। হাতে ৪ উইকেট। ইরফান হোসেনের বলে সিলি মিড অনে ক্যাচ তোলেন আরিফুল। কিন্তু ফিল্ডারের হাত ফসকে পড়ে যায় বল। ২৫ রানে জীবন পেয়ে আরিফুল দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। কিন্তু তার ক্যাচটা হলে ম্যাচ ভিন্ন হতেও পারত।

আরিফুল জীবন পাওয়ার পর প্রাইম ব্যাংক মুহূর্তেই হারায় আরও ২ উইকেট। নাহিদুল (৩১) ও মোহর (৬) আউট হন। কিন্তু খেলাঘর শেষ হাসিটা হাসতে পারেননি। ৩২ রানে অপরাজিত থেকে আরিফুল প্রাইম ব্যাংককে এনে দেয় কাঙ্খিত জয়।

ব্যাটিংয়ের আগে বোলিংয়েও দ্যুতি ছড়ান জাতীয় দলের বাইরে থাকা এই ক্রিকেটার। মিরপুরের দারুণ উইকেটে সকালে ২৪ রানে ৪ উইকেট নেন এ মিডিয়াম পেসার। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে খেলাঘর টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে তোলে মাত্র ১৯৫ রান। রান তাড়া করতে গিয়ে ১৮ বল আগে ২ উইকেট হাতে রেখে ম্যাচ জেতে প্রাইম ব্যাংক। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন আরিফুল হক।

লক্ষ্য তাড়ায় প্রাইম ব্যাংকের শুরুটা খারাপ ছিল না। ওপেনার এনামুল হক বিজয় ও রুবেল মিয়া ৬৩ রানের জুটি গড়েন। রবিউল হক, বিজয়কে (৩৭) সাজঘরের পথ দেখান ১৪তম ওভারে। রুবেল হোসেন ফিফটি থেকে ৪ রান দূরে থাকতে আউট হন মোসাদ্দেক ইফতেখারের বলে। এরপর ধারাবাহিক উইকেট হারিয়ে প্রাইম ব্যাংক, ম্যাচ জটিল করে তোলে। জাকির হাসান (৬), আল-আমিন (১২) ও সুদ্বীপ চ্যাটার্জি (১৪) আউট হন। ষষ্ঠ উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়ে আরিফুল ও নাহিদুল দলকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে যান। নাহিদুল শেষ করে আসতে না পারলেও আরিফুল জয় নিয়ে ফিরেছেন। খেলাঘরের দুই পেসার ইরফান ৩ ও রবিউল ২ উইকেট নিয়ে লড়াই করলেও ব্যাটসম্যানরা ভালো পুঁজি না পাওয়ায় জয়ের দেখা পায়নি। ব্যাটিংয়ে খেলাঘরের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন অমিত মজুমদার। ৩৫ রান আসে অশোক ম্যানেরিয়ার ব্যাট থেকে। অধিনায়ক নাজিমউদ্দিন করেন ২৯ রান।

ম্যাচ শেষে আরিফুল বলেন,‘ক্যাচটা হয়ে গেলে ম্যাচের ফল ভিন্ন হতেও পারত। ক্রিকেট খেলা তো বলা যায় না কিছুই। রানের থেকে বল অনেক বেশি ছিল। আবার শেষের দিকে আমাদের ব্যাটসম্যান ছিল না। যেহেতু অল্পরান ছিল, আমাদের আরেকটু সহজে জেতা উচিত ছিল।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :