রাত ১০:৪৪, বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০১৯ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / আলীর জন্য মেসির উপহার
আলীর জন্য মেসির উপহার
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯



এশিযান কাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা চ্যাম্পিয়ন কাতারের স্ট্রাইকার আলমোয়েজ আলীর জন্য উপহার পাঠিয়েছেন বিশ্বসেরা ফুটবলার আর্জেন্টিনা ‌ও বার্সেলোনার মহাতারকা লি‌ওনেল মেসি। এশিয়ান কাপে নয়টি গোল করে সোনার বুট জেতেন কাতারের এই তরুণ স্ট্রাইকার। শুধু তাই নয় ২২ বছরের এই তারকা ভেঙেছেন এশিয়ান কাপ ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের ২৩ বছর পুরনো রেকর্ডও। ১৯৯৬ সালে ইরানি স্ট্রাইকার আলী দাইয়ী আট গোল করেছিলেন। আর এবার নয় গোল করে ফুটবল বিশ্বে সাড়া ফেলে দেন আলমোয়েজ আলী।

এমনকী তাঁর খেলা মুগ্ধ করেছে সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার হিসেবে গন্য হওয়া লিওনেল মেসিকেও। সম্প্রতি স্পেন থেকে আলীর জন্য এক বিশেষ উপহার পাঠিয়েছেন তিনি। শুধু আলীই নন, তাঁর দেশ কাতারও প্রথমবার এশিয়ান কাপ জেতার বড় পুরস্কার পেল। সাম্প্রতি ফিফা ক্রমতালিকায় ৩৮ ধাপ উন্নতি করে কাতার এখন ৫৫তম স্থানে রয়েছে।

আলমোয়েজ আলীর জন্ম হয়েছিল সুদানে। কিন্তু তাঁর বেড়ে ওঠা কাতারেই। এই দেশের হয়েই তিনি ফুটবল খেলার সিদ্ধান্ত নেন। বর্তমানে তিনি কাতারের আল-দুহাইল ক্লাবে খেলেন। আন্ডারডগ হিসেবে এশিয়ান কাপ খেলতে আসা কাতারকে চ্যাম্পিয়ন করার পিছনে মুখ্য বূমিকা নিয়েছিলেন তিনিই।

এক এশিয়ান কাপের পারফরম্যান্সেই ফুটবল-বিশ্বের প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি। রিয়াল মাদ্রিদ ও ম্যাচেস্টার ইউনাইটেড ক্লাবের প্রাক্তন কোচ হোসে মোরিনহোও তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। আলীকে দলে নিতে আগ্রহী এসি মিলানের মতো প্রথম সারির ইউরোপিয় ক্লাবও।

ফুটবল জীবনে নিজে অজস্র রেকর্ড ভেঙেছেন মেসি। কাতারের তরুণ ফরোর্ডের কীর্তিতে মুগ্ধ তিনিও। সেই মুগ্ধতার নিদর্শন স্বরূপ আলীর জন্য তিনি বার্সেলোনা ক্লাবের একটি জার্সি পাঠিয়েছেন। তার পিছনে আলীর নাম ও তাঁর জার্সি নম্বর ১৯-ও লেখা রয়েছে। সেই সঙ্গে জার্সিটির উপর স্বাক্ষরও করেছেন মেসি।

আলী জানিয়েছেন তিনি অবশ্যই ইউরোপের ক্লাবে খেলতে আগ্রহী। কারণ তাঁর মতে শুধু কাতার নয়, এশিয় সব দেশেরই ক্লাব ফুটবলের মান দুর্বল। তাঁর মতে এই কারণেই বিশ্বকাপে ইউরোপিয় দলগুলির বিরুদ্ধে লড়তে পারে না এশিয় দেশগুলি। তিনি ইউরোপে খেলে তৈরি হয়ে ২০২২ সালের দোহা বিশ্বকাপে খেলতে চান।

রাশিয়া বিশ্বকাপে দ্বিতীয় রাউউন্ডে ওঠা জাপানকে ফাইনালে ৩-১ গোলে পরাস্ত করে চ্যাম্পিয়ন হয় কাতার।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :