ভোর ৫:৪৪, সোমবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং
/ ক্রিকেট / প্রথম বিভাগের দুই ক্রিকেটার নিষিদ্ধ
প্রথম বিভাগের দুই ক্রিকেটার নিষিদ্ধ
ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮



অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের দায়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) দুই ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করেছে। দু’জনই প্রথম বিভাগে খেলা ওরিয়েন্ট স্পোটিং ক্লাবের সদস্য। তারা দুজন হলেন আবু বকর সিদ্দিকী ও হাসু। সন্দেহ ভাজনদের তালিকায় ছিলেন আরো তিন জন। তবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তাদের অ্যাকশন ত্রুটিমুক্ত প্রমানিত হওয়ায় বিসিবি বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি তাদের বাদ দেয়।

বরাবরের মতো এবারও ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট (ডিপিএল), জাতীয় ক্রিকেট লিগ(এনসিএল) বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটির মনিটরিংয়ে আওতায় ছিলো এবং বিসিএলের চলতি আসরেও তা অব্যাহত আছে। আশার কথা ঘরোয়া ক্রিকেটের শীর্ষস্থানীয় টুর্নামেন্টগুলো থেকে কোনো বোলারের অ্যাকশনকেই ত্রুটিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করতে পারেনি রিভউ কমিটি। আজ সোমবার সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য দেন বিসিবি’র ম্যানেজমেন্ট ও ইনফরমেশন নাসিরউদ্দিন আহমেদ নাসু।

তিনি জানান, প্রথম বিভাগের ক্রিকেট থেকে সন্দেহভাজন পাচজন বোলারের নামে প্রতিবেদন এসেছে। এদের সবারই পরীক্ষা আমরা নিয়েছি। পরীক্ষার পরে দুইজনকে সন্দেহভাজন পেয়েছি। আর তিনজনকে পেয়েছি, যাদের বোলিং অ্যাকশন আইসিসি অনুমোদিত লিমিটের মধ্যে আছে। নিষিদ্ধ দু’জন হলো হাসু ও আবু বকর, তারা ওরিয়েন্টের খেলে। নিষিদ্ধ এই দুই ক্রিকেটারের সম্পর্কে ইতিমধ্যেই তাদের ক্লাব ওরিয়েন্টকে অবগত করেছে বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি। যতদিন এই দুই ক্রিকেটে অ্যাকশন শুধরে উঠতে না পারবেন ততদিন তাদের বোলিং থেকে বিরত থাকতে হবে। নাসু বলেন, ‘ইতিমধ্যেই আমরা ক্লাবগুলোকে জানিয়ে দিয়েছি। যতদিন পর্যন্ত তারা পরীক্ষা দিয়ে না আসবে এবং পুনবার্সন করে না আসবে ততদিন বোলিং করতে পারবে না। নিষিদ্ধদের অ্যাকশন শোধরাতে ক্লাবগুলো চাইলে বিসিবির সহযোগিতা নিতে পারে বলেও জানান তিনি। তবে সেটা নির্ভর করবে কোচদের সহজপ্রাপ্যতার ওপরে। এ প্রসঙ্গে নাসু বলেন, ক্লাবগুলো যদি বোর্ডের কাছে সহযোগিতা চায় এবং আমাদের কোচরা যদি সহজপ্রাপ্য থাকে আমরা কোচ দিয়ে সহযোগিতা করবো।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :