সন্ধ্যা ৭:০৬, বৃহস্পতিবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / সিলেটে উইকেট বৃষ্টি
সিলেটে উইকেট বৃষ্টি
নভেম্বর ৪, ২০১৮



সিলেটে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে সুবিধাজনক অবস্থায় আছে জিম্বাবুয়ে। দিনশেষে স্বাগিতকদের চেয়ে ১৪০ রানে এগিয়ে আছে তারা। হাতে আছে ১০ উইকেট। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটে ২৩৬ রান নিয়ে দিন শুরু করে তাইজুলের ৬ উইকেট শিকারে মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই ২৮২ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারীরা। জবাবে চাতারা-সিকান্দার রাজার বোলিং দাপটে মাত্র ১৪৩ রানেই থামে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনশেষে সফরকারীদের সংগ্রহ বিনা উইকেটে এক রান।

প্রথম দিন উইকেট নিতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে বোলারদের। অথচ দ্বিতীয় দিনেই উল্টো চিত্র। ৭৯ ওভার তিন বলে পড়েছে ১৫ উইকেট। তাতে সিলেট টেস্ট পঞ্চম দিনের আলো দেখবে কি না, রয়েছে সেই সংশয়।

অবশ্য সকালটা শুরু হয়েছিলো বাংলাদেশের আনন্দের মধ্য দিয়েই। প্রথম ঘন্টা না পেরোতেই সাজঘরে চাকাভা-মাসাকাদজা। দুজনই তাইজুলের শিকার। এই বাঁহাতি ক্যারিয়ারে চতুর্থবারের মত ইনিংসে ৫ উইকেট তুলে নেয়ার কৃতিত্ব দেখান কাইল জার্ভিসকে ফিরিয়ে। তাইজুলের ১০৮ রানে ৬ উইকেট শিকারের মধ্য দিয়ে ২৮২ রানে সফরকারীরা গুটিয়ে যায়।

কিন্তু স্বাগতিক সমর্থকদের হাসি মিলিয়ে যায় নিজেদের ব্যাটিং শুরু হতেই। দলের ৮ রানে চাতারার শিকার ইমরুল কায়েস। জার্ভিস লিটন দাসকে ফেরানোর পর, শান্ত আর অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহও চাতার শিকারে পরিণত হলে ১৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। মুমিনুলকে নিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন মুশফিকুর রহিম। সিকান্দার রাজার ঘুর্ণিবিষে কুপোকাত মুমিনুল-তাইজুল-নাজমুলরা।

তাতে মাত্র ১৪৩ রানে গুটিয়ে গিয়ে দিনের আলো নেভার আগেই নিভে যায় স্বাগতিক সমর্থকদের সব আনন্দ। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করে দিনশেষের দু’ওভারে বিনা উইকেটে এক রান তুলে জিম্বাবুয়ে জানিয়েছে, এই উইকেটে টিকে থাকাটা খুব একটা কঠিন নয় মোটেও।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :