সকাল ৭:২৫, সোমবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / পাঁচ বছর নিষিদ্ধ জয়াসুরিয়া!
পাঁচ বছর নিষিদ্ধ জয়াসুরিয়া!
অক্টোবর ১৯, ২০১৮



শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক ‌ও বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য সনাথ জয়াসুরিয়া পাঁচ বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হচ্ছেন! আইসিসি যেভাবে এগোচ্ছে তাতে জয়াসুরিয়ার উপর শাস্তির এই বিধান যেকোনও দিন নেমে আসতে পারে। তাই যদি হয়, তা হলে পাঁচ বছর ক্রিকেট থেকে সরে থাকতে হবে তাঁকে। ক্রিকেট দুনিয়ার কোনও মাঠে ঢুকতে পারবেন না। তাছাড়া ক্রিকেটের সঙ্গে কোনওভাবে নিজেকে জড়িয়েও রাখতে পারবেন না জয়াসুরিয়া।

জয়াসুরিয়াকে নিয়ে ক্রিকেট বিশ্ব তাই উত্তাল। সন্দেহের মাত্রা বাড়ছে তাঁর বিষয়ে। অভিযোগ আইসিসির দুর্নীতিদমন শাখার র্কমর্কতাদের সঙ্গে সহযোগিতা করেননি তিনি। আইসিসি জানিয়েছিল, তাঁর মোবাইল, ল্যাপটপ জমা দিতে। জয়াসুরিয়া সেটা দেননি। আইসিসি তাই কঠোর হতে চলেছে তার ব্যাপারে।

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার নিয়ম অনুযায়ী জয়াসুরিয়া ২.৪.৬ ও ২.৪.৭ ধারায় পড়েছেন। এই ধারায় তখন-ই ক্রিকেটারকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়, যখন সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটার আইসিসি-র দুর্নীতিদমন শাখার সঙ্গে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে না দেয়। কিংবা যাবতীয় নথি দাখিল করার নির্দেশ অমান্য করেন। তখন সেই ক্রিকেটারকে নিয়মে বেঁধে ফেলে শাস্তির ব্যবস্থা করে আইসিসি। জয়াসুরিয়া দু’টো ধারাতেই পড়ছেন। তাই আইসিসি যদি শাস্তি দিতে চায় তাহলে পাঁচ বছরের জন্য তাঁকে নির্বাসনে যেতে হবে। আইসিসি-র এক কর্তা বলছিলেন, ‘২.৪.৬ ধারায় (প্রমাণ করতে সহযোগিতা না করা) যদি জয়াসুরিয়া পড়েন, তাহলে তাকে কম করে ছয় মাসের জন্য সাসপেন্ড করা হবে। না হলে বড় শাস্তি। সর্বোচ্চ শাস্তি পাঁচ বছরের। আবার ২.৪.৭ ধারায় যদি পড়েন (প্রামাণ্য নথি নষ্ট করা) তাহলে তাঁকে পাঁচ বছর সাসপেন্ড করা হবে। সেই সঙ্গে আর্থিক জরিমানাও। এখন দেখতে অপেক্ষা কোন ধারায় পড়তে চলেছেন জয়াসুরিয়া।’

অবশ্য মঙ্গলবার এক সাক্ষাৎকারে জয়াসুরিয়া বলেছেন, ক্রিকেট জীবনে কোনদিন দূর্নীতির সঙ্গে আপস করেননি। এ সব থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রেখেছেন। তাই তাঁর নামে যা রটানো হচ্ছে, তার কোনো ভিত্তি নেই। একদিন না একদিন তা প্রকাশ্যে আসবে। তখন সবাই জানতে পারবেন, তাঁকে নিয়ে বিতর্ক ভিত্তিহীন ছাড়া কিছু নয়।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :