রাত ১২:৩৮, বৃহস্পতিবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / বঙ্গবন্ধুতে কাল ভারত-পাকিস্তান মহারণ
সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপ
বঙ্গবন্ধুতে কাল ভারত-পাকিস্তান মহারণ
সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮



সাফ সুজুকি কাপের গ্রুপ পর্ব শেষ। এবার অপেক্ষা সেমি ফাইনালের। আজ শুরু শেষ চারের লড়ায়ে সবচেয়ে আকর্ষনীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে উপমহাদেশের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি ভারত-পাকিস্তান। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যায় শুরু হবে মর্যাদার এই লড়াই। শুধু কি মর্যদার, উপমহাদেশের সবচেয়ে আকর্ষনীয় লড়াই‌ও এটি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম আগামীকাল রোমাঞ্চ ছড়ানো অপেক্ষায়। কতোদিন পর ঢাকার দর্শকরা এমন একটি হাইভোল্টেজ ম্যাচ মাঠে বসে দেখতে পারবে, সেটা অনেক হিসেব কষে বের করতে হবে। সেমিফাইনালের মহারণে নামার আগে দু’দলই বেশ সাবধানী। কেউ নিজেদের ফেবারিট ভাবছেন না। বরং প্রতিপক্ষ দলকে সমীহ করে কথা বলছেন। তবে দুই দলের এ লড়াইটি যে বেশ উত্তেজনাপূর্ণ হবে- সেটার আভাসটা দিলেন দুই দলের কোচই।

সাফ ফুটবলের শিরোপাটা ভারতের কাছে মুড়ি-মুড়কির মতো। এ পর্যন্ত সাতবার সাফের শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছে ভারতীয়রা। তারা এখন আর জাতীয় দল পাঠায় না সাফ ফুটবল টুর্নামেন্টে। অনূর্ধ্ব-২৩ দল দিয়েই লড়াই করে শিরোপা নিয়ে যায় দেশে। তবে পাকিস্তানের কাছে সাফ মানে অারাধ্য একটি টুর্নামেন্ট। এখনো পর্যন্ত ফাইনালই খেলা হয়নি দলটি। আর এক দশক পর শেষ চারে উঠেছে গত তিন বছর আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে নির্বসনে থাকা পাকিস্তান। তাই এবার আর ভুল নয়, বরং চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিদের বিরুদ্ধে দারুণ এক লড়াই দিয়েই প্রথমবারের মতো সাফের ফাইনালে নাম লেখাতে মরিয়া পাকিস্তান। তবে অতীত ইতিহাস কিংবা পরিসংখ্যান কিন্তু তাদের পক্ষে নেই। র‌্যাংকিংয়ে ভারতের অবস্থান ৯৬ নম্বরে। আর পাকিস্তান আছে ২০১ নম্বরে। অবশ্য র‌্যাংকিংয়ের এ অবস্থানটা তিন বছর আন্তর্জাতিক ফুটবলে নিষেধাজ্ঞা থাকার কারনে। ভারতের বিরুদ্ধে ২৩ বারের লড়াইয়ে মাত্র তিনবার জয় আছে পাকিস্তানের। ১৪ ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছিল ভারত। আর ছয়টি ম্যাচ ড্র হয়েছিল।

পরিসংখ্যান পক্ষে থাকলেও পাকিস্তানকে বেশ সমীহ করেই মাঠে নামবে ভারত। দলের সহকারী কোচ ভেঙ্কেটশ সঙ্গম তেমনটাই জানালেন, ‘ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানেই তীব্র উত্তেজনা ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। এটা আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ ও মর্যাদার ম্যাচ। আশাকরি আমরা ভালো খেলবো এবং ফাইনাল নিশ্চিত করবো। আমরা ফেবারিট নই। তবে আমরা দল হিসেবে ভালো পারফর্ম করতেই এখানে এসেছি। এ দলটাকে তিন বছর ধরে গড়ে তুলেছি। পাকিস্তানী শক্তিশালী দল। ফিজিক্যালি এগিয়ে আছে তারা। সুতরাং এটা খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ হবে বলেই আশা করছি।’

পাকিস্তানের কোচ জোসে আন্টনিও নোগেইরার কণ্ঠে আত্মবিশ্বাসের সুর, ‘যেহেতু প্রতিপক্ষ ভারত তাই আমরা এ ম্যাচ খেলার জন্য বেশ মুখিয়ে আছি। আমরা ফাইনালে খেলার লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবো। দলকে ফাইনালে পৌঁছানোর জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে ছেলেরা।’

এক দশক পর সাফের সেমিতে পাকিস্তান। তিন বছর আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে নির্বাসনে থাকার পর কোন প্রকার চাপ আছে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে কোচ বলেন, ‘আমি পেশাদার কোচ। এরকম পরিস্থিতি আমি আগেও ফেস করেছি। যে কারনে এটাকে চাপ মনে করছি না। আমি নির্ভার হয়ে থাকতে চাই। ভালো খেলা উপহার দিতে চাই। ভারত খুবই গোছানো একটা দল। এ টুর্নামেন্টের জন্য তারা তিন বছর ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে আমরা চেষ্টা করবো ফাইনালে খেলার।’

অধিনায়ক সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। আমরা তিন বছর ধরে আন্তর্জাতিক আসর থেকে নির্বাসিত ছিলাম। স্বাভাবিকভাবেই দল ছিল অগোছালো। কিন্তু কোচ ও কর্মকর্তা অক্লান্ত পরিশ্রম করে দলটিকে তৈরি করেছেন। এ মুহুর্তে দল খুব ভালো অবস্থায় আছে। প্রতিটি খেলোয়াড়ই তাদের ফিটনেসের মধ্যে রয়েছে। আমরা খুব রোমাঞ্চিত। আশাকরি ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারবো।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :