রাত ১:১৩, রবিবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
/ ফিফা ওয়াল্ড কাপ ২০১৮ / রেকর্ডের সামনে দিদিয়ের দেশাম
রেকর্ডের সামনে দিদিয়ের দেশাম
জুলাই ১২, ২০১৮



বেলজিয়ামকে হারিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশাম এক রেকর্ডের অংশীদার হয়ে যান। চতুর্থ খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে দুইবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠার রেকর্ড গড়েন এই ফরাসি কোচ। তবে ফাইনাল ম্যাচটি জিতলে আরেকটি বিরল রেকর্ড হয়ে যাবে তার। তা হলো, তৃতীয় অধিনায়ক ও কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব।

১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্স দলের অধিনায়ক ছিলেন দিদিয়ের দেশাম। সেবার ব্রাজিলকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ফরাসিরা। এবার ফ্রান্স একমাত্র গোলে বেলজিয়ামকে হারিয়ে প্রতিযোগিতার ফাইনালে ওঠায়, চতুর্থ খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে দুইবার বিশ্বকাপ ফাইনালে ওঠার বিরল রেকর্ড গড়েন দিদিয়ের দেশাম। তার আগে, জার্মানির ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার ও রুডি ফলার এবং ব্রাজিলের মারিও জাগালো খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে দুইবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠেন।

খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে দুইবার ফাইনাল খেলে শিরোপা জয়ের প্রথম স্বাদ নেন, ব্রাজিলের মারিও জাগালো। ১৯৫৮ সালে খেলোয়াড় এবং ১৯৭০ সালে কোচ হিসেবে ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জেতান তিনি। এরপর ১৯৭৪ আসরে খেলোয়াড় ও ১৯৯০ সালে কোচ হিসেবে বেকেনবাওয়ার বিশ্বকাপের ফাইনালে ছিলেন। এবং দুইবারই চ্যাম্পিয়ন হয় তার দল।

অবশ্য বেকেনবাওয়ারের মতো ভাগ্য সঙ্গী হয়নি রুডি ফোলারের। খেলোয়াড় হিসেবে ১৯৯০ সালে শিরোপা জিতলেও কোচ হিসেবে ২০০২ সালে জার্মানিকে শিরোপা এনে দিতে পারেননি তিনি। ব্রাজিলের কাছে হেরে রানার আপ হয় ফোলারের জার্মানি।

ফ্রান্সকে রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলেই- মারিও জাগালো, বেকেনবাওয়ার এবং রুডি ফোলারের রেকর্ডে ভাগ বসানো হয়ে যায়, দিদিয়ের দেশামের। এবার জাগালো কিংবা বেকেনবাওয়ারের মতো শিরোপা জয়ের পালা তার। ১৯৯৮ সালে খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপ ট্রফি ছুঁয়েছিলেন দেশাম। রবিবারের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়াকে হারাতে পারলেই জাগালো আর বেকেনবাওয়ারের মতো রেকর্ড বইয়ে ঠাঁই হবে দিদিয়ের দেশামের। হবে কি হবে না, সময়ই করবে সেই ফয়সালা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :