রাত ৪:১১, শনিবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং
/ ফিফা ওয়াল্ড কাপ ২০১৮ / বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স
বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স
জুলাই ১১, ২০১৮



বেলজিয়ামের স্বপ্নযাত্রা থামিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে পা রাখলো ১৯৯৮’র বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। স্যামুয়েল উমতিতির দেয়া একমাত্র গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দিদিয়ের দেশমের দল। যদিও বল পজেশনে এগিয়ে ছিলো রেড ডেভিলসরা তবে ফ্রান্স দুর্গ ভেদ করতে পারেননি হ্যাজার্ড-লুকাকুরা। এতে প্রথম ফাইনালিস্ট‌ও পেয়ে গেল রাশিয়া বিশ্বকাপ। এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল ‘লা ব্লু’রা। ২০০৬ সালে জার্মানি বিশ্বকাপে সবশেষ ফাইনালে ইতালির কাছে টাইব্রেকারে হেরেছিল ফরাসিরা।

বড় মঞ্চে একটা সুযোগকে কাজে লাগিয়েই উল্টে দেয়া যায় সব হিসেব-নিকেষ। এতো এতো স্ট্রাইকারের ভীড়ে সেই কাজটিই করলেন বার্সেলোনার ডিফেন্ডার স্যামুয়েল উমতিতি। ম্যাচের বয়স তখন ৫১ মিনিট। চলতি বিশ্বকাপে ১৫৮ টি গোলের ৬৯ টি হলো সেটপিস থেকে। আর শুধুমাত্র হেডের মাধ্যমে করা চলতি বিশ্বকাপে ৩২ তম গোলটি করেন ম্যাচ সেরা উমতিতি।

তবে এই গোল দিয়ে বিচার করা যাবেনা সেন্ট পিটার্সবার্গে দুই দলের ফাইনালে উঠার মহাযুদ্ধের চিত্র। প্রথম ৩০ মিনিটই ফ্রান্সের রক্ষণ কাঁপিয়েছে ‘রেড ডেভিল’রা। আরো নির্দিষ্ট করে বললে বা প্রান্ত থেকে এডেন হ্যাজার্ড।

২২ মিনিটে আল্ডারওয়ার্ল্ডের নেয়া পরীক্ষাতেও উতরে যান ফ্রান্স গোলরক্ষক হুগো লরিস। প্রথমার্ধে এরপরের সময়টা আবার আক্রমনে এগিয়ে ফ্রান্স। দুবার অলিভার জিরুদ পোস্টে বল পাঠাতে ব্যর্থ হন। পাভার্ডের দুরপাল্লার শট কর্তোয়া রুখে না দিলে তখনই এগিয়ে যেতে পারতো দিদিয়ের দেশামের দল।

মাঠের বাইরে থেকে দুই কোচও কৌশলের খেলায় জিততে চেয়েছেন। ফ্রান্সকে আক্রমনে উঠিয়ে এনে রক্ষণ খালি করার রবার্তো মার্টিনেজের ফাঁদে পা বাড়াননি দিদিয়ের দেশম। তার পাল্টা আক্রমনের কৌশলেই বরং বারে বারে খেই হারায় বেলজিয়ামের ‘সোনালী প্রজন্মের তারকারা।

পুরো ম্যাচে ডি ব্রুইনদের পায়ে বল ছিলো ৬০ শতাংশ। তবে পোস্টে ফ্রান্স যেখানে শট নিয়েছে পাঁচটি। লুকাকু-হ্যাজার্ডরা তা পেরেছেন তিনবার। আর সেই শটে গোল আসেনি লরিসের বিশ্বস্ত হাত দুর্ভেদ্য হওয়ায়।

আর তাতে থেমে যায় বেলজিয়ামের স্বর্নালী ফুটবলারদের বিশ্বজয়ের স্বপ্ন। অন্যদিকে, তৃতীয় ব্যাক্তি হিসেবে ফুটবলার এবং কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জয়ের মঞ্চ পেয়ে যান দিদিয়ের দেশম। ১৫ জুলাই ফাইনালের সেই মঞ্চেই নির্ধারন হবে বিশ্ব ফুটবলের রাজার আসন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :