সন্ধ্যা ৬:৫৯, সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং
/ ফিফা ওয়াল্ড কাপ ২০১৮ / শেষ ষোলতে আর্জেন্টিনা
রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল
শেষ ষোলতে আর্জেন্টিনা
জুন ২৭, ২০১৮



রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে নাইজেরিয়াকে হারিয়ে গ্রুপ-ডি’র দ্বিতীয় দল হিসেবে নক-আউট পর্বে উঠেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। তিন ম্যাচে তাদের সংগ্রহ চার পয়েন্ট। সমান ম্যাচে নয় পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকে পরবর্তী পর্বে পৌঁছাল ক্রোয়েশিয়া।

আর্জেন্টিনার কোচ হোর্হে সাম্পাওলি এদিন প্রথম একাদশে ছয়টি পরিবর্তন করে দল মাঠে নামান। সবার সামনে মেসির পাশে গঞ্জালো হিগুয়েন। মাঝমাঠে জেভিয়ার মাসচেরানো, এভার বানেগা, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া ও এনজো পেরেজ। ম্যাচের শুরু থেকেই ‘প্রেসিং অ্যান্ড পজেশনাল’ ফুটবল উপহার দিয়ে প্রতিপক্ষ নাইজেরিয়াকে কোণঠাসা করে আর্জেন্টিনা। ১৪ মিনিটে দলকে কাঙ্ক্ষিত লিড এনে দেন মেসি। মাঝমাঠ থেকে এভার বানেগার বাঁ পায়ের উরুর পেলব স্পর্শে নামিয়ে, বাঁ পায়ের নিয়ন্ত্রণে নেন। দুরন্ত রিসিভেই তিনি পিছনে ফেলেন মার্কারকে। এরপর ডান পায়ের কোনাকুনি শটে দ্বিতীয় পোস্ট দিয়ে কাঁপিয়ে বল জড়িয়ে দেন জাল (১-০)। লক্ষ্যভেদের পরেই কর্নার ফ্ল্যাগের কাছে দৌড়ে গিয়ে হাঁটু মুড়ে দু’হাত আকাশের দিকে তুলে ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানান মেসি। সেই মুহূর্তে বিশেষ বক্সে থাকা দিয়েগো ম্যারডোনাকেও দেখা যায় দু’হাত কোনাকুনি করে কাঁধে রেখে চোখ বন্ধ করে বিড়বিড় করতে। আসলে উত্তরসূরির দুরন্ত গোলে স্বস্তি পেয়েছেন ১৯৮৬’র অবিসংবাদিত নায়ক।

শুরু থেকেই মেসি ছিলেন প্রাণবন্ত, চনমনে। এছাড়া বাকিদের মধ্যেও হার না মানা মনোভাব দেখা গিয়েছে। ২৮ মিনিটে মেসির বুদ্ধিদীপ্ত থ্রু খুঁজে নিয়েছিল গঞ্জালো হিগুয়েনকে। কিন্তু তাঁর দুর্বল পুশ রুখে দেন নাইজেরিয়ার গোলরক্ষক। এর মিনিট সাতেক পরে বিপজ্জনক হয়ে ওঠা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াকে বক্সের সামান্য বাইরে ফাউল করা হলে ফ্রি-কিক পায় আর্জেন্টিনা। মেসির বাঁ পায়ের অনবদ্য শট বিপক্ষ গোলরক্ষকের প্রসারিত হাতের নাগাল এড়িয়ে দ্বিতীয় পোস্টে প্রতিহত হয়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সমতায় ফেরে আফ্রিকার দেশটি। কর্নার নেওয়ার সময় বক্সের মধ্যে বালোগানকে টেনে ফেলে দেন মাসচেরানো। তুরস্কের রেফারির তা চোখ এড়ায়নি। তিনি সঙ্গে সঙ্গে মাসচেরানোকে হলুদ কার্ড দেখান। এরপর ভার প্রযুক্তির সহযোগিতায় পেনাল্টির নির্দেশ বহাল রাখেন। স্পটকিক থেকে জাতীয় দলে অভিষিক্ত আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক আরমানিকে হার মানাতে অসুবিধা হয়নি মোজেসের (১-১)।

এই গোলের পর হঠাৎই ছন্দপতন সাম্পাওলির দলের। একাধিক ভুল পাস খেলে তারা প্রতিপক্ষ নাইজেরিয়াকে ম্যাচের রাশ ধরার সুযোগ করে দেয়। ৭৬ মিনিটে দুরন্ত প্রতি-আক্রমণে আর্জেন্টিনার গোলমুখ প্রায় খুলে ফেলেছিল নাইজেরিয়া। বাঁ দিক ভেসে আসা বল হেডে ক্লিয়ার করার সময় তা হাতে লাগে মার্কোস রোহোর। তবে এবার ভার প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে রেফারি হ্যান্ডবলের কারণে পেনাল্টির নির্দেশ দেননি।

দ্বিতীয় গোলের জন্য আবার‌ও দলে পরিবর্তন আনেন সাম্পাওলি। ৮১ মিনিটে বাঁ দিক থেকে রোহোর মাইনাস সুবিধাজনক অবস্থায় পেয়েও তা ক্রসবারের উপর দিয়ে উড়িয়ে দেন হিগুয়েন। তবে ৮৬ মিনিটে অতি মূল্যবান জয়সূচক গোল তুলে নেয় আর্জেন্টিনা। ডানদিক থেকে মার্কাদোর সেন্টার বক্সের মধ্যে পেয়ে রোহোর ডান পায়ের শট কাঁপিয়ে দেয় জাল (২-১)। এই গোলই নক-আউট পর্বে তুলে দেয় আর্জেন্টিনাকে। ম্যাচ শেষ হওয়ার বাঁশি বাজতেই মেসিকে জড়িয়ে ধরেন সহ-ফুটবলাররা। নিজের সঙ্গে বিশ্বের শত কোটি আর্জেন্টিনা ভক্তকে‌ও নির্ভার করার আনন্দ তখন তাদের।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :