সন্ধ্যা ৭:৩২, শনিবার, ২১শে জুলাই, ২০১৮ ইং
/ ক্রিকেট / রশিদ খানই বড় হুমকি বাংলাদেশের: মুশফিক
রশিদ খানই বড় হুমকি বাংলাদেশের: মুশফিক
মে ১০, ২০১৮

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হবে ৩ জুন থেকে। ইতিমধ্যে সফরসূচী সূচি নির্ধারিত হয়েছে। ভারতের দেরাদুনেই হবে দিন-রাতের এই সিরিজের সবগুলো ম্যাচ। স্বাভাবিকভাবেই উপমহাদশের উইকেট হিসেবে দেরাদুনের উইকেটও স্পিনবান্ধব হবে। আর স্পিনে দারুণ শক্তিশালী আফগানিস্তান। তাই সিরিজটি বেশ চ্যালেঞ্জিংই হবে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম। এছাড়া দলটির লেগস্পিনার রশিদ খানই টাইগারদের বড় হুমকি হতে পারেন বলেও মনে করেন তিনি।

সাম্প্রতি সবচেয়ে আলোচিত বোলারই রশিদ খান। বল হাতে নিলেই সাফল্য পাচ্ছেন। আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে বোলারদের মধ্যে তার অবস্থানও সবার উপরে। তাই রশিদ খান স্বাভাবিকভাবেই টাইগারদের বড় দুর্ভাবনার কারণ হতে পারেন। মুশফিক বলেন, ‘রশিদ খান একজন বিশ্বমানের বোলার। আইপিএলে এক ম্যাচ ছাড়া তার বিরুদ্ধে ৬-৭ রানের বেশি কোনো ওভারে কেউ নিতে পারেনি। আমাদের জন্য তাই চ্যালেঞ্জিং হবে।’

বর্তমানে দারুণ ফর্মেও আছেন রশিদ খান। তাই তাকে খেলতে এর মধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন মুশফিক। তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি কিছু কাজ করছি। কোন শট খেললে স্কোর করতে পারবো, তা নিয়ে কাজ করছি। আর দল হিসেবে একটা ভালো পরিকল্পনা করতে হবে, তা যাতে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি। টি-টোয়েন্টি এমন, যেখানে একজন বোলারকে দেখে খেলার সুযোগ নাই। অবশ্যই একটা পরিকল্পনা করতে হবে, যেখানে একটু ঝুঁকি নিয়ে হলেও যাতে রানটা আমি করতে পারি।’

তবে শুধুই রশিদ খানকে হুমকি মানছেন না মুশফিক। তার তালিকাতে আছেন মুজিব জাদরানও। এছাড়াও ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারেন মোহাম্মদ নবীও। তাই তাদের বিপক্ষে সঠিক পরিকল্পনা করে খেলতে চান মুশফিক। আর তার জন্য নিজেদের উচ্চদক্ষতাসম্পন্ন ক্রিকেটার আছে বলেও জানান তিনি। মুশফিক বলেন, ‘ওদের শুধু রশিদ খান না, মুজিবও নতুন বলে ভালো করে থাকে। আমাদের ওইভাবে পরিকল্পনা করে এগোতে হবে। আশা করি আমরা পারবো। কারণ আমাদের উচ্চদক্ষতাসম্পন্ন ক্রিকেটার আছে। তারা যদি ক্লিক করে তাহলে এটি খুব ভালো একটা সিরিজ হবে।’

এদিকে বাংলাদেশের অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই হতাশ মুশফিক। তিনি বলেন,‘এটা বোর্ডের ব্যাপার। কেন বাদ হলো- এ বাপারে আমার মন্তব্য করা কঠিন। কিন্তু আমরা খেলার জন্য মুখিয়ে ছিলাম। ওরা (অস্ট্রেলিয়া) এখানে এসেছিল। আমাদেরও ইচ্ছা ছিল সেখানে (অস্ট্রেলিয়া) গিয়ে খেলার, কেননা কখনও খেলা হয়নি। আমার কাছে অন্যরকম অনুভূতি ছিল, সব মিলিয়ে আমি হতাশ।’ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে ইংল্যান্ডে। ১৯৯২ বিশ্বকাপের মতো সামনের আসরেও রবিন রাউন্ড পদ্ধতিতে অংশ নেওয়া ১০ দল মুখোমুখি হবে একে অন্যের।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :