দুপুর ১:২২, শুক্রবার, ২৫শে মে, ২০১৮ ইং
/ অলিম্পিক (বিওএ) / যুব গেমরে চূড়ান্ত পর্ব শনিবার
যুব গেমরে চূড়ান্ত পর্ব শনিবার
মার্চ ৮, ২০১৮

ভবিষ্যতের প্রতিভাবান খেলোয়াড় খুজে বের করার লক্ষে দেশজুড়ে প্রথমবারের মত আয়োজন করা হয়েছে বাংলাদেশ যুব গেমস। দলগত ও ব্যকিতগত মিলে মোট ২১ ডিসপ্লিনে প্রায় ২ হাজার ৬৬০ জন প্রতিযোগী অংশ নেবেন। চূড়ান্ত পর্বে ৩৪২ স্বর্নপদকের জন্য লড়াই করবে ক্রীড়াবিদরা।

কয়েকটি ডিসিপ্লিন বাদে প্রায় সবগুলোরই উপজেলা পর্যায় থেকে জেলা ও বিভাগ শেষ হয়ে চুড়ান্ত পর্বের অপেক্ষা। দলগত ডিসিপ্লিনে রয়েছে –ফুটবল, কাবাডি, বাস্কেটবল, ভলিবল, হ্যান্ডবল ও হকি এবং ব্যক্তিগত ডিসিপ্লিনে রয়েছে – অ্যাথলেটিক্স, অ্যারচ্যারি, সাতার, টেবিল টেনিস, ভারোত্তলন, টেনিস, রেসলিং, উসু, শুটিং, ব্যাডমিন্টন, বক্সিং, দাবা, জুডো, কারাতে, তায়কোয়ানদো ও স্কোয়শ।

২১টি ডিসিপ্লিনের জন্য ইতোমধ্যে ভেন্যু চূড়ান্ত হয়েছে। গত বছর ১৮ থেকে ২৪ ডিসেম্ভর ২৭ হাজারের উপর ক্রীড়াবিদ পাশাপাশি প্রশিক্ষক, সংগঠক অফিসিয়াল, রেফারী ও জাজ মিলে প্রায় ৪৮ হাজার অংশগ্রহনকরাী গেমসের প্রাথমিক পর্যায়ে অংশ নেয়। আজ বৃহস্পতিবার বিওএ ভবনের ডাচ-বাংলা অডিটরিয়ামে গেমসের বিভিন্ন বিয়ষ উপস্থাপন করেন বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা। অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে উপস্থিাত ছিলেন গেমসের মিডিয়া ও পাবলিসিটি কমিটির চেয়ারম্যান শেখ বশির আহমেদ, বিওএর উপমহাসচিব আশিকুর রহমান মিকু ও আসাদুজ্জামান কোহিনুর।

প্রতি দুই বছর অন্তর অন্তর বাংলাদেশ গেমস ও বাংলাদেশ যুব গেমস আয়োজনের ঘোষনা দেন বিওএ মহাসচিব। চূড়ান্ত পর্ব থেকে বাছাইকৃত তরুন ক্রীড়াবিদদের পরবর্তীতে সংশ্লিস্ট ফেডারেশন সমূহ উন্নত প্রশিক্ষনের সুযোগ দিবে বলে মিডিয়াকে জানান বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা।

আগামী শনিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্ধোধনী ঘোষনার মধ্যে দিয়ে গেমসের চুড়ান্ত পর্বের আনুষ্টানিকতা শুরু হবে। তবে ইতিমধ্যে ফুটবলসহ বেশ কিছু ডিসিপ্লিনের মাঠের লড়াই শুরু হয়েছে। সাফ ও কমনওয়েলথ গেমসে স্বর্ণজয়ী শুটার আসিফ হোসেন খান উদ্বেধানী অনুষ্টানে মশাল প্রজ্জ্বলন করবেন।

মার্চপাস্টে আট বিভাগীয় দলের খেলোয়াড়রা নিজ নিজ ব্যানারে অংশ নেবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে আকর্ষনীয় করতে ব্যাপক পরিকল্পনা নে‌ওয়া হয়েছে। লেজার শো, আতশবাজি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছাড়াও অনুষ্ঠানকে আকর্ষনীয় করতে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট অন্তর শো বিজের ব্যবস্থাপনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকবে নুতনত্ব বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রতিযোগিতা আয়োজনে ২১টি ক্রীড়া ফেডারেশনকে দেয়া হয়েছে দায়িত্ব। ফেডারেশন সমূহের মাধ্যমে অংশগ্রহনকারী ক্রীড়াবিদদের আবাসন সুবিধা দেয়া হয়েছে, দৈনিক ভাতা বন্টন এবং আসা-যাওয়ার খরচও ইতোমধ্যে দেয়া হয়েছে। অংশগ্রহনকারী ক্রীড়াবিদদের সবাইকে দেয়া হয়েছে ট্র্যাকস্যুট এবং বিভাগীয় দলের জার্সি। বাংলাদেশ যুব গেমসের চূড়ান্ত পর্ব থেকে সেরাদের খুঁজে বের করতে বিওএ এবং ফেডারেশনসমূহের সমন্বয়ে টেকনিক্যাল কমিটি গঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ যুব গেমসের চূড়ান্ত পর্বে বয়স নির্ধারনী পরীক্ষা দিতে হয়েছে ক্রীড়াবিদদের। বাংলাদেশ যুব গেমসের মেডিকেল কমিটি সে পরীক্ষা নিয়েছে।

২০ কোটি টাকা বাজেটের এই আসরের চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহনের জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাছাইকৃত সেরা তরুন ক্রীড়াবিদরা জড়ো হতে শুরু করেছে ঢাকা। চূড়ান্ত পর্বে পদক পাবেন বিজয়ীরা। বিজয়ী দল পাবে ট্রফি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :