সন্ধ্যা ৭:৪২, বৃহস্পতিবার, ২৪শে মে, ২০১৮ ইং
/ ক্রিকেট / রাজ্জাকের রাজসিক ফেরা
রাজ্জাকের রাজসিক ফেরা
ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮

বাংলাদেশ দলের হয়ে অভিষেকটা মোটেই সুখকর হয়নি আব্দুর রাজ্জাকের। ২০০৬ সালে চট্টগ্রামে, রিকি পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়ার কাছে সেই টেস্টে ইনিংস ও ৮০ রানে হেরেছিলো বাংরাদেশ। আর ৩০ ওভার বল করে ৯৯ রানের খরচায় রাজ্জাক ছিলেন উইকেটবিহীন।

এর আগে শেষ টেস্ট খেলেন তিনি এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই চট্টগ্রামে ২০১৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি। সেই ম্যাচ ড্র হলেও ৪ ওভারের বেশি বল করার সুযোগ পাননি তিনি।

কাঁটায় কাঁটায় ৪ বছর পর আবারও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই সাদা পোশাকে প্রত্যাবর্তন রাজ্জাকের। এবার সত্যি এক রাজার মতো, মাথা উচু করে। শ্রীলঙ্কার ইনিংসে ষষ্ঠ ওভাওে প্রথম বলে দিমুথ করুনারতেœকে তুলে নিয়ে উইকেট শিকারের শুরু এই বাঁহাতি স্পিনারের।

এরপর নিজের দ্বিতীয় স্পেলে জাগিয়ে তুলেছিলেন হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা। ২৮তম ওভারের প্রথম বলেই রাজ্জাক দানুষ্কা গুনাতিলকাকে, মুশফিকের তালুবন্দি করিয়ে দ্বিতীয় শিকার ধরেন।

পরের বল সাপের মতো ছোবল মারে লঙ্কান অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালের স্ট্যাম্পে। সোজা ব্যাটে খেলেও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি চান্দিমাল।

রোশন সিলভা এসে রাজ্জাককে হ্যাটট্রিক বঞ্চিত করেন। সকালের সেশনে একাই ৩ উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশকে ভালো শুরু এনে দেন রাজ্জাক। মধ্যাহ্ন বিরতির পর আবারও উইকেট শিকারে নামেন এই অফস্পিনার। আগের বলে রাজ্জাককে বাউন্ডারি ছাড়া করে বেশ আত্মবিশ^াসী হয়ে উঠেছিলেন, লংকান ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান করা কুশল মেন্ডিস। রাজ্জাক নিজের অষ্টম ওভারের দ্বিতীয় বলে কুশলের স্ট্যাম্প আকাশে ভাসিয়ে দেন।

৫ উইকেটে তখন শ্রীলঙ্কার পুঁজি ১০৯ রান। আর এতে ক্যারিয়ারের ১৩তম টেস্ট খেলতে নামা রাজ্জাক কোনো ইনিংসে প্রথমবারের মতো পান ৪ উইকেট। ১৩ ম্যাচে তার সংগ্রহ বেড়ে হলো ২৭। সামনে আরো এগিয়ে যাওয়ার হাতছানি রাজ্জাকের।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :