রাত ১১:৫৩, মঙ্গলবার, ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং
/ ফুটবল / বিপিএলে লাইন্সেস নিয়ে কড়াকড়ি
বিপিএলে লাইন্সেস নিয়ে কড়াকড়ি
ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮



ক্লাব লাইন্সেস না থাকলে এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলতে পারবেনা কোন দল। এমন কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছে বাফুফে। ফুটবলের অভিভাবক সংস্থাটির এ ঘোষণায় দ্রুতই লাইন্সেস পেতে সব ধরণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে প্রস্তুত ক্লাবগুলো। এদিকে, চলতি বছর বাফুফে’কে আরো তিন-চারটি মিনি আর্টিফিশিয়াল টার্ফ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন।

এছাড়াও প্রেসিডেন্ট প্রকল্পের আওতায় ২০২০ সালের মধ্যে বাফুফেকে দুই কোটি আড়াই লাখ টাকা দেবে এএফসি। দু’দিনের সফরে এসে এমনটিই জানান, এএফসির ডেভেলপমেন্ট কর্মকর্তা ইয়োগেস দেসাই। ২০১৮ সালে দেশের ফুটবলের উন্নয়নে এএফসির কাছ থেকে কি কি সুবিধা পেতে পারে বাফুফে, কোন্ কোন্ বিভাগে কি কি উন্নতি আনা যেতে পারে তা পর্যবেক্ষণে ঢাকায় এএফসির দুই কর্মকর্তা ডোমেকা গ্রামান্দি ও ইয়োগেস দেসাই। দিনভর বাফুফের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে হয়েছে আলোচনা।

তৃণমূল পর্যায়ে ফুটবলের উন্নয়নে গেল বছর বাফুফেকে তিনটি টার্ফ দিয়েছিলো এএফসি। এবছর আরো তিন থেকে চারটি টার্ফ দেয়ার পরিকল্পনা আছে তাদের। ইয়োগেস দেসাই বলেন, এএফসির প্রেসিডেন্ট প্রকল্পের আওতায় ২০২০ সালের মধ্যে বাফুফেকে দুই কোটি ৪০ লাখ টাকা দেবে এএফসি। এ অর্থ বাফুফে তাদের স্টেডিয়াম ও ফুটবলের উন্নয়নে ব্যয় করতে পারবে। এছাড়াও এবার আমরা তাদের আরো তিন-চারটি টার্ফ দিয়ের চিন্তা করছি।

এবার বিপিএলের খেলা হয়েছে একটি মাত্র ভেন্যুতে। বিষয়টি মোটেও সহজভাবে নেয়নি এএফসি। সমস্যা সমাধানে আগামী মৌসুমে কমপক্ষে ৫টি ভেন্যুতে লিগের ম্যাচ আয়োজন করতে চায় বাফুফে। বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ জানান, এক মাঠ কেন্দ্রিক লিগ, এতে তাদের প্রবল অনীহা। ঢাকার বাইরে যদি আমরা আরো ৬টা মাঠ পাই, তাহলে দুটো করে ভাগ করে দেয়া হয় তাও এটা একটু শেপে আসবে।

পেশাদার ফুটবলে উন্নত দেশগুলোতে ক্লাবের নিবন্ধন যেখানে প্রথম এবং প্রধান শর্ত। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সেটা বরাবরই ক্লাবগুলোর ইচ্ছের ওপর নির্ভরশীল। নিবন্ধন না করেও, এতদিন বহাল তবিয়তে বিপিএলে অংশ নিয়েছে ক্লাবগুলো। তবে, এবার আর তা হচ্ছেনা। মৌসুম শুরুর আগেই বিপিএলের ১২টি দলকে সেরে ফেলতে হবে নিবন্ধন। নয়তো বন্ধ হয়ে যাবে বিপিএলের দরজা। বাফুফের এ সিদ্ধান্তে নড়েচড়ে বসেছে ক্লাবগুলো। তাতে আগামী জুন-জুলাইয়ের মধ্যেই নিবন্ধন সেরে নিতে চায় বিপিএলে অংশ নেয়া সবকটি ক্লাব।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :