সকাল ৬:৪২, মঙ্গলবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ আরচ্যারি / আর্চারির ইতিহাসে বাংলাদেশের সেরা সাফল্য
আর্চারির ইতিহাসে বাংলাদেশের সেরা সাফল্য
ডিসেম্বর ১, ২০১৭

প্রত্যাশার মাত্রাকে‌ও ছাড়িয়ে গেছে এশিয়ান আর্চারির আয়োজক বাংলাদেশ। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে স্বাগতিক দলের লক্ষ্য ছিল শীর্ষ দশে থাকা। কিন্তু সেই প্রত্যাশাকে ছাপিয়ে এবারের আসরে বাংলাদেশ শীর্ষ সাতে উঠে এসেছে।

শুধু তাই নয়, প্রথম দুই দিন স্বাগতিক দলের হয়ে আলো ছড়িয়েছে আবুল কাশেম মামুন। পুরুষ একক কম্পাউন্ড ইভেন্টে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে তিনি চমক দেখান। এবারের আসরে তার সফলতাকেই সেরা মনে করা হচ্ছিল স্বাগতিক শিবিরে। কিন্তু আজ বৃহস্পতিবার মহিলা দলগত কম্পাউন্ডের সেমিফাইনালে উঠে শুধু চমকই দেখাননি বাংলাদেশের তিন আর্চার রোকসানা আক্তার, বন্যা আক্তার ও সুস্মিতা বণিক; পদক জয়ের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন।

এবারো বাংলাদেশ দলের বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ভারত। অভিষেক ভার্মা মামুনকে বিদায় করেছিলেন কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে। আর বৃহস্পতিবার সেমিফাইনালে ভারতের কাছে হেরে প্রথমবারের মত এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হল বাংলাদেশ নারী দল। এরপর ব্রোঞ্জের লড়াইয়ে আরেক শক্তিশালী দল ইরানের কাছে হেরে এবারের মতো এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপের সমাপ্তি ঘটায় তারা।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সকালে কোয়ার্টার ফাইনালে চাইনিজ তাইপের মুখোমুখি হয় রোকসানা-বন্যা-সুস্মিতারা। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে তাইপেকে ২২৪-২২২ পয়েন্টে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে শেষ চারে পা রাখে আর্চাররা।

এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপের যে কোনো ইভেন্টের সেমিফাইনালে ওঠাই বাংলাদেশ আর্চারির ইতিহাসে সেরা সাফল্য। কিন্তু সেমিতে ভারতের বিপক্ষে কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। হারে ২২৮-২১৩ পয়েন্টের ব্যবধানে।

অভিজ্ঞতা আর ম্যাচ কম খেলা এ দুইয়ের অভাবেই এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে স্বাগতিক হয়েও ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। যদিও এই টুর্নামেন্টে পদক জেতার আশা ছিল না। ভালো খেলাই ছিল বাংলাদেশের লক্ষ্য। এবার সেই লক্ষ্যেও চেয়েও বেশি সফলতা অর্জন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের কোচ নিশীথ দাস।

তিনি বলেন, ‘ইরান শক্তিশালী দল। তাদের সঙ্গে পেরে ওঠা কঠিনই। তারপরও মেয়েরা যতটুকু চেষ্টা করেছে ভালোই করেছে। আমাদের ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা খুবই কম। বেশি বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলে আমার দল ভবিষ্যতে আরো ভালো ফল করবে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :