বিকাল ৫:০৯, বৃহস্পতিবার, ২৩শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / টস জিতে ব্যাটিং নেয়া উচিত পার্লে
টস জিতে ব্যাটিং নেয়া উচিত পার্লে
অক্টোবর ১৭, ২০১৭

পার্লের বোল্যান্ড পার্ক স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা। খেলাটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর দুইটা থেকে। বোল্যান্ড পার্কে এবারই প্রথম খেলতে নামছে টাইগাররা। ক্রিকেট ছাড়া‌ও অনেক খেলাই হয় এই স্টেডিয়ামে। ২০০৩ সালে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের তিনটি ম্যাচ হয়েছিলো এখানে। আকারে অনেকটাই ছোট মাঠটি।

বোল্যান্ড পার্কে ক্রিকেট ক্যানভাসের আগে সবার দৃষ্টি কাড়বে উঁচুতে থাকা পাহাড়ের সাথে মেঘদলের আলিঙ্গন। পাহাড়ে ঘেরা পুরো স্টেডিয়াম এলাকায় এমন নয়োনাভিরাম দৃশ্য চোখ আটকে রাখবে।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা মাথায় রেখেই ১৯৯৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় বোল্যান্ড পার্কের। ২০১৩ সালে সর্বশেষ ওয়ানডে হয়েছে এখানে। তবে মাঠ ও আউটফিল্ডের জীর্ণ দশা বেশ অবাক করবে সবাইকে। মাঠের বেশিরভাগ জায়গায় ঘাস নেই। একেবারে এবড়ো-খেবড়ো। এতে করে ক্রিকেটারদের ইনজুরির প্রবণতা বেশ থেকেই যায়। তারপরেও মাঠ প্রশাসনের দাবি ম্যাচ আয়োজনে প্রস্তুত তারা।

বোল্যান্ড পার্কের প্রধান নির্বাহী জেমন ফ্র্যাথারটেন বলেন, ‘ম্যাচ আয়োজনের সব ধরণের প্রস্তুতি আমরা শেষ করেছি। কিছু জায়গায় এখনো কাজ করতে হবে। তবে সময়মতো সব ঠিক হয়ে যাবে। আর হ্যাঁ, এখানকার উইকেটে রান আসে প্রচুর।’

বাংলাদেশের খেলা হবে বলে প্রবাসীদের মাঝে ব্যাপক আগ্রহ। কেপটাউন থেকে পার্লের দূরত্ব ৬০ কিলোমিটারের মতো। কেপটাউনে আছে আন্তর্জাতিক মানের দারুণ সব স্টেডিয়াম। কিন্তু তারপরেও পার্লে খেলা পড়ায় হতাশ প্রবাসীরা।

দশ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন এই স্টেডিয়ামে ওয়ানডে ম্যাচ হয়েছে মোট ১০টি। বাংলাদেশ অভিষেকের অপেক্ষায়। দক্ষিণ আফ্রিকা খেলেছে চারটি ম্যাচ। তিনটিতে জিতলেও সর্বশেষটি হেরেছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

কিম্বার্লি থেকে পার্লের আবহাওয়া একেবারে বিপরীত। শীত আছে বেশ, হয়েছে বৃষ্টিও। তবে স্থানীয় আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে আশার খবর, দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আকাশ থাকবে পরিষ্কার। উইকেটে রান আসে প্রচুর তাই টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে সঠিক। বোল্যান্ড ক্রিকেট টিম ‌ও কেপ কোবরা’র হোম গ্রাউন্ড এই মাঠটি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :