রাত ২:৪৭, মঙ্গলবার, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / আর্জেন্টিনার বাঁচা-মরার লড়াই
আর্জেন্টিনার বাঁচা-মরার লড়াই
অক্টোবর ১০, ২০১৭

ইকুয়েডরে পৌছেই আর্মড পুলিশের কঠোর নিরাপত্তা পেলো লি‌ওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। কিন্তু এতো নিরাপত্তা‌ও কী তাদেরকে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের ছাড়পত্র পাইয়ে দেবে? এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব থেকে ছিটকে পড়ার শঙ্কায় থাকা আর্জেন্টিনা, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৯ হাজার ফুট উপরে থাকা ইকুয়েডরের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বলে বিশ্বাস কোচ জর্জ সাম্পাওলির। আগামীকাল বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে পাঁচটায় শুরু হবে ইকুয়েডর-আর্জেন্টিনা ম্যাচটি।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে গত সপ্তাহে পেরুর সঙ্গে নিজেদর মাঠে ড্র করে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে নেমে গেছে আর্জেন্টিনা। আর তাতে ১৯৭০ সালের পর প্রথম বিশ্বকাপে উঠতে না পারার শঙ্কায় পড়েছে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

ইকুয়েডরে পৌঁছানোর পরে আর্জেন্টিনা দল

বাছাইপর্বের দ্বিতীয়স্থানের দল উরুগুয়ের চেয়ে ১০ পয়েন্ট এগিয়ে আছে ৩৮ পয়েন্ট পা‌ওয়া ব্রাজিল। ২৬ পয়েন্ট করে নিয়ে তৃতীয় ‌ও চতুর্থস্থানে আছে চিলি ‌ও কলম্বিয়া। পঞ্চম স্থানে থাকা পেরুর পয়েন্ট ২৫। আর্জেন্টিনার পয়েন্টও তাই; দুই দলের গোল ব্যবধানও সমান। তবে কম গোল করায় পিছিয়ে আছে সাম্পাওলির দল।

এই অঞ্চল থেকে সেরা চারটি দল সরাসরি খেলবে আগামী বছরের বিশ্বকাপে। পঞ্চম দলটির সুযোগ পেতে হলে প্লে-অফ খেলে জিততে হবে ওশিয়ানিয়া অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

অবশ্য বিশ্বকাপ ভাগ্য নিজেদের হাতেই আছে আর্জেন্টিনার। শেষ রাউন্ডে তাদের উপরে থাকা দুই দল পেরু ও কলম্বিয়া বুধবার একই সময়ে মুখোমুখি হবে। এই ম্যাচ ড্র হলে আর আর্জেন্টিনা ইকুয়েডরকে হারাতে পারলে সরাসরিই পাবে রাশিয়ার টিকেট। আর্জেন্টিনা জিতলে আর পেরু ও কলম্বিয়ার মধ্যে যারা হারবে তারা চলে যাবে আর্জেন্টিনার নিচে। ফলে অন্য সব ম্যাচে যে ফলই হোক না কেন জিততে পারলে অন্তত পঞ্চম স্থানে থেকে প্লে-অফ খেলার সুযোগ পাবে লিওনেল মেসির দল। আবার একই সময়ে হতে যাওয়া ম্যাচে ব্রাজিলের মাঠে চিলি জিততে না পারলে আর্জেন্টিনা নিজেদের ম্যাচে জিতলে শীর্ষ চারে থেকে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার টিকেট পাবে।

যেকোনো হিসেবেই ইকুয়েডরের মাঠে আর্জেন্টিনার সামনে জয়ের বিকল্প নেই। মহাগুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে নামার আগে প্রতিপক্ষের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স লিওনেল মেসিদের জন্য কিছুটা আশা জাগানিয়া। আগেই বিশ্বকাপে ওঠার লড়াই থেকে ছিটকে পড়া ইকুয়েডর বাছাইপর্বে নিজেদের শেষ পাঁচ ম্যাচ হেরেছে। তবে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৯ হাজার ফুট উচ্চতায় কিয়েটোতে, ২০০১ সালের পর থেকে ইকুয়েডরকে হারাতে পারেনি আর্জেন্টিনা। এবারকার বাঁচা-মরার লড়াইয়ে সেই কাজটিই করে দেখাতে হবে আর্জেন্টাইনদের। তা না হলে ১৯৭০ সালের ব্যর্থতায় ফিরে যেতে হবে পাঁচবারের বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় লি‌ওনেল মেসির দল আর্জেন্টিনাকে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :