ধাঁধায় ফেলেছে উইকেট !

ধাঁধায় ফেলেছে উইকেট !

শামীম চৌধুরী, চট্টগ্রাম থেকে ঃ হোমে পর পর ২ টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ।
দু’টিই মিরপুরেÑইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় দিনে,অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে
সেখানে সাড়ে তিন দিনে উৎসব করেছে মুশফিকুররা। তবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ
চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট তার চিরায়ত রূপে ভাস্বর। যে ভেন্যুতে ১৫
টেস্টের ১০টি টেনে নিয়েছে বাংলাদেশ ৫ম দিনে, ২০১১ সালে পাকিস্তানের কাছে
চতুর্থ দিনে হারের পর টানা ৪ টেস্ট ৫ম দিনে টেনে নেয়ার অতীত আছে,
ইংল্যান্ডের কাছে শ্বাসরুদ্ধকর টেস্ট ৫ম দিনে গড়িয়েছে যে মাঠে ১৫ বল, সেই
মাঠে যে আর একটি টেস্ট ৫ম দিনে টেনে নেয়ার উপক্রম। বৃস্টির কারনে উইকেটের
উপর রোলার চালানো সম্ভব হয়নি, প্রচন্ড রোদ আর ভ্যাপসা গরমে এমন পীচ ফেটে
চৌচির হবার কথা, সেই পীচই কি না প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিনে ভুগিয়েছে
বোলারদের ! দ্বিতীয় দিনে নির্বিঘেœ অস্ট্রেলিয়া ৪ ঘন্টা ১৫ মিনিট
ব্যাটিংয়ে কাটিয়ে (২২৫/২) অন্তত: সে কথাই জানিয়ে দিয়েছে। দ্বিতীয় দিনের
খেলা শেষে নাসিরও বলছেন একই কথাÑ‘ মিরপুরের পিচে খুব হেল্প ছিলো। এখানে
তেমন বাউন্স পাচ্ছে না বোলাররা। স্ট্যাম্পের বল তেমন টার্ন করছে না।
স্ট্যাম্পের বল টার্ন করলে লাভ হতো।’
ঢাকায় বাংলাদেশের স্পিন তোপে পড়ে চট্টগ্রাম টেস্টে আরো ভয়ংকর কিছুর আলামত
পেয়েছিলেন অজি কোচ ড্যারেন লেহম্যান। দ্বিতীয় দিনের ব্যাটিং দেখে সেই
ভীতি কেটে গেছে এই অজি কোচেরÑ‘ প্রথম টেস্টের চেয়ে এটি পুরোপুরি ভিন্ন এক
উইকেট। কিন্তু এটা তো আমাদের পছন্দে করা হয়নি। আমি ধরে নিয়েছিলাম, এই
উইকেট থেকে অনেক টার্ন পাবে। প্রথম টেস্টে তারা বড় বড় টার্নে আমাদেরকে
পরাস্থ করেছে। তারপরও মনে করছি ম্যাচ যতো এগুবে,ততো টার্ন ধরবে।
উপমহাদেশের উইকেট এমনই হয়ে থাকে। ’
প্রথম ইনিংসটা বড় করতে না পারায় দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে আফসোস করেছেন
নাসিরÑ‘ যে রকম উইকেট, তাতে আমার মনে হয় আমরা ১০০ থেকে ১৫০ রান কম করে
ফেলেছি। আমাদের অন্তত ৪০০ থেকে ৪৫০ রান করা উচিত ছিলো।’
একটি ক্যাচ ড্রপ এবং স্ট্যাম্পিং মিসেরও মাশুল দিয়েছে বাংলাদেশ দল এদিন,
এমনটাই মনে করছেন নাসিরÑ‘ ক্যাচ ও স্ট্যাম্পিং করতে পারলে দিন শেষে
অবশ্যই ব্যাপারটা অন্য রকম হতো। ওদের তিন উইকেট পড়ে যেতো। আর ক্যাচটা
কিন্তু ফিফটি-ফিফটি ছিল। তবে স্ট্যাম্পিংয়ের বলটা খুব নিচু ছিলো। তারপরও
যদি নিতে পারতাম, ভালো হতো।’ তবে বাংলাদেশ ফিল্ডাররা এই দু’টি সুযোগ
হাতছাড়া করে যখন অপরাধবোধে তাড়িত,তখন তৃতীয় ইনিংসে দারুন ফিল্ডিংয়ে
ম্যাচের কর্তৃত্ব নেয়ার অঙ্গীকার অস্ট্রেলিয়া কোচ ড্যারেন লেহম্যানেরÑ‘
কেউ তো সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইবে না। আমরা বরং সকালে বেশ ক’টি সুযোগ
হাতছাড়া করেছি। তবে আগামীকাল যদি সুযোগ পাই, তাহলে ভাল স্কোর করতে চাইব।
এবং যখন আমরা বোলিংয়ে আসব,তখন সুযোগগুলো কাজে লাগানো নিশ্চিত করব।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD