সকাল ১১:১৬, শুক্রবার, ২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / সুপার কাপ জিতে ডেল বস্ককে ছুঁলেন জিদান
সুপার কাপ জিতে ডেল বস্ককে ছুঁলেন জিদান
আগস্ট ১৭, ২০১৭

দায়িত্ব নেওয়ার দুই মৌসুমের মধ্যেই শিরোপা সাফল্যে রিয়াল মাদ্রিদের তৃতীয় সেরা কোচের তালিকায় উঠে আসলেন জিনেদিন জিদান। প্রায় ২০ মাসে লা ব্ল্যাঙ্কোদের সাতটি ট্রফি জিতিয়ে তিনি স্পেনের বিশ্বকাপ জয়ী দলের কোচ ভিসেন্তে ডেল বস্ককে ছুঁয়ে ফেললেন। এগুলো সবই তার সাফল্যের স্বীকৃতি।
নিজেদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে গতকাল বুধবার রাতে, স্প্যানিশ সুপার কাপে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ৫-১ গোল গড়ে রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়ন করার পাশাপাশি শিরোপা সাফল্যে ডেল বস্ককেও ছুঁয়ে ফেলেন, ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী দলের মিডফিল্ডার জিনেদিন জিদান।
এরআগে গত ৮ আগস্ট মেসিডোনিয়ার স্কপিয়েতে, কাসেমিরো ও ইসকোর গোলে ইউরোপা লিগ জয়ী ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে সুপার কাপ জিতে নেয় ‘লা ব্ল্যাঙ্কো’রা। তাতে বার্নাব্যুতে কোচের দায়িত্ব পাওয়ার ১৯ মাসে রিয়াল মাদ্রিদকে ছয়টি ট্রফি এনে দেন ‘জিজ্জু’।
২০১৬ সালের জানুয়ারিতে রাফায়েল বেনিটেজের পরিবর্তে রিয়াল মাদ্রিদের দায়িত্ব দেয়া হয় জিদানকে।চার মাসের মাথায় তিনি দলকে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা পাইয়ে দেন। আর গত মৌসুমে তিনি রিয়াল মাদ্রিদকে ’লা লিগা’ চ্যাম্পিয়ন করান। আর তার নেতৃত্বে ওয়ার্ল্ড কাব কাপের শিরোপা জিতে রিয়াল আবারও প্রমান করে বর্তমান বিশ্বে তারাই সেরা দল। এরপর আবারও তারা ধরে রাখে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা। গত রাতে আসেনসিও এবং করিম বেনজেমার প্রথমার্ধে দেয়া দুই গোলে বার্সেলোনাকে ২-০ তে হারায় রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম লেগে ৩-১ গোলে এগিয়ে থাকায় ৫-১ ব্যবধানে স্প্যানিশ সুপার কাপ জেতে রিয়াল। তাতে সাতটি শিরোপা জিতিয়ে সাফল্যের বিচারে ছেন তৃতীয় স্থানে, ডেল বস্ককের সঙ্গী হন জিদান। আটটি শিরিপো জেতানো লুইস মুলনি আছেন দ্বিতীয় স্থানে। আর ৯টি লিগ, ২টি ইউরোপিয়ান কাপ, ২টি কোপা ডেল রে এবং একটি ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপ-সহ মোট ১৪টি শিরোপা জিতিয়ে মিগুয়েল মুনজ আছেন সবার ওপরে।
সুপার কাপ জিতে চলতি মৌসুমে এই নিয়ে দ্বিতীয় ট্রফি পেলো জিনেদিন জিদানের রিয়াল মাদ্রিদ। তাছাড়া দশম সুপার কাপ শিরোপাও এটি রিয়ালের। এর আগে ২০১২ সালে এই বার্সেলোনাকে হারিয়েই সুপার কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো লা ব্ল্যাঙ্কোরা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :