সকাল ৬:৫১, রবিবার, ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / মঈনেই কুপোকাত দক্ষিণ আফ্রিকা
মঈনেই কুপোকাত দক্ষিণ আফ্রিকা
জুলাই ১০, ২০১৭

চতুর্থ দিন থেকেই বদলাতে শুরু করে লর্ডসের পীচের চরিত্র। দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৩১ রানে জয়ের লক্ষ্য দিয়ে তাই অনেকটাই নিশ্চিন্ত ছিল ইংল্যান্ড। তবে এভাবে ভেঙে পড়বে দক্ষিণ আফ্রিকা, সেটি হয়ত ভাবতে পারেননি ইংলিশরাও। ১৯ উইকেট পতনের দিনে বিধ্বস্ত প্রোটিয়ারা। তাতে লডর্স টেস্টে জয় পায় ইংলিশরা ২১১ রানে। চার ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি চার দিনে জিতে সিরিজে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড। ইংলিশ ক্রিকেটে রুট-যুগের শুরু হলো দারুণ এক জয়ে।
ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৫৩ রানে ৬ উইকেট নেন মইন। আগের সেরা ছিল ৬৭ রানে ৬ উইকেট। প্রথম ইনিংসের চারটিসহ ১০ উইকেট নিলেন ১১২ রানে। ম্যাচে ১০ উইকেটের স্বাদ পেলেন এই প্রথমবার।
দিনের শুরুতে কেশভ মহারাজের বল যেভবে টার্ন করেছে, সেটিই বলে দিচ্ছিল প্রোটিয়াদের অপেক্ষাতেও আছে কঠিন চ্যালেঞ্জ। ৪ উইকেট নেন মহারাজ। ১ উইকেটে ১১৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা ইংল্যান্ড থমকে যায় ২৩৩ রানেই।
প্রোটিয়াদের দশা হলো আরও করুণ। শুরুর ব্রেক থ্রু এনে দেন জেমস অ্যন্ডারসন। মাঝে জেপি দুমিনিকে ফেরান মার্ক উড। বাকি কাজ সেরেছেন দুই স্পিনার মইন ও লিয়াম ডসন। উইকেটে স্পিন ধরছে তাই প্রথম ওভারে উইকেট নেওয়ার পরও উডকে আর বোলিং করাননি জো রুট। নতুন বলে ব্রডও করেছেন ১ ওভার।
প্রমোশন পেয়ে পাঁচে নামা কুইন্টন ডি কক ও টেম্বা বাভুমা চেষ্টা করছিলেন প্রতিরোধের। কিন্তু মইনের বলে বোল্ড হন দুজনই। মাত্র ৩৬.৩ ওভারেই গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।
নেতৃত্বের অভিষেকে ১৯০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস আর জয়ে রাঙালেন রুট। তবে ৮৭ রানের দারুণ ইনিংসের পাশে ম্যাচে ১০ উইকেটে ম্যান অব দা ম্যাচ মঈন আলি। পরের টেস্ট ট্রেন্ট ব্রিজে আগামী শুক্রবার থেকে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড: ৪৫৮ ও ২৩৩।
দক্ষিণ আফ্রিকা: ৩৬১ ও ১১৯।
ফল: ইংল্যান্ড ২১১ রানে জয়ী।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :