দুপুর ২:১৭, বুধবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / এটাই আমার শেষ উইম্বলডন নয়: ফেদেরার
এটাই আমার শেষ উইম্বলডন নয়: ফেদেরার
জুলাই ১৭, ২০১৭

কোর্টের ধারে বসে তোয়ালেতে মুখ ঢেকে বসে তিনি। ক্যামেরা ক্লোজআপ ধরল। দেখা গেল, সম্রাটের চোখে জল। আট নম্বর উইম্বলডন খেতাব, ১৯ নম্বর গ্র্যান্ডস্ল্যাম জেতার পরে কাঁদছেন রজার ফেদেররার।
উইম্বলডনই আরাধ্য ছিল বলেই ক্লে কোর্ট মৌসুমে বিশ্রামে ছিলেন তিনি। ভীষণ ভাবে চেয়েছিলেন এই ট্রফিটা ঘরে তুলতে। সেই স্বপ্ন পূরণ হতেই আবেগের বাঁধ ভাঙল টেনিস কিংবদন্তির।

কেন এই বাঁধভাঙা আবেগ, তা তাঁর মন্তব্যেই আন্দাজ করা গেল। যখন বললেন, ‘আমার নায়কেরা এই উইম্বলডনের কোর্টে খেলেছেন। সে জন্যই এরকম এক ঐতিহাসিক টুর্নামেন্টকে মর্যাদা দিতে পারাটা আমার কাছে বিশাল ব্যাপার। নিজেকে সব সময় বলে এসেছি, তুমি ঠিক পারবে। আজ সত্যিই পারলাম। আট নম্বর উইম্বলডন খেতাব জয় আমার কাছে অসাধারণ এক অনুভূতি।’
ফেদেরারকে নিয়ে ভক্তদের প্রতিক্রিয়ায় একটা শব্দই উঠে আসছে— সুপার হিউম্যান। অতি মানব। সুপার হিউম্যানই বটে। না হলে ৩৫ বছর বয়সে দাঁড়িয়ে ট্রফি হাতে নিয়ে কেউ বলতে পারে, ‘আশা করি এটাই আমার শেষ উইম্বলডন নয়। আবার এখানে ফিরে আসতে চাই। আরও একবার সেন্টার কোর্টে নেমে নবম খেতাবটা জিততে চাই।’
কেনই বা এ কথা বলবেন না? একটা সেটও না হেরে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন হওয়া কি মুখের কথা? নিজের এই ঐশ্বরিক পারফরম্যান্সে নিজেই অবাক হয়ে গিয়েছেন ফেদেরার। বলেন, ‘বিশ্বাসই হচ্ছে না যে একটা সেটও হারিনি আমি। এটা যেন ম্যাজিক। অবিশ্বাস্য একটা ঘটনা। বাড়াবাড়ি।’ ১৯৭৬-এ বিয়র্ন বর্গও ঠিক এভাবেই কোনও সেট না হেরে চ্যাম্পিয়নের কাপ হাতে তুলেছিলেন। ৪১ বছর পর আবার সেই কীর্তিই ফিরে এলো ফেদেরারের র‌্যাকেটে।

উইম্বলডনের রার্নাসআপ মারিন সিলিচ

রেকর্ডের নাম রজার
একদিকে যখন ফেডেরারকে আনন্দে কাঁদতে দেখা যায়, তখন তাঁর প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়ার মারিন সিলিচের চোখেও কান্না। প্রথম সেটেই যে আঘাত পেয়েছিলেন তিনি। সেন্টার কোর্টে প্রথম সিঙ্গলস ফাইনালে নামা চিলিচ বলেন, ‘এটা ভেবেই কান্না পাচ্ছিল যে, নিজের সেরাটা আর দেওয়া সম্ভব নয়। কত কষ্ট করে এই জায়গাটায় আসতে হয়েছে। তার পর যদি মনে হয় যে এই ম্যাচে নিজের সেরাটা দেওয়া সম্ভব নয়, তা হলে তো আর আবেগের বশে চলে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই। এটা আমার কাছে একটা বিপর্যয় ছাড়া আর কী?’
তবে সিলিচকে নিয়ে ফেডেরারের যথেষ্ট সহানুভূতি রয়েছে। বলেন, ‘ছেলেটার দুর্ভাগ্য। ও রকম একটা আঘাত পেয়ে যাবে, তা ভাবতেই পারেনি ও। তবে তাও যথাসম্ভব ভাল খেলার চেষ্টা করেছে ও।’

ফেদেরার ও মুগুরুজা: চ্যাম্পিয়নশিপের ডিনারে

গতবারের উইম্বলডনের পর ছ’মাস বিশ্রাম থেকে ফিরে এ বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন আর উইম্বলডন খেতাব জয়। গত বছর একটাও খেতাব না পাওয়া ফেদেরার এ বছর মাত্র দু’টো ম্যাচ হেরেছেন। তাঁর কাছে এটা বড় প্রাপ্তি। ম্যাচের পর তিনি বলেন, ‘আমি খুবই অবাক বছরটা এত ভাল যাওয়ায়। দুটো গ্র্যান্ডস্ল্যাম জিতব ভাবিইনি।’ এই জয়ের পর বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বরে উঠে আসবেন ফেদেরার। তারপরে আরও উপরে ওঠার দৌড় শুরু হয়ে যাবে তাঁর।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




এই বিভাগের আরো খবর....
সিপিএল খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পথে মাহমুদউল্লাহক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মঙ্গলবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন এই অলরাউন্ডার। সিপিএলের চলতি আসরে জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে খেলবেন রিয়াদ। সাকিব আল হাসানও চলতি আসরে এই ফ্রাঞ্জাইজির হয়ে খেলেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মাহমুদউল্লাহ লেখেন, ‘ক্যারিবিয়ান দীপপুঞ্জের পথে।’ Bisk Club ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য ৬ সপ্তাহের ওপর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ট্রেনিং করেছেন। মানসিকভাবেও নিজেকে প্রস্তুত করেছিলেন টেস্ট খেলার জন্য। কিন্তু ১৪ সদস্যের ঘোষিত দলে জায়গা হয়নি এই অল রাউন্ডারের। আর এ সময়টা হেলায় নষ্ট না করে মাহমুদউল্লাহ ওয়েস্ট উন্ডিজ উড়াল দিলেন ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে। Riad চতুর্থ বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে সিপিএলে অংশ নিচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ। এর আগে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মেহেদী হাসান মিরাজ খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ঘরোয়া লিগে।ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মঙ্গলবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন এই অলরাউন্ডার। সিপিএলের চলতি আসরে জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে খেলবেন রিয়াদ। সাকিব আল হাসানও চলতি আসরে এই ফ্রাঞ্জাইজির হয়ে খেলেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মাহমুদউল্লাহ লেখেন, ‘ক্যারিবিয়ান দীপপুঞ্জের পথে।’ Bisk Club ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য ৬ সপ্তাহের ওপর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ট্রেনিং করেছেন। মানসিকভাবেও নিজেকে প্রস্তুত করেছিলেন টেস্ট খেলার জন্য। কিন্তু ১৪ সদস্যের ঘোষিত দলে জায়গা হয়নি এই অল রাউন্ডারের। আর এ সময়টা হেলায় নষ্ট না করে মাহমুদউল্লাহ ওয়েস্ট উন্ডিজ উড়াল দিলেন ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে। Riad চতুর্থ বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে সিপিএলে অংশ নিচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ। এর আগে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মেহেদী হাসান মিরাজ খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ঘরোয়া লিগে।