রাত ২:২৬, শনিবার, ২১শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তজাতিক / টাইব্রেকার ভাগ্যে ফাইনালে চিলি
টাইব্রেকার ভাগ্যে ফাইনালে চিলি
জুন ২৯, ২০১৭

টানা তিন টাইব্রেকার জিতে দুটি কোপা আমেরিকা শিরোপা চিলির ঘরে। আর একটি কনফেডারেশন্স কাপ জয়ের হাতছানি তাদের সামনে। গোল শূন্য নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময়ের পর, কনফেডারেশন্স কাপের প্রথম সেমিফাইনালে, ইউরোপ চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালকে পেনাল্টি শ্যূটআউটে ৩-০ গোলে পরাজিত করে, ফাইনালে উঠে যায়, চিলি।

আক্রমণ ছিল, ছিল কাউন্টার অ্যাটাকও। গোল মুখি শট কখনও থমকে গেছে প্রতিপক্ষের রক্ষণে। কখনও নিজের গোলের সামনে দেওয়াল তৈরি করেছেন দুই গোলকিপার। কিন্তু গোলের মুখ খুলতে পারেনি কেউই। তবে তুলনায় রোনালদোর দলের চেয়ে পিছিয়েই থাকবে চিলি। তাদের সুপারস্টার সানচেজও।

রাশিয়ার কাজানে কনফেডারেশন্স কাপের প্রথম সেমিফাইনালের শুরু থেকেই চিলির ওপর আধিপত্য ধরে রাখে পর্তুগাল। খেলার ৫ মিনিটে দারুণ এক সুযোগ মিস করে পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ব্রুনো আলভেজের বাড়ানো বল তার মাথা ছুঁইয়ে বাইরে চলে যায়। তবে পরের মিনিটেই পর্তুগিজ ডিফেন্ডারদের অফসাইড ট্র্যাপের ফাঁক গলে এডওয়ার্ডো ভার্গাসের চেষ্টা সফল হতে দেননি পর্তুগিজ গোলকিপার প্যাট্রিসিয়াও। সানচেজের কাছ থেকে বল পেয়ে গোলকিপারের গায়ে মেরে গোলের সহজ সুযোগ মিস করেন।
২৮ মিনিটে বামপ্রান্ত থেকে মউরেসিওর বাড়ানো বলে যদি ঠিক মতো মাথা ছোঁয়াতে পারতেন, চার্লস আরাঙ্গুয়েজ তবে তখনই এগিয়ে যেতে পারতো চিলিয়ানরা। এর দুই মিনিট পর আবারো ব্যর্থতার পরিচয় দেন, চার্লস আরাঙ্গুয়েজ।
পর্তুগালও বেশ কয়েকবার আক্রমণ চালায় প্রতিপক্ষের সীমানায়। তবে গোলের দেখা পায়নি। প্রথমার্ধ শেষের এক মিনিট আগে বার্নার্ড সিলভার কর্নারে আন্দ্রে সিলভা সঠিকভাবে হেড নিতে পারলে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিলো পর্তুগালেরও। তা না হওয়ায়, এভাবেই আক্রমণ আর পাল্টা আক্রমণের খেলার প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূণ্য ভাবে।

দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলই আক্রমণের ধার বাড়ায়। একবার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা নষ্ট হয় তো, পরেরবার ব্যর্থ হয় অ্যালেক্সিস সানচেজের আক্রমণ। এভাবে জমে ওঠে খেলা। কিন্তু সময় গড়ানের সঙ্গে সঙ্গে দর্শকরাও অধৈর্য হয়ে ওঠেন কোনো দল গোল না পাওয়ায়। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত সময়েও কোনো দল পায়নি গোলের দেখা। গোলশূণ্য অবস্থাতেই শেষ হয় নির্ধারিত সময়ের খেলা।
ফাইনালের যাত্রী নির্ধারণে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। ৯৫ মিনিটে মওরেসিও ইসলার বাড়ানো বলে সানচেজের হেড সাইডবার ঘেষে বাইরে চলে যায়। গোলের আরো একটি সহজ সুযোগ হারায়, পিজ্জির দল। পেনাল্টি শ্যূটআউটে আর গোল করতে ব্যর্থ হননি চিলির খেলোয়াড়রা। ৩-০ ব্যবধানে জিতে তারা এখন কনফেডারেশন্স কাপের ফাইনালে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :