রাত ১০:০৮, বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুন, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / ব্রাদার্সের কোচ এবার সুব্রত ভট্টাচার্য
ব্রাদার্সের কোচ এবার সুব্রত ভট্টাচার্য
মে ১০, ২০১৭

ব্রাদার্স ইউনিয়নের কোচের হিসেবে দায়িত্ব নিলেন কোলকাতা মোহনবাগান ক্লাবের ঘরের ছেলে খ্যাত সুব্রত ভট্টাচার্য। নতুন ফুটবল মৌসুমে ভারতীয় কোচ নাঈমুদ্দিনের সাথে কথাবার্তা প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছিল ব্রাদার্স ইউনিয়ন। কিন্তু হঠা করেই গোপীবাগের ক্লাবে না গিয়ে নাঈমুদ্দিন আশ্রয় নেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডে। ছয় মৌসুমের পুরনো কোচকে না পেয়ে কিছুটা আক্ষেপ ছিল ব্রাদার্স শিবিরে। তবে সেই আক্ষেপ কিছুটা হলেও লাঘব করেছে কমলা শিবির। ভারত থেকেই উড়িয়ে এনেছে নতুন মৌসুমের জন্য কোচ। নাম সুব্রত ভট্টাচার্য্য। শুধু ভারতীয়ই নয়, সুব্রত নাঈমুদ্দিনেরই শিষ্য। আসন্ন ঘরোয়া ফুটবলে গুরু-শিষ্যের লড়াই দেখতে পারবেন দেশের ফুটবল পাগলরা।
চলতি মাসের ১৩ তারিখ ফেডারেশন কাপ ফুটবল দিয়ে পর্দা উঠছে ঘরোয়া ফুটবলের নতুন মৌসুমের। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের ক্লাব পর্যায়ের কোনো দলের দায়িত্ব নিতে ঢাকায় এসেছেন সুব্রত। কোচ হিসেবে প্রথমবার আসলেও ঢাকার পরিবেশ তার অচেনা নয়। এরআগেও বেশ কয়েকবার বাংলাদেশে এসেছিলেন। এখানকার ফুটবল সম্পর্কেও তার ধারনা বেশ ভালো। আসলাম, মোনেম মুন্না, রুমি, গাউসের বিপক্ষে সেই আশির দশকে খেলার স্মৃতি এখনো সমুজ্বল তার। খেলোয়াড়ী জীবনের ইতি টানার পর গত ২০১৫ সালেও বাংলাদেশে এসেছিলেন তিনি। চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টুর্নামেন্টের প্রথম আসরে কলকাতা মোহামেডানের কোচ হিসেবে এদেশে এসেছিলেন সুব্রত। তাই নতুন দায়িত্ব নিলেও তা পালনে কোনো সমস্যা হবে না বলেই মনে করছেন তিনি, ‘ভারত-বাংলাদেশের ক্লাব ফুটবলে খুব বেশি পার্থক্য নেই। তবে জাতীয় দলে কিছু থাকলেও থাকতে পারে। তবে বাংলাদেশে ক্লাব ফুটবল যেভাবে চর্চা হয় সেটা অব্যাহত থাকলে আমার ধারণা ভারত যেমন আজ র‌্যাংকিংয়ে শ’তের ঘরে এসেছে, বাংলাদেশেরর আসতে সময় লাগবে না।’
নতুন মৌসুমে ব্রাদার্স ভালোমানের দল গড়তে পারেনি। কিছু তরুণ ও অনভিজ্ঞ কিছু খেলোয়াড় নিয়ে সাদামাটা দল গড়েছে গোপীবাগের ক্লাবটি। দলটি পরখ করার সময়-সুযোগও পাননি সুব্রত। হঠাৎ করে যেমন নাঈমুদ্দিন চলে গেছেন সাদা-কালো শিবিরে, তেমনিভাবে আচমকাই ব্রাদার্সের দায়িত্ব নিতে ঢাকায় এসেছেন সুব্রত। যে দলটি পেয়েছেন তাদের নিয়েই ভালো কিছুর লক্ষ্য ভারতীয় এ কোচের। গেল মৌসুম লিগে চতুর্থস্থানে থেকে শেষ করেছে ব্রাদার্স। এবার এক ধাপ উন্নতির লক্ষ্য নতুন কোচের।
দলকে যাচাই-বাছাই করতে না পারায় ফেডকাপে দল যেমনই করুন, তার জন্য কোচকে কোনো প্রকার দোষারোপ করা হবে ন।ি কিন্তু লিগে যদি দল প্রত্যাশানুযায়ী পারফর্ম করতে না পারে, সেক্ষেত্রে লিগ শেষের আগেই কলকাতা ফিরে যেতে হতে পারে সুব্রতকে- এমনটাই সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ব্রাদাস ম্যানেজার আমের খান। আজ (বুধবার) কোচের সামনেই আমের খান বলেন, ‘ফেডারেশন কাপের পারফরম্যান্স মূল্যায়িত হবে না। তবে লিগে দল প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স না পেলে মৌসুম শেষের আগেও বিদায়ঘণ্টা বেজে যেতে পারে কোচের।’ আর্থিক অনটনের কারনেই নতুন ও অনভিজ্ঞদের দিয়ে দল গড়া হয়েছে বলে জানালেন ক্লাবের সভাপতি নজরুল ইসলাম, ‘ব্রাদার্স খেলোয়াড় তৈরি করে দেয়। ব্রাদার্সে এক মৌসুম খেলেই পরের মৌসুমে ওই খেলোয়াড়রাই বড় বড় ক্লাবে সুযোগ পায়। তাছাড়া দল গড়তে অনেক টাকার প্রয়োজন হয়। যেটা ব্রাদার্সের মতো দলের পক্ষে সম্ভবপর নয়।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :