সকাল ১০:২৫, সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডানকে হারালো আবাহনী
ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ
চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডানকে হারালো আবাহনী
মে ৮, ২০১৭

দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বির জমজমাট লড়াই আবারো উপভোগ করলো বিকেএসপির দর্শকরা। আবাহনীর পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে সামান্য বিচলিত হয়নি মোহামেডানের ক্রিকেটাররা। তবে অধিনায়ক রকিবুল হাসানের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি সত্ত্বেও শেষ রা হয়নি সাদা-কালো শিবিরের। আবাহনীর ৫ উইকেটে ৩৬৬ রানের জবাবে মোহামেডানের ইনিংস থামে ৯ উইকেটে ৩৩৯ রানে। ২৭ রানে মোহামেডান হারলেও দুই ঐতিহ্যবাহী দলের জমজমাট লড়াইয়ে জয় হয়েছে ক্রিকেটের। মোহামেডানকে ৩৬৭ রানের পাহাড়সম ল্যই ছুঁড়ে দিয়েছিল আবাহনী। এ রান তাড়া করতে নেমে ৩৮ রানেই সাজঘরে ফেরত যান মোহামেডানের প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যান। ব্যাটিং বিপর্যয়ে তখন মোহামেডান। আরও একটি একপেশে ম্যাচের অপোয় তখন দর্শকরা।
দলের ত্রাতা হয়ে মাঠে নামেন অধিনায়ক রকিবুল। সঙ্গী হিসেবে পান লঙ্কান ব্যাটসম্যান চরিথ আসালাঙ্কাকে। ১৭৫ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে উল্টো দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান তারা। ৬০ বলে ৬৩ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলা আসালাঙ্কা ফিরে গেলেও এক প্রান্ত আগলে রেখে রানের চাকা সচল রাখছিলেন রকিবুল। ব্যাটিং করেন শেষ ওভার পর্যন্ত। শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩০ রানের। ছক্কা মারতে গিয়ে দ্বিতীয় বলেই সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে। তবে এর আগে গড়ে যান নতুন রেকর্ড। লিস্ট এ ক্রিকেটে বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। ১৯০ রানের অনবদ্য এক ইনিংসটি খেলেন মাত্র ১৩৮ বলে। ইনিংস ১৭টি চার ও ১০টি ছক্কা মারেন রকিবুল। এক ইনিংসে ২৭টি বাউন্ডারিও বাংলাদেশের নতুন রেকর্ড। শেষ পর্যন্ত ২৭ রান দূরেই থামে মোহামেডানের ইনিংস। আবাহনীর বোলারদের মধ্যে ৪৭ রানে ৫ উইকেট নেন মানান শর্মা। ২টি উইকেট পান কাজী অনিক।
এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে আবাহনীর শুরুটা ছিল দারুণ। দুই ওপেনার লিটন কুমার দাস ও সাদমান ইসলাম দলকে শতরানের জুটি এনে দেন। জুটি ভাঙে ১০৩ রানে। সাদমান ২৮ রান করে তাইজুলের বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। তবে তিন নম্বরে নেমে লিটনের সঙ্গে মোহামেডান বোলারদের উপর চড়াও হন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১০৩ বলে ১৩৫ রান করেন লিটন। তার ইনিংসে ছিল ১৫টি চার ও ২টি ছয়। অন্যদিকে ১০০ বলে ১১০ রান করেন নাজমুল। তাদের বিদায়ের পর শেষ দিকে শুভাগত হোম ৪৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন। তাতেই নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩৬৬ রানের বিশাল স্কোর গড়ে আকাশি-হলুদ জার্সিধারীরা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :