সকাল ৭:৪৭, শুক্রবার, ২৩শে জুন, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / কেকেআরকে হারিয়ে শীর্ষস্থান নিশ্চিত মুম্বাইর
কেকেআরকে হারিয়ে শীর্ষস্থান নিশ্চিত মুম্বাইর
মে ১৪, ২০১৭

জয়ের জন্য শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৪ রান। উইকেটে ব্যাট হাতে দুই বোলার। উমেষ যাদব আর ট্রেন্ট বোল্ট। হার্দিক পান্ডিয়ার মত স্লগ ওভারের সেরা বোলারকে পিটিয়ে ১৪ রান তোলা তাদের পক্ষে দুঃস্বাধ্য। হলোও তাই। দু’জন মিলে নিতে পারলেন মাত্র ৪ রান। শেষ পর্যন্ত শ্বাসরূদ্ধকর লড়াই শেষে কেকেআরকে ৯ রানে হারিয়ে আইপিএলের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান অর্জন করলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। গ্রুপ পর্বের ১৪ ম্যাচ শেষে মুম্বাইর পয়েন্ট ২০।

আগেই প্লে অফ নিশ্চিত হয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্সের। তবুও মুম্বাইর বিপক্ষে ইডেন গার্ডেনে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচটি ছিল কেকেআরের জন্য ভিন্ন গুরুত্ববহ। কারণ, এই ম্যাচে জিতলেই নিশ্চিত হতো দুই নম্বর স্থান। ফলে, প্লে-অফে একটি ম্যাচ খেলেও ফাইনালে ওঠার সুযোগ থাকতো। কিংবা হেরেও গেলেও ক্ষতি ছিল না। আরেকটি সুযোগ পাওয়া যেতো; কিন্তু মুম্বাইর কাছে ৯ রানে হারের ফলে এখন তারা রয়েছে তৃতীয় স্থানে।

ফলে প্লে অফে প্রথম ম্যাচ জিতলেও লাভ নেই; কারণ তাদের ক্ষেত্রে প্রথমটা হবে ইলিমিনেটর রাউন্ড। দ্বিতীয়টা কোয়ালিফায়ার। অর্থ্যাৎ দ্বিতীয় ম্যাচ জিতলেই কেবল মিলবে ফাইনালের টিকিট।

কেকেআরের সমান ১৬ পয়েন্ট করে রয়েছে রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টসেরও। পাঞ্জাবের পয়েন্ট ১৪। আজ পাঞ্জাবকে হারাতে পারলেই তারা উঠে যাবে দ্বিতীয় স্থানে। সে ক্ষেত্রে সানরাইজার্স  হায়দরাবাদ নেমে যাবে তিনে এবং কেকেআর নেমে যাবে চারে। আর যদি আজ কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব বড় ব্যবধানে জিতে যায়, তাহলে রানরেটের ব্যবধানে পুনেকে পেছনে ফেলে প্লে অফ নিশ্চিত করে ফেলবে তারা। একই সঙ্গে রান রেটের ব্যবধানে কেকেআরকেও পেছনে ফেলে তিনে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে তাদের।

ইডেন গার্ডেনে মুম্বাইর দেয়া ১৭৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ‘নিয়মিত’ ওপেনার হয়ে ওঠা সুনিল নারিনের উইকেট হারায় কেকেআর। ৪ বল খেলে কোনো রান না করেই আউট হয়ে যান তিনি। এরপর ক্রিস লিন আর গৌতম গম্ভীর চেষ্টা করেন দলের বিপর্যয় সামাল দেয়ার; কিন্তু কেকেআরের বড় কোনো জুটি গড়ে ওঠেনি। বড় ইনিংসও খেলতে পারেনি কেউ।

ক্রিস লিন ১৪ বলে ২৬, গম্ভীর ১৬ বলে ২১, মানিস পান্ডে ৩৩ বলে ৩৩, ইউসুফ পাঠান ৭ বলে ২০, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ১৬ বলে ২৯ এবং ১৫ বলে ১৬ রান করেন কুলদিপ যাদব। শেষ পর্যন্ত কেকেআরের ইনিংস থেমে যায় ৮ উইকেটে ১৬৪ রানে। মুম্বাইর হয়ে ২ উইকেট করে নেন টিম সাউদি, বিনয় কুমার এবং হার্দিক পান্ডিয়া ২টি করে উইকেট নেন। মিচেল জনসন ও কর্ন শর্মা নেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সৌরভ তিওয়ারির ৫২ এবং আম্বাতি রাইডুর ৩৭ বলে ৬৩ রানের ওপর ভর করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান সংগ্রহ করে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। যদিও শুরুতে তারা স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ করার আগেই হারায় লেন্ডল সিমন্সের উইকেট। তবুও সৌরভ তিওয়ারি এবং রোহিত শর্মার দৃঢ়তায় ঘুরে দাঁড়ায় তারা। ২১ বলে ২৭ রান করে আউট হয়ে যান রোহিত। ৪৩ বলে ৫২ রান করেন তিওয়ারি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :