রাত ১২:৪২, বুধবার, ২৫শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / সাঙ্গাকারার না থাকা কতোটুকু স্বস্তির
সাঙ্গাকারার না থাকা কতোটুকু স্বস্তির
মার্চ ৩, ২০১৭

অতীত পরিসংখ্যান বলছে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি ‘ভুগিয়েছেন’ শ্রীলঙ্কান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারা। তার ব্যাট হাতে জ্বলে উঠা মানেই শ্রীলঙ্কার রানের পাহাড়। আর সেই পাহাড়ের চাপে বাংলাদেশ; বোলাররা ‘কিংকর্তব্যবিমূঢ়’।

২০০২ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। মোট ১৬টি টেস্ট খেলেছে দুই দল। এর মধ্যে কুমার সাঙ্গাকারা খেলেছেন ১৫টি ম্যাচ। ১৫ টেস্টে ২১ ইনিংসে কুমার সাঙ্গাকারার রান ১৮১৬। ৭টি সেঞ্চুরির সঙ্গে রয়েছে ৭টি হাফ-সেঞ্চুরির ইনিংস। বাংলাদেশের বিপক্ষে ২৪ ইনিংসে শ্রীলঙ্কার রান ৯৫৮৬। গড় রান ৩৯৯.৪১।  সেখানে সাঙ্গাকারার একার রান ১৮১৬ ও গড় রান ৯৫.৫৭। অর্থ্যাৎ মোট রানের তিন ভাগের প্রায় এক ভাগ করেছেন সাঙ্গাকারা। বাকি ১০ লঙ্কান ক্রিকেটারের অবদান মাত্র দুই ভাগ!

বাংলাদেশের বিপক্ষে একটি ট্রিপলসহ তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি সাঙ্গাকারার। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫৪ রান দিয়ে রানের খাতা খুলেছিলেন সাঙ্গাকারা। অবসরের আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ ইনিংসে রান ১০৫। দ্বিতীয় ইনিংসে ১০৫ রানের ইনিংস খেলার আগে প্রথম ইনিংসে খেলেছিলেন ক্যারিয়ার সেরা ৩১৯ রানের ইনিংস। প্রথম থেকে শেষ মুখোমুখি পর্যন্ত বাংলাদেশের বিপক্ষে সব সময়ই নতুন করে চিনিয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারা। নিজের মাইলফলক নিজে ভেঙেছেন, নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।

আবারও টেস্ট ক্রিকেটে মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। কিন্তু ১২ বছরের পরিচিত সেই মুখটি এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে নেই! কুমার সাঙ্গাকারার না থাকাটা বাংলাদেশের জন্য নিঃসন্দেহে স্বস্তির বিষয়। বাংলাদেশের বোলাররা দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলে বলতেই পারেন,‘যাক এবার অন্তত সাঙ্গাকারা নেই!’

সাঙ্গাকারাকে নিয়ে চিন্তা করার প্রয়োজন না হলেও শ্রীলঙ্কান তরুণদের নিয়ে ভাবতেই হবে তাসকিন, রাব্বী, রুবেলদের। রঙিন পোশাকে আলো ছড়ানো দুই ওপেনার আসিলা গুনারত্নে ও নিরোশান ডিকভেলা সাদা পোশাকে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলবেন। তাদের সঙ্গে আছেন দিমুথ করুনারত্নে ও কুসল মেন্ডিস। অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের রয়েছেন দিনেশ চান্দিমাল ও উপল থারাঙ্গা। এদের নিয়ে পৃথক রণ কৌশল সাজাতেই হবে মুশফিক, তামিমদের।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :