দুপুর ২:০৪, রবিবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / সরে দাঁড়াতে বাধ্য করা হয়েছে ধোনিকে!
সরে দাঁড়াতে বাধ্য করা হয়েছে ধোনিকে!
জানুয়ারি ৯, ২০১৭

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দুই ফরম্যাটেই (ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি) ভারতকে বিশ্বকাপ উপহার দেওয়া ‘ক্যাপ্টেন কুল’ খ্যাত মহেন্দ্র সিং ধোনি হঠাৎ করেই ঘোষণা দিয়েছেন রঙিন পোশাকের অধিনায়কত্ব ছাড়ার। আসলে তিনি কি সেচ্ছায় অধিনায়কের পদ থেকে সরে এসেছে নাকি তাকে অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য করা করে হয়েছে? প্রশ্নটা যে থেকেই যাচ্ছে। মহেন্দ্র সিং ধোনির এই অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেয়ার খবর ভক্তকুলের জন্য হৃদয়ে রক্তক্ষরণের মতোই হয়ে এসেছে যেন।

কামানের গোলার মত ভেসে এসেছে একটি কথা, ভারতীয় এই অধিনায়ক নিজ থেকে অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়াননি, তাকে বাধ্য করা হয়েছে সরে দাঁড়াতে। কেননা ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) বুধবার ঘোষণা করে যে, ধোনি টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডের অধিনায়কত্ব ছাড়লেও ভারতের জার্সি গায়ে খেলা চালিয়ে যাবেন।

কেউ কেউ বলছেন, একেবারে নিখুঁত টাইমিং। আবার কেউ তাকে আরও অন্তত বছর দুয়েক ক্রিকেট মাঠে দেখতে চান। এম এস ধোনির ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে চর্চায় ব্যস্ত ক্রিকেট বিশ্ব। তবে বিসিসিআইয়ের নির্বাচন কমিটির চেয়ারম্যান এমএসকে প্রসাদ জানান, ‘ধোনি তার নিজ ইচ্ছায় পদত্যাগ করেনি।’

তবে পরবর্তীতে প্রসাদ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘আমি তার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। আমি তার এই নিখুঁত সিদ্ধান্তের জন্য ধন্যবাদ জানাই। সে জানতো যে ভারতীয় দলকে ভালোভাবেই নেতৃত্ব দিতে পারবে বিরাট কোহলি। তার কারণ- কোহলি সাদা পোশাকেও ভারতীয় দলকে এনে দিচ্ছে সাফল্য। আর এটি প্রমাণিত যে টেস্ট দলপতি হিসেবে নিজেকে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছে কোহলি।’

এদিকে ধোনির অবসরের পর অনেকে অনেক মন্তব্য করলেও ভারতের সাদা পোশাকের অধিনায়ক অনেকটাই চুপ ছিলেন। অবশেষে মুখ খুললেন। আর জানালেন, ‘ধোনি ভাই সব সময়ই আমার অধিনায়ক।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :