রাত ১০:৫২, মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / পেছন থেকে অন্য কেউ কলকাঠি নাড়ছে : আরাফাত সানির মা
পেছন থেকে অন্য কেউ কলকাঠি নাড়ছে : আরাফাত সানির মা
জানুয়ারি ২৬, ২০১৭

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেফতার হয়ে এখন কারাগারে জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানি। নাসরিন আক্তার নামের এক নারীকে বিয়ে করে তাকে তুলে না নেয়া, তার নামে ফেসবুক আইডি খুলে ছবি প্রকাশ করার ভয় দেখানো, হুমকি-ধামকি দেখানোর দায়ে সেই নারীই তার নামে মামলা দায়ের করেন মোহাম্মদপুর থানায়। গ্রেফতার হওয়ার পর সানির নামে যৌতুক নেয়ার অভিযোগে আরও একটি মামলা করেছেন ওই নারী। যে ঘটনায় একদিনের রিমান্ড শেষে সানি এখন কারাগারে।

তবে ছেলের বিরুদ্ধে নাসরিন আক্তার নামে ওই নারীর আনা অভিযোগ, বিয়ে- সবগুলোকেই মিথ্যা এবং ভুয়া বলে প্রথম থেকে দাবি করে আসছেন আরাফাত সানির মা নারগিস আক্তার। তিনি মনে করেন, তার ছেলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। অন্যায়ভাবে তাকে গ্রেফতার করে জেলে নেয়া হয়েছে। তিনি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। একইসঙ্গে তার ছেলে নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে ফিরে আসবে বলেও জানান।

জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপকালে আরাফাত সানির মা বলেন, ‘যে অভিযোগ সানির বিরুদ্ধে আনা হয়েছে, তা পুরোপুরি মিথ্যা। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। আমার ছেলের নামে অন্যায়ভাবে মামলা করা হয়েছে, অন্যায়ভাবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার সম্মান হানি করা হয়েছে। আমি এর ন্যায় বিচার চাই।’

ওই মেয়ের সঙ্গে সানির পরিচয় ছিল কি-না? এমন প্রশ্নের জবাবে তার মা বলেন, ‘আমি এটা বলতে পারবো না। পরিচয় ছিল নাকি ছিল না। পরিবারের কেউই এ সম্পর্কে জানতো না। তবে সে তো একজন খেলোয়াড়। ক্রিকেট তারকা। তার সঙ্গে তো কত মানুষেরই পরিচয় থাকতে পারে, সম্পর্ক থাকতে পারে। অনেক ভক্ত থাকতে পারে তার। বন্ধুত্বও থাকতে পারে। অনেক মেয়েও তার বন্ধু হতে পারে। সে হিসেবে হয়তো ওই মেয়ের সঙ্গেও সে রকম কোনো পরিচয় ছিল। কখনও হয়তো ভক্ত সেজে ছবিও তুলেছিল। এ রকম ছবি তো অনেকেই তোলে। এটাকেই এখন ওই মেয়ে ব্যবহার করছে আমার ছেলেকে ফাঁসানোর জন্য।’

বিয়ের দাবি করে যে ওই মেয়ে মামলা করলো! আরাফাত সানির মা বলেন, ‘এটা আমার ছেলের বিরুদ্ধে একটা গভীর চক্রান্ত।’

কেন এই চক্রান্ত? ‘কেন চক্রান্ত করা হচ্ছে এটা আমি জানি না। তবে আমার মনে হয় এটার পেছনে বড় কোনো স্বার্থ আছে, সে কারণেই হয়তো ষড়যন্ত্র করতেছে। আমার মনে হয়, ওই মেয়ে একা নয়। বড় কেউ হয়তো এর পেছনে জড়িত আছে।’

কারা জড়িত মনে করেন আপনি? ‘আমি কেমনে বলবো। আমি তো জানি না। তবে আমার ধারণা, মেয়েটার কোনো ঘনিষ্ঠ লোকই হয়তো এ কাজগুলো করাচ্ছে। না হয় মেয়েটা এত সাহস পেতো না, এত এগুতেও পারতো না। এটার পেছনে নিশ্চয় অন্য কেউ জড়িত। অন্য কেউ কলকাঠি নাড়ছে।’

আইনি পথেই ছেলেকে নির্দোষ প্রমাণ করবেন নারগিস আক্তার। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলের চেয়ে আরও বড় বড় স্টারের নামে কত কিছু হচ্ছে। আমার ছেলে তো তাদের চেয়ে বড় নয়। এ কারণে, এটা নিয়ে মাথা ঘামিয়ে লাভ নেই। এখন আমাদের একটাই চিন্তা, যেভাবেই হোক ছেলেকে নির্দোষ প্রমাণ করে আনা। বিষয়টা যেহেতু থানা-পুলিশে চলে গেছে। আদালতে উঠে গেছে, এখন আদালতে দাঁড়িয়েই আমরা এটা নিয়ে লড়াই করবো। আদালতেই সানিকে নির্দোষ প্রমাণ করবো।’

সানির বিয়ের কাবিননামা প্রকাশ হয়ে গেছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনি ওই মেয়েকে বিয়ে করেছেন। এসব সম্পর্কে সানির মা বলেন, ‘এগুলো সম্পূর্ণ ভুয়া। তার বিয়ের কাবিননামা, মেয়ে যে অভিযোগ করেছে তার নাম দিয়ে ফেসবুকে আইডি খোলা হয়েছে এবং ছবি দেয়া হয়েছে, এগুলো সবই ভুয়া। এগুলো সব ওই মেয়ের নিজেরই বানানো। সানির নামে ফেসবুকে অনেক আইডি আছে। সবগুলোই কি সানির? তার নাম দিয়ে তো যে কেউ আইডি খুলতে পারে। আমার মনে হয় এই মেয়েই সবকিছু নিজে করেছে। এটা ওর ব্যবসা। এ ধরনের ভালো ভালো ছেলেদের ফাঁদে ফেলে সুবিধা আদায় করে তারা। আমার আশা, আমার ছেলে নির্দোষ হয়েই আবার আমার কাছে ফিরে আসবে।’



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :