রাত ১২:২০, বুধবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / স্যামি ঝড়ে চিটাগংকে ছিটকে দিল রাজশাহী
স্যামি ঝড়ে চিটাগংকে ছিটকে দিল রাজশাহী
ডিসেম্বর ৬, ২০১৬

ড্যারেন স্যামির ব্যাটিং ঝড়ে ক্রিস গেইল ম্লান। এলিমিনেটরে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৩ উইকেটের সহজ জয় পেল রাজশাহী কিংস। মঙ্গলবার ৯ বল হাতে রেখে রাজশাহীকে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে নেন অধিনায়ক স্যামি।
‘কে ক্রিস গেইল? আমার ব্যাট জ্বলে উঠলে আমিই সেরা’- ড্যারেন স্যামি এমন এক হুংকারই দিলেন ব্যাট হাতে। এক স্মরণীয় ইনিংস খেলে বিপিএলের এলিমিনেটরে রাজশাহী কিংসকে জেতালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। তার অপরাজিত ৫৫ রানে ১৮.৩ ওভারে সাত উইকেটে ১৪৩ রান করে রাজশাহী। ৩ উইকেটের পরাজয়ে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল চিটাগং ভাইকিংস।
জেতা ছাড়া পথ নেই এমন ম্যাচ জেতার জন্য যেসব উপাদান রাজশাহীর দরকার ছিল তার কিছুই পায়নি তারা। নুরুল হাসান সোহান ও মুমিনুল হকের উদ্বোধনী জুটি বিচ্ছিন্ন হয় ৬ রানে। সাত বলে ৪ রান করে বিদায় নেন মুমিনুল। কিশোর আফিফ হোসেনকে ওয়ান ডাউনে নামিয়ে উল্টোপাল্টা রান নেওয়ার পরীক্ষায় রাজশাহী সফল হয়নি। রানের খাতাই খুলতে পারেননি ব্যাটিংকে গুরুত্ব দেওয়া আফিফ। সাব্বির রহমান আশা জাগিয়েছিলেন। কিন্তু ১৫ বলে ১১ রান করার পর ক্রিজে এগিয়ে এসে শুভাশীষ রায়কে মারতে গেলেন ছক্কা, সময়ের হেরফেরে বল গেল লং অফে দাঁড়ানো মোহাম্মদ নবীর হাতে। ইংলিশ অলরাউন্ডার সামিত প্যাটেলও ব্যাকফুটে কাট করতে গিয়ে নবীর কাছে বোল্ড হন ৫ রানে। দশম ওভারে চার উইকেটে রাজশাহীর ছিল ৫৫ রান। প্রত্যাশিত রান রেট কখনও পায়নি তারা, মাঝেই হারায় চারটি উইকেট।
দলের ধ্বংসস্তুপে দৃঢ়ভাবেই দাঁড়িয়ে ছিলেন নুরুল হাসান, খেলছিলেন বিপিএলে নিজের সেরা ইনিংসটি। শোয়েব মালিকের অনবদ্য ক্যাচে ইতি হয় তার ২৮ বলে দুটি চার ও একটি ছক্কায় করা ৩৪ রানের ইনিংসটির। সাকলাইন সজীবকে লং অফে তুলে মেরেছিলেন নুরুল, মালিক সীমানার একদম কাছে বল লুফে নেন। শরীরের ভারসাম্য সীমানার বাইরে চলে যাচ্ছে বুঝতে পেরে পাকিস্তানি অলরাউন্ডার বল ছুড়ে দেন জহুরুলের উদ্দেশ্যে। একটু এদিক ওদিক করে বলটি তালুবন্দি করেন জহুরুল, ক্যাচ বৈধ রায় দেন আম্পায়ার। মিরাজ ১০ রানে রানআউট হলে বিপদ আরও ঘনীভুত হয় রাজশাহীর।
কিন্ত চট্টগ্রামের সব পরিকল্পনা গুড়িয়ে দেন দুইবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপা জেতানো স্যামি। প্রথম বল থেকেই তিনি শুরু করেন আক্রমণ। তার ২৭ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কায় অপরাজিত ৫৫ রানের ইনিংসে রাজশাহী পায় অনন্য এক জয়। ১১ বলে তিনটি চারে ১৯ রানে স্যামির সঙ্গে অপরাজিত ছিলেন ফরহাদ রেজা।
রাজশাহী কাল বুধবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে ঢাকা ডায়নামাইটস ও খুলনা টাইটানসের মধ্যকার ম্যাচের পরাজিত দলের বিপক্ষে।
এর আগে তামিম ইকবাল ও ক্রিস গেইলের মারমুখী ব্যাটিং দিয়ে শুরু করলেও শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৮ উইকেটে ১৪২ রান করে চিটাগং। বিপিএলের এলিমিনেটরে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই রাজশাহীকে চমকে দেয় চট্টগ্রামের ফ্র্যাঞ্চাইজি। গেইলকে দিয়ে ওপেন করায়নি দলটি। ওপেন করতে নামেন তামিম ও ডোয়াইন স্মিথ।
তবে স্মিথ রাজশাহীকে মানসিকভাবে চমকে দিলেও ব্যাট হাতে কিছুই করতে পারেননি। শূন্য রানে স্বদেশী কেসরিক উইলিয়ামসের একটি বাড়তি বাউন্সের বলে স্লিপে স্যামির হতে ক্যাচ দেন।
এই উইকেটের পতনে দলের ওপর প্রভাব পড়তে দেননি ওয়ান ডাউনে নামা গেইল। তামিমকে সঙ্গে নিয়ে ৮.২ ওভারে দুইজনে মিলে গড়েন ৭৪ রানের জুটি। গেইল যখন মারমুখী মেজাজে ছিলেন তখন তামিম বাজে বল মেরে খেলার নীতি অনুসরণ করেন। সেট হতে একটু সময় নিয়ে গেইল মারেন পাঁচটি ছক্কা ও দুটি চার। ৩০ বলে ৪৪ রান করার পর জেমস ফ্র্যাঙ্কলিনের একটি স্লোয়ার ডেলিভারিতে তিনি লং অফে ফরহাদ রেজার হাতে ধরা পড়েন। এরপর ক্রিজে গেইলের স্থান পূরণ করেন মালিক। নিজের ভালো ফর্ম অব্যাহত রাখার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তিনি। তবে ফরহাদের বলে কাভারে দাঁড়ানো মিরাজকে তিনি পরাস্ত করতে পারেননি। চেয়েছিলেন লফট করতে, কিন্তু বল জমা পড়ে মিরাজের হাতেই। দলকে ১২ বলে ১৪ রান দেন তিনি।
দিনের প্রথম বল খেলা তামিম বিদায় নেন ১৭.২ ওভারে। ততক্ষণে দলের স্কোর ১১৭ রান। কেসরিকের বল ড্রাইভ করে ব্যাটের বাইরের কানায় লাগিয়ে কাভারে প্যাটেলের হাতে ধরা পড়েন তিনি। বিদায় নেওয়ার আগে ৪৬ বলে ছয়টি চারে ৫১ রান করেন তিনি। রানের গতি বাড়ানো ছাড়া আর কোনও কাজ ছিল না পরের ব্যাটসম্যানদের। কিন্তু এখানেই তাদের প্রত্যাশায় রাশ টেনে ধরেন রাজশাহীর ফিল্ডাররা। এনামুল হক বিজয় করেন ১০ বলে ১১। নবীর ওপরও প্রত্যাশা ছিল ভাইকিংসের। কিন্তু সীমানা থেকে করা সাব্বিরের সরাসরি থ্রোতে পাঁচ রানে রান আউট হন নবী। এরপর আবদুর রাজ্জাক আর রানের খাতা খুলতে পারেননি। সঙ্গে জহুরুল অপরজিত ছিলেন ১১ রানে।
শেষ দিকে কেসরিকের করা ১৯ ওভারে দুই রানেই তিনটি উইকেট হারায় চিটাগং। ১১ রানে চার উইকেট নিয়ে কেসরিক ছিলেন সফল বোলার।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :