রাত ১১:২৫, বুধবার, ১৬ই আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / গেইলকে বোল্ড করলেন কে এই আফিফ!
গেইলকে বোল্ড করলেন কে এই আফিফ!
ডিসেম্বর ৩, ২০১৬

শুরুতে কিছুটা দৃষ্টি বিভ্রম। দেখতে অনেকটা মেহেদী হাসান মিরাজের মত। বোলিং স্টাইলও প্রায় কাছাকাছি। গড়নেও অনেক মিল। চেহারার দিকে না তাকালে যে কেউ অবয়ব দেখে বলে দেবে এটা তো মেহেদী হাসান মিরাজ; কিন্তু চেহারা দেখে ভুল ভাঙবে আপনার। এ যে মিরাজ নন! তার মতই আরেকজন।

ক্রিস গেইলের বিশ্বসেরা ব্যাটিং দানবকে বোল্ড করার পর মুহূর্তের জন্য হারিয়ে গিয়েছিলেন স্যামি-সাব্বির-সামিত প্যাটেলতের আলিঙ্গনে। সেখান থেকে বেরিয়ে আসার পরই দেখা গেলো নতুন আনকোরা এই বোলারকে। নাম আফিফ হোসেন। আপাতত ক্রিকইনফো ঘেঁটে তার কোন সঠিক পরিচয় জানা গেলো না। শুধু বোঝা গিয়েছে, এর আগে বিকেএসপির হয়ে ঢাকা ফাস্ট ডিভিশন ক্রিকেট লিগে খেলেছেন।

এরপরই খোঁজ নিয়ে জানা গেলো, কদিন আগেই সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলে। কক্সবাজারে দলের ক্যাম্পে তার পারফরম্যান্সে খুশি হয়ে তাকে সহ-অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়। এর আগে প্রিমিয়ার লিগও খেলা হয়নি তার। প্রথম বিভাগে তাও খেলেছেন মাত্র ছয়টি ম্যাচ। সেই আফিফ হোসেনকে হঠাৎ বিপিএলে খেলা সুযোগ করে দেয় রাজশাহী কিংস। আর সুযোগ পেয়েই জ্বলে উঠলেন এ অলরাউন্ডার। প্রথম ম্যাচেই বোল্ড করে বিদায় করেন ক্যারিবিয়ান দানব ক্রিস গেইলকে।

শুধু গেইলই নন, জাকির হাসান এবং জহুরুল ইসলাম অমির উইকেটও তুলে নিয়েছেন এই তরুণ।

শনিবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরুতেই বল হাতে জ্বলে ওঠেন আফিফ। অথচ দলে তার পরিচয় ব্যাটিং অলরাউন্ডার হিসেবেই। প্রথম বিভাগে ছয় ম্যাচে পাঁচ ম্যাচেই থেকেছেন উইকেট শূন্য। একটি ম্যাচে দুইটি উইকেট পেয়েছিলেন তিনি।

এদিন জহুরুল ইসলাম অমিকে দিয়ে উইকেট নেয়া শুরু করেন আফিফ। যদিও সেখানে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করতেই পারেন তিনি। কারণ টিভি ক্যামেরায় পরিষ্কার দেখা গিয়েছে ব্যাটে লেগে বল প্যাডে লেগেছিল। তবে আম্পায়ারের ভুলে পেয়ে যান প্রথম উইকেট। ক্যারিয়ারের শুরুতেই উইকেট পেয়ে আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায় ১৮ বছর বয়সী এই যুবার।

পরের ওভারেই ক্যারিবিয়ান দৈত্য গেইলের সামনে পড়েন তিনি। অনেকেই ভেবেছিলেন গেইলের সামনে হয়তো অনেকটা চুপসে যাবেন তিনি; কিন্তু তার প্রথম দুই বলে কোন রান তুলতে পারেননি গেইল। তৃতীয় বলে লাইনে যেতে না পারায় সরাসরি বোল্ড হয়ে যান ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং দানব। আর তাতেই আফিফকে নিয়ে উল্লাসে মেতে ওঠে পুরো রাজশাহী শিবির।

জহুরুল-গেইলকে ফিরিয়েই ক্ষান্ত হননি আফিফ। পরের ওভারে আবারও ঝলক দেখালেন তিনি। এবার তার শিকার সদ্য অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলে আসা জাকির হাসান। তবে জাকিরের আউটে দারুণ অবদান ছিল সাব্বির রহমানের। লং অন থেকে প্রায় ২০ গজ দৌড়ে দুর্দান্ত এক ক্যাচ ধরেন তিনি।

এরপর নেন আরও দুই উইকেট। সাকলায়েন সজিব আর ইমরান খান জুনিয়ারকে তুলে নিয়ে রীতিমত চমক দেখালেন রাজশাহীর এই তরুণ।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) আফিফ এর আগে খেলেছেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দলেও। গ্রামের বাড়ি খুলনায়। বাংলাদেশের নবীন তারকা মেহেদী হাসান মিরাজের এলাকার ছেলে উঠে আসলেনও মিরাজের মতই। কারণ ব্যাটিং অলরাউন্ডার হয়েও এখন মিরাজের পরিচয় স্পিনার হিসেবে। এখন দেখার বিষয় বলের মত কারিশমা ব্যাটিংয়ে করতে পারেন কি না আফিফ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :