রাত ১২:৫৭, মঙ্গলবার, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / খুলনার লক্ষ্য ১৫৯
খুলনার লক্ষ্য ১৫৯
ডিসেম্বর ৪, ২০১৬

কুমার সাঙ্গাকারার অর্ধশতকে খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে সাত উইকেটে ১৫৮ রান করেছে ঢাকা ডায়নামাইটস।
এই ম্যাচটি ঢাকার জন্য শুধুই ছিল আনুষ্ঠানিকতা। কারণ হারলেও তাদের শীর্ষ স্থান হারানোর কোনও আশঙ্কা নেই। এমন অবস্থায় খুলনা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ টসে জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নেন। তবে খুব একটা সফল হয়নি তার এ সিদ্ধান্ত। ঢাকার উদ্বোধনী জুটি মেহেদী মারুফ ও কুমার সাঙ্গাকারা ৬.৫ ওভারেই দলের রান নিয়ে যান ৫৮তে। আর এখানে সাঙ্গাকারাই ছিলেন বেশি মারমুখী। কারণ ১৬ রান করার পর রানআউট হন মারুফ।
সাঙ্গাকারা একাই খেলে চলেন, মাঠের চারদিকে আছড়ে পড়তে থাকে তার স্ট্রোকগুলো। যদিও দলীয় ৮৭ রানের মাথায় বেনি হাওয়েলের একটি ইয়র্কারে ক্রস ব্যাটে খেলতে গিয়ে ব্যর্থ হন শ্রীলঙ্কান গ্রেট। নষ্ট হয়ে যায় তার স্টাম্পের ভারসাম্য। ৪১ বলে আটটি চারে ৫৯ রান ছিল তার সংগ্রহ।
নাসির হোসেন এরপর হন ইনিংসের দ্বিতীয় রানআউটের শিকার। অবশ্য নিজের পতনের জন্য তিনি নিজেই দায়ী। কারণ লং অফ থেকে করা থ্রোটি এসে পড়ে বোলার মাহমুদউল্লাহর হাতে। তা তিনি ধরতে না পারায় সেটি আঘাত হানে স্টাম্পে। সেসময়ই আবার রান নিতে গিয়ে নাসির আর স্ট্রাইকিং এন্ডে পৌঁছাতে পারেননি। মাহমুদউল্লাহর থ্রোয়ে হন রানআউট। যাওয়ার আগে দলকে ১৭ বলে ১৯ রান দিয়েছিলেন নাসির।
অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও সেকুগে প্রসন্ন রানরেট বাড়ানোর জন্য বিগ শট খেলতে গিয়ে বিদায় নেন। সাকিব ৭ বলে ১১ ও প্রসন্ন ৮ বলে ১৪ রান করে বিদায় নেন। যেখানে ছিল মাহমুদউল্লাহকে গ্যালারিতে পাঠানো একটি ছক্কাও। এরপর রবি বোপারাকে ছয় রানে ফিরিয়ে দিয়ে ঢাকার রানের চাকায় খানিকটা রাশ টেনে ধরেছিল খুলনা। কিন্তু শেষ দিকে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ১৮ বলে ২টি চার ও একটি ছক্কায় করা ২০ রানে আবারও রানের চাকায় গতি আনে সাকিবের দল। লড়াই করে ধরে রাখার মতো সংগ্রহই দাঁড় করায় তারা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :