সকাল ৮:৫২, মঙ্গলবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ভলিবল / ‘এটা শুধু আমাদের জয় নয়, পুরো দেশেরই জয়’
‘এটা শুধু আমাদের জয় নয়, পুরো দেশেরই জয়’
ডিসেম্বর ২৭, ২০১৬

ভলিবলের আন্তর্জাতিক আসরে প্রথমবার শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু সিনিয়র মেনস সেন্ট্রাল জোন আন্তর্জাতিক ভলিবল টুর্নামেন্টে ট্রফি হাতে উচ্ছ্বাসটা তাই হলো বাঁধনহারা।
জাবির, রাশেদ, হরসিত, সোহেল, মাসুদরা জয়ের পর সোহওরায়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামের টার্ফে দাপিয়ে বেড়ালেন। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে গানের সঙ্গে খেলোয়াড়রা নাচানাচি করলেন গলা জড়িয়ে।
লিগ পর্বে যেই কিরগিজস্তানের বিপক্ষে ৩-২ সেটে হেরে গিয়েছিল জাবিররা সেই কিরগিজদের বিপক্ষে ফাইনালে সরাসরি সেটে (৩-০) জয় তো বিরাট প্রাপ্তি। এমন উচ্ছ্বাস তো হবেই।
মঙ্গলবার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাইদ আল জাবির বললেন, ‘এটা শুধু আমাদের জয় নয়, পুরো দেশেরই জয়। কেননা, ভলিবলে এর আগে কখনও আমাদের কোনো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে সাফল্য আসেনি।’
ঘরের মাঠে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা জিততে টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই মরিয়া ছিল বাংলাদেশ। যার প্রতিফলন দেখা গেছে কোর্টে। লিগ পর্বের তিন ম্যাচেই বড় জয় তুলে ফাইনালে ওঠে স্বাগতিকরা।
ফাইনালে কিরগিজস্তানকে হারানোর ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিল গোটা দল, ‘শুরু থেকে আমরা বলে আসছিলাম, আমাদের লক্ষ্য ফাইনাল খেলা। গতকালও অনেকে জানতে চেয়েছেন, কি অবস্থা? কি লক্ষ্য? দেশের মাটিতে খেলা, দর্শকও আমাদের পক্ষে ছিল। তো আমাদের একটাই লক্ষ্য ছিল শিরোপা জেতা। আমরা অনেক অনেক চেষ্টা করেছি; জিতেছি। এ জয়ের আনন্দ আসলে ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।’
ভলিবলের বিশ্বকাপ-বাছাইয়ে কিরগিজস্তানের কাছে হেরেছিল বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাটিতে লিগ পর্বে তাদের বিপক্ষে হারের পর ফাইনালে নামার আগে প্রতিপক্ষ নিয়ে পর্যালোচনা হয়েছে বলে জানান জাবির, ওরা (কিরগিজস্তান) রাশিয়ান বেল্টের দল, ওদের ভলিবল সম্পর্কে আমরা বেশি কিছু জানতাম না। আমরা সবসময় সাউথ এশিয়ার মধ্যে থাকি। এই টুর্নামেন্ট দিয়ে আমরা অন্য দেশগুলোর সঙ্গে খেলেছি, চিনেছি। গত ম্যাচে ওদের কাছে আমরা হেরেছিলাম। হারের পর ম্যাচটি আমরা পর্যালোচনা করেছি। দেশের মাটিতে জিতবো-এ আশা নিয়ে আজ কোর্টে নেমেছিলাম।’
আন্তর্জাতিক আসরে সাফল্যের পর ক্রিকেট-ফুটবলের মতো ভলিবলেও নতুন পরিকল্পনা নেওয়া হবে বলে আশা প্রকাশ করেন বাংলাদেশ দলের এ অধিনায়ক। আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে আরও বেশি অংশগ্রহণ বাড়ানোর তাগিদ দেন তিনি, ‘টুর্নামেন্টের মাঝে দীর্ঘ বিরতি থাকলে আসলে দল ঠিক থাকে না। ক্রিকেট-ফুটবল এগিয়ে গেছে। কেননা তাদের পরিকল্পনা আছে, বর্ষপঞ্জি আছে। আশা করি, এবার আমাদেরও একটা পরিকল্পনা এবং বর্ষপঞ্জি থাকবে।’
চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বাংলাদেশ দল পেয়েছে ১৫০০ ডলার। এছাড়া বাংলাদেশ দলকে ১০ লাখ টাকা পুরস্কার দিয়েছে আলিফ গ্রুপ। মিরপুরের শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে আসরের ফাইনালে কিরগিজস্তানকে ৩-০ সেটে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ। ২৫-২২ পয়েন্টে প্রথম সেট জিতে নেয় বাংলাদেশ। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর বাংলাদশে দ্বিতীয় সেট জেতে ২৫-২৩ পয়েন্টে।
তৃতীয় সেটে বাংলাদেশ যখন ৭-৬ পয়েন্টে এগিয়ে তখন ইনজুরিতে পড়েন কিরগিজস্তানের খেলোয়াড় তকতয়েভ। তিনি আর মাঠ নামতে না পারায় খেলোয়াড় সংকট দেখা দেয় কিরগিজ শিবিরে। কেননা, আগের দিন ইনজুরিতে পড়েন দলের আরও দুইজন খেলোয়াড়। আটজন খেলোয়াড় নিয়ে বাংলাদেশে আসা কিরগিজদের ফিট খেলোয়াড়েরর সংখ্যা নামে পাঁচে। ভলিবলের আইনে পাঁচজন খেলোয়াড় নিয়ে ম্যাচ না হওয়ায় তৃতীয় সেটে জয়ী ঘোষণা করা হয় বাংলাদেশকে। তৃতীয়বারের মতো ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন সাইদ আল জাবির। আর টুর্নামেন্ট সেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন হরসিত কুমার বিশ্বাস।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :