দুপুর ১২:২৬, সোমবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল / শেখ রাসেল-চট্টগ্রাম আবাহনীর গোলশূন্য ড্র
শেখ রাসেল-চট্টগ্রাম আবাহনীর গোলশূন্য ড্র
নভেম্বর ১১, ২০১৬

প্রিমিয়ার লিগের প্রথম পর্বের পুনরাবৃত্তি করতে পারেনি চট্টগ্রাম আবাহনী। দ্বিতীয় পর্বের ম্যাচে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের সঙ্গে গোলশূণ্য ড্র করে শীর্ষে ফেরার সুযোগ হারিয়েছে দলটি। প্রথম লেগে শেখ রাসেলকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল চট্টগ্রামের দলটি।
ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে শুক্রবার শুরু থেকে আক্রমণ, প্রতিআক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচটি। তবে প্রথমার্ধে আক্রমণে এগিয়ে ছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। ২৪তম মিনিটে জাহিদের ফ্রি-কিক দারুণ দতায় ফিরিয়ে শেখ রাসেলের ত্রাতা গোলরক বিপ্লব ভট্টাচার্য্য। প্রথমার্ধে গোলের সেরা সুযোগটি নষ্ট করেন লিওনেল সেইন্ট প্রিয়াক্স। সতীর্থের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলরককে কাটানোর পর হাইতির এই ফরোয়ার্ডের নেওয়া শট গোললাইন থেকে শেষ মুহূর্তে ফেরান আহমেদ সাইদ হাসান।
শেষ দিকে বল দখলের লড়াইয়ে শেখ রাসেলের রুম্মনের সঙ্গে সংঘর্ষের পর অ্যাম্বুলেন্সে চেপে মাঠ ছাড়েন চট্টগ্রাম আবাহনীর নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার রেজাউল করিম। আঘাত পেয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়েন রুম্মনও।
দ্বিতীয়ার্ধে চট্টগ্রামকে চাপে রাখে শেখ রাসেল। কিন্তু গোল অধরা থেকে যায়। ৬৪তম মিনিটে সেবাস্তিয়ানের দূরপাল্লার শট সোজা আশরাফুল ইসলাম রানার গ্লাভসে জমে গেলে এগিয়ে যাওয়া হয়নি শেখ রাসেলের। একটু পর সেবাস্তিয়ানের আরেকটি দূরপাল্লার শট গোলরককে ফাঁকি দিলেও পোস্টে লাগে।
ছয় মিনিট পর ভালো একটি আক্রমণের সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি শেখ রাসেল। ডি বক্সের মধ্যে নাসিরুল ইসলামের কাট ব্যাক থেকে পাওয়া সুযোগ ইকাঙ্গা নষ্ট করার পর পেয়ে গিয়েছিলেন শাখাওয়াত হোসেন রনি। জাতীয় দলের এই ফরোয়ার্ড প্রতিপরে এক খেলোয়াড়ের গায়ে বল মারেন।
১৪ ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে চট্টগ্রাম আবাহনী। তাদের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলা আবাহনী ২৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। আর ১২ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে রয়েছে শেখ রাসেল।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :